ধানের শীষ প্রতীক পেলেন রেজা কিবরিয়া | daily-sun.com

ধানের শীষ প্রতীক পেলেন রেজা কিবরিয়া

ডেইলি সান অনলাইন     ১০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৩:৩৯ টাprinter

ধানের শীষ প্রতীক পেলেন রেজা কিবরিয়া

 

হবিগঞ্জ-১ (নবীগঞ্জ-বাহুবল) আসনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে ধানের শীষ প্রতীক পেয়েছেন আওয়ামী লীগ দলীয় সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়ার ছেলে অর্থনীতিবিদ ড. রেজা কিবরিয়া। সোমবার (১০ ডিসেম্বর) জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এ প্রতীক বরাদ্দ দেন।


প্রতীক পাওয়ার পর প্রতিক্রিয়ায় ড. রেজা কিবরিয়া বলেন, বাংলাদেশে আমাদের সবার একটি ডিসিপ্লিন এক্সেপ্ট করতে হবে। দেশবাসীর সামনে একটি কঠিন পরীক্ষা। আমি মনে করি-বাংলাদেশের মানুষ এ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবে। আমরা ইনশাআল্লাহ জয়ী হব।


তিনি বলেন, নবীগঞ্জ-বাহুবলের সঙ্গে আমার রক্তের সম্পর্ক। অনেকেই লন্ডনে থাকে, কিন্তু তার রক্তের সম্পর্ক ছিন্ন হয় না। নবীগঞ্জ-বাহুবলের সঙ্গে আমারও সম্পর্ক আছে। আমি এলাকার মানুষের জন্য যা করতে চাই, তা কাজ করে আমাকে প্রমাণ করতে হবে। জনগণ এবং আল্লাহ সঙ্গে থাকলে কোনো শক্তি নেই আমাকে পরাজিত করবে।

জয়ের ব্যাপারে আমি অনেক আশাবাদী।


নবীগঞ্জে আমার দাদার বাড়ি হলেও বাহুবলে আমার দাদির বাড়ি। কাজেই এখানে আমার প্রচুর আত্মীয়স্বজন আছে। এ দুই উপজেলার মানুষই আমার রক্তের সম্পর্কের।

 


এর আগে ২ ডিসেম্বর সিটি ব্যাংক ক্রেডিট কার্ড ডিভিশন এবং ঢাকা ব্যাংক থেকে পরিপ্রেরিত অভিযোগের ভিত্তিতে হবিগঞ্জের রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবীর মুরাদ তার মনোনয়নপত্র বাতিল করেন।


পরে রিটার্নিং কর্মকর্তার ওই সিদ্ধান্তের বিপক্ষে নির্বাচন কমিশনে আপিল করে গত ৭ ডিসেম্বর হবিগঞ্জ-১ (বাহুবল-নবীগঞ্জ) আসনে প্রার্থীতা ফিরে পান রেজা কিবরিয়া।


১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত  আওয়ামী লীগ সরকারের অর্থমন্ত্রী শাহ আ স ম কিবরিয়ার ছেলে রেজা কিবরিয়ার এবার গণফোরামের হয়ে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।


উল্লেখ্য, ৮ নভেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। ওই তফসিল অনুযায়ী, ২৩ ডিসেম্বর ভোটের দিন নির্ধারিত হয়। পরে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের আবেদনের ভিত্তিতে ২৩ ডিসেম্বরের পরিবর্তে এক সপ্তাহ পিছিয়ে ৩০ ডিসেম্বর ভোটের তারিখ নির্ধারণ করা হয়। পুনঃতফসিল অনুযায়ী প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমার শেষ তারিখ ২৮ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাই ২ ডিসেম্বর, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৯ ডিসেম্বর এবং ভোট গ্রহণ ৩০ ডিসেম্বর নির্ধারণ করা হয়।


আজ প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ চলছে। প্রতীক বরাদ্দ হলেই প্রচার উৎসবে নামতে পারবেন প্রার্থীরা। প্রচারের সময় যাতে আচরণ বিধিমালা লঙ্ঘন না হয়, সে জন্য নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশনা দিয়েছে ইসি।

 


Top