‘ওরে নীল দরিয়া’ দর্শক জরিপে সেরা বাংলা গান হিসেবে নির্বাচিত | daily-sun.com

‘ওরে নীল দরিয়া’ দর্শক জরিপে সেরা বাংলা গান হিসেবে নির্বাচিত

ফয়সাল তালুকদার     ৮ নভেম্বর, ২০১৮ ১৭:৪৩ টাprinter

‘ওরে নীল দরিয়া’ দর্শক জরিপে সেরা বাংলা  গান হিসেবে নির্বাচিত

পঞ্চকবি পরবর্তী বিশ শতকের ৪০ থেকে ৭০ দশক সময়কালকে বাংলা নাগরিক গানের স্বর্ণযুগ বলা হয়। এই স্বর্ণযুগের বাছাই করা কিছু গান সঠিক তথ্য ও অবিকৃত সুরে নবীন ও প্রবীণ উভয় প্রজন্মের কাছে নতুন করে উপস্থাপনা এবং স্বর্ণযুগের সেরা গান বাছাইয়ের লক্ষ্যে “দর্শক জরিপে স্বর্ণযুগের সেরা বাংলা নাগরিক গানের সন্ধানে” শিরোনাম নিয়ে আরটিভির সংগীত বিষয়ক অনুষ্ঠান ‘এই রাত তোমার আমার’ প্রচার করা হয়।

 

 

প্রথম পর্বে ৪০ দশকের ৪০টি, ৫০ দশকের ৬০টি, ৬০ ও ৭০ দশকের ১০০টি করে মোট ৩০০ টি গান প্রচারিত হয় দেশের প্রতিষ্ঠিত ও প্রতিশ্রুতিশীল বিভিন্ন শিল্পীর কণ্ঠে। এরপর ২য় পর্বে দর্শকদের এসএমএস থেকে প্রাপ্ত প্রতিটি দশকের ১০টি করে মোট ৪০টি গান প্রচারিত হয়।

 

 

এরপর গত ২৭ অক্টোবর আরটিভির বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়া স্টুডিওতে আয়োজন করা হয় স্বর্ণযুগের সেরা ১০টি গান নিয়ে গ্র্যান্ড ফিনালে। এতে সংগীত পরিবেশন করেন শিল্পী ফাহিম হোসেন চৌধুরী, খায়রুল আনাম শাকিল, মৌটুসী, আতিক হাসান, প্রিয়াংকা গোপ, সাব্বির জামান, সমরজিৎ রায়, নন্দিতা, হৈমন্তী রক্ষিত ও বিজন চন্দ্র মিস্ত্রী। পরে দর্শকদের এসএমএস’র ভিত্তিতে চূড়ান্ত ভাবে নির্বাচিত করা হয় ১০ টি গান।  এছাড়া সর্বোচ্চ এসএমএস প্রেরণকারীদের মধ্য থেকে তিনজনকে পুরস্কৃত করা হয়।

 

গানগুলো হলো: ১. ওরে নীল দরিয়া (গীতিকার: মুকুল চৌধুরী, সুরকার: আলম খান, প্রথম শিল্পী: আব্দুল জব্বার)। ২. একি সোনার আলোয় (গীতিকার: খান আতাউর রহমান, সুরকার: খান আতাউর রহমান, প্রথম শিল্পী: সাবিনা ইয়াসমিন)। ৩. আমার স্বপ্নে দেখা রাজকন্যা (গীতিকার: গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার, সুরকার: রবীন চট্টোপাধ্যায়, প্রথম শিল্পী: শ্যামল মিত্র)।

৪. দুঃখ আমার বাসর রাতের পালংক (গীতিকার: মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান, সুরকার: সত্য সাহা, প্রথম শিল্পী: সাবিনা ইয়াসমিন)। ৫. আমি বনফুল গো (গীতিকার: প্রণব রায়, সুরকার: কমল দাশগুপ্ত, প্রথম শিল্পী: কানন দেবী)। ৬. কতদিন দেখিনি তোমায় (গীতিকার: প্রণব রায়, সুরকার: কমল দাশগুপ্ত, প্রথম শিল্পী: কমল দাশগুপ্ত)। ৭. তোমারে লেগেছে এত যে ভাল (গীতিকার: কে জি মোস্তফা, সুরকার: রবীন ঘোষ, প্রথম শিল্পী: তালাত মাহমুদ)। ৮. এনেছি আমার শত জনমের প্রেম (গীতিকার: মোহিনী চৌধুরী, সুরকার: শৈলেশ দত্তগুপ্ত, প্রথম শিল্পী: গৌরীকেদার ভট্টাচার্য)। ৯. মধুমালতি ডাকে আয় (গীতিকার: প্রণব রায়, সুরকার: রবীন চট্টোপাধ্যায়, প্রথম শিল্পী: সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়)। ১০. মুছে যাওয়া দিনগুলি (গীতিকার: গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার, সুরকার: হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, প্রথম শিল্পী: হেমন্ত মুখোপাধ্যায়)।

 

এই অনুষ্ঠানে অতিথি হিাসবে  উপস্থিত ছিলেন  চিত্রনায়ক ফারুক, সংগীত ব্যক্তিত্ব আজাদ রহমান, আলম খান, শেখ সাদী খান, গীতিকার কেজি মোস্তফা, গাজী মাজহারুল আনোয়ার, সংগীতশিল্পী মিতালী মুখার্জী, ফাতেমা তুজ জোহরা, সাদিয়া আফরিন মল্লিক প্রমুখ।

 

ধারনকৃত অনুষ্ঠানটি গত ৩০ অক্টোবর আরটিভিতে প্রচারিত হয়। আগামীকাল শুক্রবার (৯ নভেম্বর) বিকাল ৫.৩০ মিনিটে অনুষ্ঠানটি পুনঃপ্রচারিত করা হবে।

 

এই অনুষ্ঠানে প্রচারিত মোট ৩০০ গানের ভিডিও চিত্র পাওয়া যাবে ফেইজবুকের এই লিংকের মাধ্যমে।

 

https://www.facebook.com/eiraattomar/

 

 

 


Top