'হৃৎপিণ্ড' না নিয়েই চলে গেল বিমান, আবার ফিরে এলো | daily-sun.com

'হৃৎপিণ্ড' না নিয়েই চলে গেল বিমান, আবার ফিরে এলো

ডেইলি সান অনলাইন     ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৩:৫৮ টাprinter

'হৃৎপিণ্ড' না নিয়েই চলে গেল বিমান, আবার ফিরে এলো

যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটল থেকে ডালাসে যেতে থাকা একটি যাত্রীবাহী বিমান উড্ডয়নের কয়েকঘন্টা পর আবারো সিয়াটল বিমানবন্দরে ফিরে আসতে বাধ্য হয়।

সাউথওয়েস্ট এয়ারলাইন্সের বিমানটিতে একটি হৃৎপিণ্ড বহন করে ডালাসে নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল; যেটি বিমানে তুলতে ভুলে যায় বিমানের কর্মীরা।

 

এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে ক্যালিফোর্নিয়া থেকে হৃৎপিণ্ডটি সিয়াটলে নিয়ে আসা হয় যেন সেখানকার একটি হাসপাতালে হৃৎপিণ্ডের একটি ভাল্ভ প্রতিস্থাপন করা যায়।

 

পরবর্তীতে সিয়াটল থেকে ডালাসে স্থানান্তরিত করার কথা ছিল হৃৎপিণ্ডটিকে। কিন্তু হৃৎপিণ্ডটি ডালাসগামী বিমানে তোলাই হয়নি এবং প্রায় অর্ধেক পথ পাড়ি দেয়ার আগ পর্যন্ত বিমানের কর্মীদের মনেও আসেনি যে হৃৎপিণ্ডটি নিতে ভুলে গেছেন তারা।

 

রোববারে ঘটে যাওয়া এই ঘটনার গল্প গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয় মঙ্গলবারে। প্লেনের ক্যাপ্টেন যখন এই ঘটনার কথা যাত্রীদেরকে বলে তখন বিমানের অধিকাংশ যাত্রীই বিস্মিত হন বলে জানা যায়।

 

কেউ কেউ তাদের স্মার্টফোন ব্যবহার করে হৃৎপিণ্ড প্রতিস্থাপন সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় সার্চ করেন। দেহ থেকে একটি হৃৎপিণ্ড বের করার পর কতক্ষণের মধ্যে তা আরেকটি দেহে প্রতিস্থাপন করতে হয় - এই বিষয়েই সার্চ করেন অধিকাংশ মানুষ। বিশেষজ্ঞদের মতে, ৪ থেকে ৬ ঘন্টার মধ্যে এই অস্ত্রোপচার সম্পন্ন করতে হয়।

 

সাউথওয়েস্ট এয়ারলাইন্সের বিমানটি প্রায় ৩ ঘন্টা সময় অতিরিক্ত ভ্রমণ করার পর হৃৎপিণ্ডটি বিমানে তোলে।

তবে সিয়াটল টাইমস পত্রিকা জানায়, বিমানটি সিয়াটলে ফেরার পর টিস্যু সংরক্ষণের জন্য সিয়াটলের একটি স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রেই নিয়ে যাওয়া হয় হৃৎপিণ্ডটিকে।

পত্রিকার খবর অনুযায়ী, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই হৃৎপিণ্ডটিকে স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়েছিল।

 


Top