নারায়ণগঞ্জে বিএনপি নেতাকে না পেয়ে ছেলেকে ধরে নিয়ে গেছে পুলিশ | daily-sun.com

নারায়ণগঞ্জে বিএনপি নেতাকে না পেয়ে ছেলেকে ধরে নিয়ে গেছে পুলিশ

ডেইলি সান অনলাইন     ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১০:৪৯ টাprinter

নারায়ণগঞ্জে বিএনপি নেতাকে না পেয়ে ছেলেকে ধরে নিয়ে গেছে পুলিশ

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালকে না পেয়ে তার ছেলে নাহিন মুজতাবা সোহানকে ধরে নিয়ে গেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার (১৪ ডিসেম্বর) রাতে তাকে আটক করা হয়।


 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার রাতে শহরের বিভিন্ন এলাকায় এ অভিযান চালায় ডিবি পুলিশ ও জেলা পুলিশের সম্মিলিত দল। এই সময়ে পুলিশ শহরের মিশনপাড়া এলাকায় মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালের বাসায় তল্লাশির করে। সেই সময়ে কামালকে না তার একমাত্র ছেলে আটক করে পুলিশ।



এছাড়া শহরের নলুয়া এলাকাতে সাবেক ছাত্রদল নেতা এম এইচ মামুনের বাসায়ও অভিযান চালায় পুলিশ। তবে এ সময় তিনি বাড়িতে না থাকলেও পুলিশ তার বাসায় তল্লাশি চালিয়েছে।



এ ব্যাপারে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম জানান, নাশকতা রোধে এবং সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন এলাকায় সন্দেহভাজন ও অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বাড়িতে অভিযান চলছে। সোহানসহ আটকদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



আটক সোহানের বাবা নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সেক্রেটারি এটিএম কামাল বলেন, আমাকে না পেয়ে আনার নিরীহ ছেলেকে পুলিশ তুলে নিয়ে গেছে। ওর মাস্টার্স পরীক্ষা চলছে।

আশা করছি পুলিশ তাকে ছেড়ে দেবে।

 

কামাল বলেন, আমার ছেলে মাস্টার্সের পরিক্ষার্থী। সে কখনও কোনো রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিল না, এখনও নেই। তার একমাত্র অপরাধ তার বাবা বিএনপির রাজনীতি করে। তিনি প্রশ্ন রাখেন, এ কোন দেশে বসবাস করছি আমরা?

 

তিনি আরও বলেন, দল থেকে তাকে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের (শহর-বন্দর) ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী প্রচরণা কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে। তাকে চাপে রাখতেই তার নিরপরাধ ছেলেকে ধরে নিয়ে গেছে পুলিশ। তার ছেলের শিক্ষাজীবন ক্ষতিগ্রস্থ হলে তিনি আদালতের আশ্রয় নেবেন বলেও জানান।

 

এটিএম কামাল জানান, শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে তাকে গ্রেফতার করতে শহরের মিশনপাড়াস্থ তার বাসভবন সোনারগাঁও হাউজে যায় সদর থানার একদল পুলিশ।

 

এ সময় তাকে না পেয়ে তার একমাত্র ছেলে নাহিন মুজতাবা সোহানকে ধরে নিয়ে যায় পুলিশ। তিনি আরও জানান, সোহান রাজনীতিতে সক্রিয় নয়। তার বিরুদ্ধে কোনো মামলাও নেই।


Top