ভারতে ৫ রাজ্যে চলছে ভোটের লড়াই | daily-sun.com

ভারতে ৫ রাজ্যে চলছে ভোটের লড়াই

ডেইলি সান অনলাইন     ১১ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১২:৪৯ টাprinter

ভারতে ৫ রাজ্যে চলছে ভোটের লড়াই

 

দেখে নেওয়া যাক ভারতে পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনে কোন রাজনৈতিক দল এখন পর্যন্ত এগিয়ে।   রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড়, তেলেঙ্গানা ও মিজোরামের বিধানসভা ভোটের ফলাফল কোন দিকে এগুচ্ছে।

 

রাজস্থানে প্রত্যাশা মতোই এগিয়ে রয়েছে কংগ্রেস। ২০০ আসনের বিধানসভায় তারা ইতিমধ্যেই ম্যাজিক ফিগার ১০১ ছুঁয়ে ফেলেছে। বিজেপির স্বর্গ রাজ্যে সরকার যে বিদায় নিচ্ছে ,তা বোঝাই যাচ্ছে।  

এখানে বিজেপি তেমন ভাল কিছু করার আশাও করেনি। বসুন্ধরার সঙ্গে অমিত শাহ-নরেন্দ্র মোদীর সম্পর্ক যে ভাল নয়, তা সকলেরই জানা।  

 

মধ্যপ্রদেশে জোর টক্কর চলছে কংগ্রেস ও বিজেপির মধ্যে। ২৩০ আসনের বিধানসভায় সকাল ১১টা পর্যন্ত ১১৪টি আসন পেয়েছে কংগ্রেস। বিজেপি পেয়েছে ১০৪টি আসন। এই সংখ্যা বদলাচ্ছে দ্রুত।

তবে ফলাফল যাই হোক না কেন, কৃষক ও পিছিয়ে পড়া জাতির ভোট যে বিজেপির পক্ষে যায়নি, তা বোঝাই যাচ্ছে এই ফলে।

 

ছত্তিশগড়ে বিজেপির রমন সিংহের সরকারের বিদায় মোটামুটি আসন্ন। ৯০ আসনের বিধানসভায় কংগ্রেস প্রায় ৬০টি আসনে এগিয়ে। বিজেপি পিছিয়ে অনেকটাই।

এখানে কংগ্রেসের কোনও বড় মুখ না থাকলেও এই ফলাফল বিজেপির জন্য বিপদের ইঙ্গিত। পিছিয়ে পড়া জাতির ভোট যে বিজেপির ঝুলিতে যায়নি তা স্পষ্ট। কারণ এই রাজ্যে রয়েছে আদিবাসী ও দলিতদের একটি বড় অংশ।

 

তেলেঙ্গানায় কংগ্রেস ও তেলুগু দেশম পার্টির জোট আটকাতে পারেনি বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের বিজয়রথ। তাঁর তেলেঙ্গানা রাষ্ট্রীয় সমিতি ১১৯টির মধ্যে ৮৪টি আসনে এগিয়ে রয়েছে।   জোট ছাড়া বিজেপিও যে শূন্য এই ধরনের রাজ্যে, তাও পরিষ্কার। চন্দ্রশেখর রাও লোকসভা নির্বাচনে কোন দিকে যান, তা দেখার জন্য রাজনৈতিক মহল অপেক্ষা করবে।

 

মিজোরামে ৪০টি আসনের মধ্যে কংগ্রেস মাত্র ৭টি ও মিজো ন্যাশনাল ফ্রন্ট ২৮টি আসন পেয়েছে। এখানে বিজেপি মাত্র ২টি আসন পেয়েছে। এই রাজ্য যে কংগ্রেসের হাতছাড়া হচ্ছে তা হলফ করে বলাই যায়।  

অন্যান্য উত্তর-পূর্বের রাজ্যের মতো এখানে বিজেপি বিশেষ সুবিধা করতে পারেনি। এই রাজ্যে খ্রিস্টান ভোটারদের সংখ্যাধিক্য রয়েছে। সেখানে বিজেপির হিন্দুত্বের রাজনীতি বিশেষ কাজে লাগেনি।

 

পুরো ফলাফল প্রকাশ পেলে বোঝা যাবে এই ধাক্কার মোকাবিলা কীভাবে করবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই ফল কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে যথেষ্ট অক্সিজেন দিলেও, সব বিরোধী দলগুলি তাঁর নেতৃত্ব মেনে নেবে কি না, তাও এখনও পরিষ্কার নয়।

 


Top