ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় মইনুলকে গ্রেফতার দেখানো হলো | daily-sun.com

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় মইনুলকে গ্রেফতার দেখানো হলো

ডেইলি সান অনলাইন     ১ নভেম্বর, ২০১৮ ১৪:১৪ টাprinter

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় মইনুলকে গ্রেফতার দেখানো হলো

 

বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের টকশোতে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে কটূক্তির অভিযোগে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় গ্রেফতার দেখানোর (শোন অ্যারেস্ট) আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (১ নভেম্বর) ঢাকা মহানগর হাকিম (এসিএএম) আসাদুজ্জামান নূর এ আবেদন মঞ্জুর করেন।


রাজধানীর গুলশান থানার উপ-পরিদর্শক ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জিয়াউল ইসলাম ডিজিটাল আইনে করা মামলায় মইনুলকে গ্রেফতার দেখানোর আবেদন করেন। আদালতে শুনানির জন্য আজ বৃহস্পতিবার (১ নভেম্বর) দিন ধার্য ছিল।


এর আগে ২৪ অক্টোবর ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আস সামশ জগলুল হোসেনের আদালতে মইনুলের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে এ মামলাটি করেন আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া উপ-কমিটির সদস্য সুমনা আক্তার লিলি। আদালত মামলাটি এজাহার হিসাবে গণ্য করার জন্য গুলশান থানাকে নির্দেশ দেন। ২৬ অক্টোবর গুলশান থানা মামলাটি এজাহার হিসাবে গণ্য করেন। ২৭ অক্টোবর ঢাকা মহানগর হাকিম আদালত এজাহারটি গ্রহণ করেন।


সুমনা আক্তার মামলার অভিযোগে বলেন, আমি বিভিন্ন সামাজিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত। নারী ও শিশুদের মানবাধিকার রক্ষায় কাজ করছি। গত ১৬ অক্টোবর নিজ বাসায় ৭১ টেলিভিশনের টকশো দেখছিলাম।

অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে মাসুদা ভাট্টির প্রশ্নের জবাবে আইনজীবী মইনুল তাকে ‘চরিত্রহীন’ বলে মন্তব্য করেন।


মইনুল হোসেন এ মন্তব্য নারী জাতির সম্মানহানি ঘটিয়েছে। অথচ তিনি ক্ষমা চাননি। বরং গত ২১ অক্টোবর বিকেলে ৩টা থেকে ২২ অক্টোবর রাত ৯টার মধ্যে পুনরায় একটি টেলিফোন অডিও রেকর্ড ডিজিটাল ডিভাইসে প্রকাশ করেন। মইনুল হোসেন নিজে অডিও রেকর্ডটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন।


মইনুল হোসেন ইংরেজি দৈনিক নিউ নেশন পত্রিকার প্যাডে প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে মাসুদা ভাট্টি সম্পর্কিত বিতর্কিত ব্যাখ্যার আড়ালে পুনরায় ফেসবুকে মাসুদা ভাট্টির ব্যক্তিগত চরিত্র জঘন্য বলে মন্তব্য করেছেন।


এর আগে গত ২৫ অক্টোবর গ্রেফতারের মূল নথি রংপুরে না পৌঁছায় মইনুলের জামিন শুনানি স্থগিত করেছেন অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক আরিফা ইয়াসমিন মুক্তা। ওই দিন  বিকেল পৌনে ৪টার দিকে নথি প্রাপ্তি সাপেক্ষে পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করার আদেশ দেন আদালত।    


এ সময় জামিনের বিরোধিতা করে বাদীপক্ষের আইনজীবীরা আদালতে আবেদন জানান। এজলাস থেকে বেরিয়ে বাদীপক্ষের আইনজীবী জাহাঙ্গীর আলম তুহিন বলেন, তাকে (ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন) গ্রেফতারের মূল নথি আদালতে উপস্থিত না করায় আমরা জামিনের বিরোধিতা করেছি। আদালত নথি প্রাপ্তি সাপেক্ষে পরবর্তীতে শুনানির দিন ধার্য করার আদেশ দিয়েছেন।


অপরদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবী আব্দুল হাদী বেলাল সাংবাদিকদের বলেন, রাজনৈতিকভাবে হয়রানি করার উদ্দেশ্যে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জামিনযোগ্য ধারায় ছায়া নথি ছাড়াই তার জামিন পাওয়ার অধিকার আছে। আমরা এ আদেশের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আবেদন জানাবো।


এর আগে দুপুর ১টার দিকে রংপুরের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের ব্যক্তিগত আইনজীবী মনিরুল ইসলাম ও তুহিন হাওলাদার তার জামিন আবেদন করেন।


এর আগে গত ২৩ অক্টোবর ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালত ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। কারাগারে তাকে সাধারণ বন্দী হিসেবে রাখা হয়েছে।


এর আগে গত ২২ অক্টোবর রাজধানীর উত্তরায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল -জেএসডি নেতা আ স ম আবদুর রবের বাসা থেকে ব্যারিস্টার মইনুলকে গ্রেফতার করে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) একটি দল। আটকের পরপরই তাকে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।


ওই দিন ডিবি পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম জানান, ব্যারিস্টার মইনুলকে রংপুরে করা মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে।


উল্লেখ্য, গত ১৬ অক্টোবর একাত্তর টেলিভিশনের একটি আলোচনায় অংশ নেন দৈনিক আমাদের অর্থনীতির নির্বাহী সম্পাদক মাসুদা ভাট্টি ও বিএনপি নেতা সাখাওয়াত হোসেন সায়ন্ত। এ সময় উপস্থাপক মিথিলা ফারজানা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে যুক্ত করার পর মাসুদা ভাট্টি তাকে প্রশ্ন করেন, ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে আপনি যে হিসেবে উপস্থিত থাকেন- আপনি বলেছেন আপনি নাগরিক হিসেবে উপস্থিত থাকেন। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই বলছেন, আপনি জামায়াতের প্রতিনিধি হয়ে সেখানে উপস্থিত থাকেন। ’


মাসুদা ভাট্টির এই প্রশ্নে রেগে গিয়ে মইনুল হোসেন বলেন, ‘আপনার দুঃসাহসের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ দিচ্ছি। আপনি চরিত্রহীন বলে আমি মনে করতে চাই। আমার সঙ্গে জামায়াতের কানেকশনের কোনো প্রশ্নই নেই। আপনি যে প্রশ্ন করেছেন তা আমার জন্য অত্যন্ত বিব্রতকর। ’


এ ঘটনায় ২১ অক্টোবর ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে মাসুদা ভাট্টি এবং জামালপুর আদালতে যুব মহিলা লীগের জামালপুর শাখার আহ্বায়ক ফারজানা ইয়াসমীন লিটা ২০ হাজার কোটি টাকার মানহানির অভিযোগে মামলা করেন। এ মামলায় আদালত পৃথকভাবে মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।


এই আদেশের পর ওই দিনই হাইকোর্টে হাজির হয়ে জামিন নেন মইনুল হোসেন। পরে সেই জামিন স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করে। এদিকে মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন স্থানে আরো কয়েকটি মামলা হয়েছে। এর মধ্যে গত ২২ অক্টোবর রংপুরের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মানবাধিকারকর্মী মিলি মায়ার দায়ের করা ১০ কোটি টাকার মানহানি মামলায় ওইদিন রাতেই ঢাকায় গ্রেফতার হন ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন।

 

আরও পড়ুন (প্রসঙ্গ ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন):

 

কারাগারে প্রথম শ্রেণির ডিভিশন পেলেন মইনুল হোসেন

 

মইনুলকে প্রথম শ্রেণির ডিভিশন দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ

 

মইনুলের বিরুদ্ধে এবার যশোরে মামলা, গ্রেফতারি পরোয়ানা

 

গ্রেফতারের মূল নথি রংপুরে না পৌঁছায় মইনুলের জামিন শুনানি স্থগিত

 

কিশোরগঞ্জে মইনুলের বিরুদ্ধে মামলা, সমন জারি

 

জাফরুল্লাহ-মইনুলের জামিনের বিরুদ্ধে আপিল শুনানি সোমবার

 

মইনুল-জাফরুল্লাহর ফোনালাপ ফাঁস (অডিও)

 

তারেকের নেতৃত্ব ধ্বংস করার জন্যই ড. কামালকে আনা হয়েছে: ফোনালাপে মইনুল

 

মানহানির মামলায় মইনুলের জামিন নামঞ্জুর, কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ

 

মইনুলের বিরুদ্ধে একের পর এক মামলা এবং গ্রেফতারের ঘটনা নিঃসন্দেহে আতঙ্কের: ড. কামাল

 

আমার চাওয়া প্রচলিত আইনে মইনুল হোসেনের বিচার হোক: মাসুদা ভাট্টি

 

যেভাবে গ্রেফতার হন ব্যারিস্টার মইনুল

 

রবের বাসা থেকে মইনুল হোসেনকে গ্রেপ্তার

 

ভোলায় মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে ৫০ কোটি টাকার মানহানি মামলা

 

এবার মাসুদা ভাট্টির বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করবেন মইনুল হোসেন

 

এবার মইনুলের বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মামলা

 

তস‌লিমার সমা‌লোচনার জবা‌বে যা বল‌লেন মাসুদা ভা‌ট্টি

 

পৃথক দু’টি মানহানির মামলায় ৫ মাসের জামিন পেলেন ব্যারিস্টার মইনুল

 

ঢাকায়ও ব্যারিস্টার মইনুলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

 

এবার মইনুলের বিরুদ্ধে মাসুদার মানহানি মামলা

 

ব্যারিস্টার মইনুলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা


ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন প্রকাশ্যে ক্ষমা না চাইলে আইনি ব্যবস্থা: নারী সাংবাদিক কেন্দ্র


মাসুদা ভাট্টির কাছে ক্ষমা প্রার্থনা ব্যারিস্টার মইনুলের

 

আরও পড়ুন (প্রসঙ্গ ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী):

 

মইনুল-জাফরুল্লাহর ফোনালাপ ফাঁস (অডিও)

 

জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় মাছ চুরির মামলা

 

চাঁদাবাজি ও জমি দখলের মামলায় ডা. জাফরুল্লাহর জামিন

 

এবার জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীর চুরির মামলা

 

জমি দখলের মামলায় জাফরুল্লাহর আগাম জামিন

 

হাইকোর্ট থেকে জামিন পেলেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী

 

জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ ও চাঁদাবাজির মামলা

 

জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে ক্যান্টনমেন্ট থানায় সেনা সদরের জিডি, তদন্তে ডিবি

 

সেনাপ্রধানকে নিয়ে মিথ্যা তথ্য দেয়ায় ডা. জাফরুল্লাহর দুঃখ প্রকাশ

 

সেনাপ্রধানকে নিয়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর মিথ্যা তথ্য, সেনা সদরের প্রতিবাদ

 

 


Top