ক্রিকেটই এই সুধীরের ধ্যান জ্ঞান, এজন্য ছেড়েছেন পরিবার | daily-sun.com

ক্রিকেটই এই সুধীরের ধ্যান জ্ঞান, এজন্য ছেড়েছেন পরিবার

ডেইলি সান অনলাইন     ১৬ নভেম্বর, ২০১৮ ২০:১০ টাprinter

ক্রিকেটই এই সুধীরের ধ্যান জ্ঞান, এজন্য ছেড়েছেন পরিবার

সচিন তেন্ডুলকরের শ্রেষ্ঠ ভক্ত তিনি। টিম ইন্ডিয়ার তুমুল সমর্থকদের ‘মুখ’ তিনি।

সুধীর গৌতম। বিদায়ী টেস্টে সচিনের শেষ বার ব্যাট হাতে ক্রিজ ছাড়ার মুহূর্তে ক্যামেরায় ধরা তাঁর ক্লোজ আপ মুখ অনেকেরই মনে আছে।

 

বিষণ্ণ সুধীরের মুখই যেন মহানায়কের প্রস্থানে ভেঙে পড়া গোটা দেশের প্রতীকী ছবি হয়ে উঠেছিল। এ ভাবেই দীর্ঘ সময় ধরে ভারতের খেলা থাকলে বুকে ‘তেন্ডুলকর’ লিখে শাঁখে ফুঁ দেওয়া হোক বা তেরঙা নাড়ানো— ভারতের সমর্থক হিসেবে তাঁর চেহারাটাই যেন সকলের মনে জমে আছে। ভারতীয় দল যেখানেই যায়, তিনিও সেখানেই যান। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেটারদের সঙ্গে যাঁর এমন মধুর সম্পর্ক, পরিবারের সঙ্গে ঠিক তার উলটো।  

 

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে তেমনটাই জানা যাচ্ছে। ওই প্রতিবেদনের দাবি, পরিবারের সঙ্গে সুধীরের কোনও যোগাযোগই নেই। সারাক্ষণ পাওয়ার ব্যাঙ্ক সঙ্গে রাখা সুধীরের মোবাইল কখনোই বন্ধ থাকে না।

তবুও বাড়িতে ফোন করেন না তিনি। এমনকী, তাঁর এক মাত্র বোনের ফোনও তোলেন না তিনি। বৃদ্ধ বাবা-মার প্রতিও কোনও টান নেই তাঁর। পরিবারের থেকে অনেক দূরে চলে গিয়েছেন তিনি।

 

বিহারের মজঃফরপুরের এক আধা-মফস‌্সলে জন্ম তাঁর। তিন-তিনটে চাকরি ছেড়ে দিয়েছেন। বিয়েও পিছিয়ে দিয়েছিলেন ভারতের খেলা দেখবেন বলে। কেবল ভারতীয় দলের সঙ্গে থাকবেন বলে সব কিছু ত্যাগ করেছেন।

 

আজ তিনি সুপার ফ্যান। গোটা দেশ তো বটেই, ক্রিকেট দুনিয়ার প্রায় সবাই চেনে তাঁকে। কিন্তু ক্রিকেট দলের গলা ফাটানো সুধীরের তাঁর পরিবারের প্রতি এহেন আচরণ খেলা পাগল হওয়া নিশ্চয়ই অপরাধ নয়। কিন্তু তাঁর জন্য ব্যক্তিগত জীবনকে একেবারে নস্যাৎ করে দেওয়াটা সত্যিই মেনে নেওয়া কঠিন। মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিখ্যাত লাইনকে ঘুরিয়ে প্রশ্ন করাই যায়— ‘ক্রিকেট, ক্রিকেট! তোমার পরিবার নাই সুধীর?’ 

 


Top