চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরলেন চামেলী | daily-sun.com

চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরলেন চামেলী

ডেইলি সান অনলাইন     ১২ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৬:৫৭ টাprinter

চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরলেন চামেলী

ভারতের ব্যাঙ্গালুরুতে শীর্ষ পর্যায়ের স্পর্শ বেসরকারি অর্থপেডিক হাসপাতালে দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় চিকিৎসা শেষে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বেসরকারি বিমান জেট এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে দেশে ফিরেছেন বাংলাদেশ জাতীয় নারী ক্রিকেট দলের খেলোয়াড় চামেলী খাতুন। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বেসরকারি বিমান নভোএয়ারের একটি ফ্লাইটে রাজশাহী হযরত শাহমখদুম বিমানবন্দরে পৌঁছান।

ফেরেন রাজশাহী মহানগরীর দরগাপাড়া এলাকার নিজ বাড়িতে।

 

তিন মাস পর আবার তাকে চেকআপের জন্য যেতে হবে ভারতে। আর এ সবই সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সার্বিক সহযোগিতায়। প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত চিকিৎসার ব্যয়ের পাঁচ লাখ টাকাও দেওয়া হয়েছে তাকে। জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে বুধবার সকালে বিষয়টি জানানো হয়েছে বলে জানান এই অলরাউন্ডার।

চামেলী জানান, আগের তুলনায় অনেকটা সুস্থবোধ করছেন এখন। তবে দীর্ঘ এই জার্নির কারণে পা কিছুটা ফুলেছে। তবে তা সেরে যাবে। চিকিৎসকের পরামর্শে ধীরে ধীরে চলাফেরার চেষ্টাও করছেন।

 

 

ভারতের ব্যাঙ্গালুরুর স্পর্শ অর্থপেডিক হাসপাতালে চামেলীর ডান পায়ের লিগামেন্টের অস্ত্রোপচার হয় গত মাসের ২৬ নভেম্বর। দুদিন হাসপাতালে অবজারভেশেনে থাকার পর ড্রেসিংসহ অন্যান্য চিকিৎসার জন্য ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত থাকতে হয় তাকে। ৮ ডিসেম্বর ওই হাসপাতালে সেলাই কাটার কথা থাকলেও অপারেশন স্থানের সার্বিক বিবেচনা করে আগামী ২২ ডিসেম্বর সেলাই কাটার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে তাকে। স্থানীয় হাসপাতালেই তা কাটা হবে।  

 

 

স্পর্শ হাসপাতালের অর্থপেডিকের ডা. প্রশান্ত তেজওয়ানির বরাত দিয়ে তিনি জানান,  পায়ের পরিস্থিতি উন্নতির দিকে রয়েছে। পুরোপুরি সেরে উঠতে আরও এক বছর সময় লাগবে। বর্তমানে স্ট্রেচারে ভর দিয়ে অন্য সদস্যের সাহায্য নিয়ে চলাফেরা করতে হবে। এভাবে চলবে ছয় মাস। তারপর স্বাভাবিকভাবে পা ফেলতে পারবেন। এ সময়ের মধ্যে তাকে নিয়মিত ওষুধ সেবন করতে হবে এবং কিছু ফিজিওথেরাপি নিতে হবে। আগামী বছরের মার্চে আবারো তাকে যেতে হবে ভারতের ওই হাসপাতালে চেকআপের জন্য। এই তিন মাসের সার্বিক চিকিৎসার সবকিছু বুঝিয়ে দিয়েছেন পদ্মা পাড়ের এই মেয়েকে। এক বছর পর মাঠে ফিরতে পারবেন তিনি।

 


Top