দুর্ঘটনায় মারা গেলেন আরেক তাজমহলের কারিগর! | daily-sun.com

দুর্ঘটনায় মারা গেলেন আরেক তাজমহলের কারিগর!

ডেইলি সান অনলাইন     ১০ নভেম্বর, ২০১৮ ১৬:২২ টাprinter

দুর্ঘটনায় মারা গেলেন আরেক তাজমহলের কারিগর!

ভারতের উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহর জেলার কাসের কালাম গ্রামে থাকতেন ৮৩ বছর বয়সী ফয়জল হাসান কাদরি।   পেশায় ছিলেন পোস্টমাস্টার।

  স্ত্রীর মৃত্যুর পরে তাঁর সম্মানে সরকারকে দান করেছিলেন চার বিঘা জমি।   সেখানে গড়ে উঠেছে মেয়েদের স্কুল।   তার পাশেই স্ত্রীর স্মৃতিতে বানাচ্ছিলেন তাজমহল। কারও থেকে একটি পয়সাও সাহায্য নেননি।   নিজের পেনশনের টাকায় একটু একটু করে গড়ে তুলছিলেন তাজমহলের মিনিয়েচার।   কিন্তু কাজ শেষ হওয়ার আগেই বৃহস্পতিবার রাতে দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে তাঁর।  

 

কাদরির স্ত্রীর নাম ছিল তাজামুল্লি বেগম। ১৯৫১ সালে তাঁদের বিয়ে হয়। তাজমুল্লি বেগম ২০১১ সালে ক্যানসারে মারা যান।

নিজের জমিতে তাঁকে সমাহিত করেন কাদরি।   সমাধির ওপরে তৈরি করেন তাজমহলের মতো একটি কাঠামো। তা আয়তনে অবশ্য আসল তাজমহলের চেয়ে অনেক ছোট।   তার খরচ জোগানোর জন্য স্ত্রীর গয়নাগাটিও বেচে দিয়েছিলেন । চাষের জমিও বেচেছেন । খরচ বাঁচাতে নিজে রাজমিস্ত্রিদের সঙ্গে হাত লাগাতেন। তাজমহলের চারপাশে যত্ন নিয়ে বসিয়েছিলেন গাছ । কাছে একটি জলাশয় তৈরি করারও ইচ্ছা ছিল ।

 

২০১৪ সালে তাঁর সঞ্চিত অর্থ শেষ হয়ে যায়। । তিনি প্রতিজ্ঞা করেন, অবসরভাতা থেকে টাকা বাঁচিয়ে তাজমহল নির্মাণ শেষ করবেন।

২০১৫ সালে তাঁকে ডেকে পাঠান রাজ্যের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ সিং যাদব। তিনি বলেন, আপনার তাজমহলের জন্য আমি অর্থসাহায্য করতে পারি। বৃদ্ধ বিনীতভাবে তাঁর প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন।   আরও অনেকেই সাহায্য করতে চেয়েছিলেন। কাদরি সকলকে ফিরিয়ে দিয়েছেন।

 

তার পরে অনেক দিন ধরে দুলক্ষ টাকা জমিয়েছিলেন কাদরি।   কথা ছিল, জয়পুর থেকে মার্বেল পাথর কিনে আনবেন। তাজমহলের গায়ে সেই পাথর সেট করলে তবেই আসলের মতো লাগবে।

তাঁর বাড়ির লোক জানিয়েছেন, বছর দুয়েক আগে সাইকেল থেকে পড়ে গিয়ে পায়ে চোট পান কাদরি । তারপর থেকে হাঁটার সময় ওয়াকার ব্যবহার করতেন । বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০ টা নাগাদ তিনি বাড়ির বাইরে বেরিয়েছিলেন। এমন সময় একটি গাড়ি তাঁকে ধাক্কা মেরে পালিয়ে যায় ।

 

কাদরির ভাইপো আসলাম বলেন, তিনি আহত অবস্থায় পড়েছিলেন দীর্ঘক্ষণ । আমরা রাত একটা নাগাদ খবর পাই । তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় । শুক্রবার বেলা ১১ টা নাগাদ তাঁর মৃত্যু হয়

 

আসলাম জানিয়েছেন, কাদরিকে তাঁর স্ত্রীর পাশেই সমাহিত করা হবে । তারপর আমি মিনি তাজমহল শেষ করার উদ্যোগ নেব । তিনি নির্মাণ শেষ করে যেতে পারলেন না । মার্বেল না কিনতে পারলে নির্মাণ সম্পূর্ণও হবে না ।


Top