বিএনপির প্রার্থী মঈন খানের নির্বাচনী প্রচারণায় আবারও হামলা, আহত ৫০ | daily-sun.com

বিএনপির প্রার্থী মঈন খানের নির্বাচনী প্রচারণায় আবারও হামলা, আহত ৫০

ডেইলি সান অনলাইন     ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৬:০৪ টাprinter

বিএনপির প্রার্থী মঈন খানের নির্বাচনী প্রচারণায় আবারও হামলা, আহত ৫০

নরসিংদী-২ পলাশ আসনে বিজয় দিবসের দিনে পাচদোনা এলাকায় বিএনপির প্রার্থী ড. আব্দুল মঈন খানের নির্বাচনী প্রচারণার সময় হামলার স্বীকার হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। এতে অন্তত ৫০ জন বিএনপির নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

আহতদের উদ্ধার করে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া গুরুতর আহতদের ঢাকা আনা হচ্ছে।

আজ রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় গণসংযোগের সময় এ হামলা করা হয়।

 

 

যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এ হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ বিএনপির। এনিয়ে দ্বিতীয় বার হামলার স্বীকার হলেন মঈন খান।

 

হামলায় মঈন খানের সঙ্গে থাকা কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হলেও তিনি অক্ষত আছেন। তবে তার সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

 

এ বিষয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের বক্তব্য পাওয়া না গেলেও হামলার পর পাঁচদোনা মোড়ে হকিস্টিক ও লাঠি হাতে কিছু যুবককে ‘জয় বাংলা’ এবং নৌকার পক্ষে স্লোগান দিতে দেখা গেছে।

 

হামলার সময় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গুলি করেছেন বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

তবে এ ঘটনায় কেউ গুলিবিদ্ধ হয়েছেন কিনা তা এখনও জানা যায়নি।

 

নরসিংদী-২ আসনে মঈন ধানের শীষ প্রতীক একাদশ সংসদ নির্বাচনে লড়ছেন। এই আসনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আনোয়ারুল আশরাফ খান।

 

মঈন খানের ব্যক্তিগত সহকারী বাহাউদ্দিন ভূঁইয়া অভিযোগ করেন, তাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগের লোকজন হামলা করেছে।  

 

তিনি বলেন, “স্যার স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলছিলেন। লিফলেট বিলি করছিলেন।  এ সময় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা দুদিক থেকে আমাদের ওপর আক্রমণ করে। তারা গুলি ছুড়েছে।

 

রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা সাড়ে ১২টার দিকে পাঁচদোনা বাজারে গণসংযোগ করতে যান আব্দুল মঈন খান। কিছুক্ষণের মধ্যেই লাঠিসোটা ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তাদের ওপর হামলা করে কিছু যুবক।

 

মঈন খান নেতাকর্মীদের নিয়ে বাজারের একটি চালের দোকানে আশ্রয় নেন। সেখানেও হামলা চালানো হয়।  পরে সেখান থেকে চলে যান তিনি।  

 

দুপুর একটার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে ধানের শীষের কিছু লিফলেট, গাড়ির ভাঙা কাঁচ রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

 

ঘটনার বিষয়ে জানতে মাধবদী থানার ওসি আবু তাহেরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, হামলার খবর তিনি শুনেছেন।

 

“আমি বিষয়টি শুনেছি। সেখানে পুলিশ পাঠিয়েছি। ”

 

এর আগে, গত মঙ্গলবারও মঈন খানের নির্বাচনী প্রচারণায় হামলা চালায় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

 

নির্বাচনী এলাকার আমদীয়া ইউনিয়নের বেলাব নামক স্থানে ওই হামলার ঘটনা ঘটে।

 

হামলাকারীরা বিএনপি নেতাকর্মীদের ১০টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর ও চারটি মোটরসাইকেল ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

 

এছাড়া হামলায় ছাত্রদল ও যুবদলের ১০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে জানান পলাশ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম।


Top