১০০০ তরুণীর সতীত্ব লুণ্ঠন করেছিলেন এই যোগব্যায়াম গুরু | daily-sun.com

১০০০ তরুণীর সতীত্ব লুণ্ঠন করেছিলেন এই যোগব্যায়াম গুরু

ডেইলি সান অনলাইন     ৭ নভেম্বর, ২০১৮ ১৬:৩০ টাprinter

১০০০ তরুণীর সতীত্ব লুণ্ঠন করেছিলেন এই যোগব্যায়াম গুরু

১০০০ তরুণীর সতীত্ব লুণ্ঠনকারী রোমানিয়ার যোগব্যায়াম গুরু, তার নাম গ্রেগরিয়ান বিভোলারু (৬৪)। পরে তিনি প্যারিসে পুলিশের হাতে ধরা পড়েন।

তার বিরুদ্ধে ৬ বছরের কারাদণ্ডাদেশ রয়েছে।  

জানা গেছে, সবশেষ তিনি ১৫ বছর বয়সী বালিকা অ্যাগনেস আরাবেলা মারকুইসের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেছিলেন।  

অভিযুক্ত বিভোলারু একটি যোগব্যায়াম স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ছিলেন। সেখানে হাজার হাজার মানুষের সমাগম হতো। তার মধ্যে ছিল ১৫ বছর বয়সী ওই বালিকাও। তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কের খবর প্রকাশিত হলে লোকজন তার আস্তানায় হামলা চালায়।


অভিযোগ করা হয়, সেখানে মাত্রা অতিক্রম করে যৌন সম্পর্ক গড়ে তোলা হয়। গ্রেগরিয়ান বিভোলারু রোমানিয়ার যোগগুরু। অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়েদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কের অভিযোগে ২০০৪ সাল থেকে তিনি ছিলেন পুলিশের তালিকায় ওয়ারেন্টেড আসামি।


অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়েদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক ও তাদের কুমারিত্ব লুণ্ঠনের দায়ে দেশটির আদালত ২০১৩ সালে তাকে ৬ বছরের কারাদণ্ড দেন। এরপর থেকেই বিভোলারু ছিলেন পলাতক। কিন্তু পরে প্যারিসে তিনি পুলিশের হাতে ধরা পড়েন। আর তাই পুরনো হলেও এ ঘটনাটি উঠে আসে বৃটিশ মিডিয়ায়।



খবরে বলা হয়েছে, ওই যোগগুরু নিজেই দাবি করেছে যে, সে ১০০০ কুমারি মেয়ের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়েছেন। ২০০৪ সালে যখন অপ্রাপ্ত বয়স্ক ওই বালিকার সঙ্গে তার শারীরিক সম্পর্কের খবর প্রকাশিত হয়। তখন তার বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে রোমানিয়া। এক পর্যায়ে তাকে আটক করে সুইডেন। কিন্তু তাকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেয় ওই দেশটি। সেখানে তিনি ম্যাগনাস অরোলসন নাম ধারণ করে।

 
তবে বিভোলারুকে যে অ্যাগনেস আরাবেলা মারকুইসের মামলায় জেল দেয়া হয়েছে সেই অ্যাগনেস এখন বাস করছেন পর্তুগালে।

উল্লেখ্য, ১৯৯০ এর দশকে মুভমেন্ট ফর স্পিরিচুয়াল ইন্টিগ্রেটশন ইন অ্যাবসলিউট নামে যোগব্যায়ামের প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন বিভোলারু। মাত্র ১৭ বছর বয়সে তিনি শুরু করেন যোগব্যায়াম চর্চা। অল্প সময়ের মধ্যে এ খাতে বেশ নাম করে ফেলেন।

 
ফলে ভক্তরা দলে দলে তার কাছে যাওয়া শুরু করে। এ সুযোগ ব্যবহার করে বিভোলারু। তিনি বেছে বেছে কুমারি মেয়েদের দিকে নজর দেন। তাদেরকে শারীরিক সম্পর্কের বিনিময়ে দিব্যশক্তি দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়। আর সহজে তার এ প্রতারণার ফাঁদে পা দেয় কুমারিরা।  


Top