‘গ’ ও ‘ক’-তে ফেল করা শিক্ষার্থী ‘ঘ’ ইউনিটে প্রথম! | daily-sun.com

‘গ’ ও ‘ক’-তে ফেল করা শিক্ষার্থী ‘ঘ’ ইউনিটে প্রথম!

ডেইলি সান অনলাইন     ১৭ অক্টোবর, ২০১৮ ১৫:৩৮ টাprinter

‘গ’ ও ‘ক’-তে ফেল করা শিক্ষার্থী ‘ঘ’ ইউনিটে প্রথম!

 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় রেকর্ড নম্বর পেয়ে প্রথম হওয়া শিক্ষার্থী জিহাদ হাসান আকাশ ও তাসনিম বিন আলম তাদের নিজস্ব শাখায় ফেল করেছিলেন। জানা গেছে জিহাদ নিজের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদভুক্ত ‘গ’ ইউনিট ও তাসনিম বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটে ফেল করেছিলেন।


গত শুক্রবার (১২ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ ওঠে। মঙ্গলবার (১৬ অক্টোবর) ওই ইউনিটের ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এতে ২৬.২১ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছেন।


জানা গেছে, ‘ঘ’ ইউনিটে ( ব্যবসা শাখায়) প্রথম হওয়া জিহাদ নিজের ব্যবসায় শাখায় ফেল করেছেন। ‘গ’ ইউনিটে তিনি পেয়েছেন ৩৪ দশমিক ৩২। বাংলায় পেয়েছিলেন ১০.৮ ইংরেজিতে পেয়েছিলেন ২.৪০, হিসাব বিজ্ঞানে ৫ দশমিক ২৮, ব্যবসায় নীতিতে ৬ দশমিক ৭২ এবং ফিন্যান্সে ৯ দশমিক ৮৪। অথচ এই শিক্ষার্থী ‘ঘ’ ইউনিটে ১২০ নম্বরের মধ্যে ১১৪ দশমিক ৩০ পেয়ে সম্মিলিত মেধা তালিকার ব্যবসা শাখায় প্রথম স্থান অধিকার করেছেন। যেখানে বাংলায় ৩০-এর মধ্যে ৩০, ইংরেজিতে ৩০-এর মধ্যে ২৭.৩০, সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলিতে ২৮ দশমিক ৩০ এবং আন্তর্জাতিকে ২৫ দশমিক ৫০।


তাসনিম বিন আলম ঢাবি ‘ঘ’ ইউনিটে (বিজ্ঞান শাখায়) প্রথম স্থান অধিকার করেছেন।

অথচ বিজ্ঞান শাখার ওই শিক্ষার্থী তার নিজের অনুষদ ‘ক’ ইউনিটের পরীক্ষায় ১২০ নম্বরের মধ্যে ৪৩.৭৫ পেয়ে ফেল করেছিলেন। সেই তিনিই ঢাবি ‘ঘ’ ইউনিটে ১২০ নম্বরের মধ্যে ১০৯.৫০ পেয়ে সম্মিলিত মেধা তালিকার বিজ্ঞান শাখায় প্রথম স্থান অধিকার করেছেন।

 


এ বিষয়ে ঢাবির সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও ‘ঘ’ ইউনিটের সমন্বয়কারী অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম বলেন, কেবল ফল প্রকাশ হয়েছে। ওই শিক্ষার্থীরা এলে তাদের বিষয়ে তদন্ত ও যাচাই শেষে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। প্রমাণ হলে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।


বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, কারও মেধা নিয়ে আমরা প্রশ্ন করতে পারি না। তবে কাউকে সন্দেহ হলে ডিন তাদের ব্যাপারে পুনরায় যাচাই করতে পারেন।


উল্লেখ্য, জিহাদ হাসান আকাশ রাজউক উত্তরা মডেল কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেছেন।

 

প্রসঙ্গত, গত ৮ অক্টোবর প্রকাশ করা হ‌য় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে চারুকলা অনুষদভুক্ত ‘চ’ ইউনিটের অধীনে ১ম বর্ষ বিএফএ সম্মান শ্রেণীতে ভর্তি পরীক্ষার ফল। ‘চ’ ইউ‌নি‌টের ১৩৫টি আসনের বিপরীতে অংকন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ১ হাজার ৩৮৩জন। এর মধ্যে ২৬৯ জন ভ‌র্তিচ্ছুক পাস ক‌রেছে। অর্থাৎ পাশের হার ১৯.৪৫ শতাংশ।


এর আগে গত ৩ অক্টোবর প্রকাশ করা হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষের ‘ক’ ইউনিটের অধীন প্রথম বর্ষ স্নাতক সম্মান শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষার ফল। এতে উত্তীর্ণ হয়েছে ১৩.০৪ শতাংশ শিক্ষার্থী।   


এবার বিজ্ঞান অনুষদের পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল ৭৭ হাজার ৫৭২ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ১০ হাজার ১১৭ জন। ‘ক’ ইউনিটের অধীনে আসন রয়েছে ১ হাজার ৭৫০টি।


এর আগে ২৫ সেপ্টেম্বর ঢাবি’র ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে কলা অনুষদভুক্ত ‘খ’ ইউনিটের ১ম বর্ষ স্নাতক সম্মান শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়েছে। এ বছর ‘খ’ ইউনিটে ৮৬ শতাংশ ভর্তিচ্ছু ফেল করেছেন। অর্থাৎ পাশের হার ১৪ শতাংশ।    


এবার ‘খ’ ইউনিটে ২ হাজার ৩৭৮ আসনের বিপরীতে আবেদন করেন ৩৫ হাজার ৭২৬ জন। পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন ৩৩ হাজার ৮৯৭ জন। অর্থাৎ প্রতি আসনের বিপরীতে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে ১৪ জন। তবে ভর্তিযুদ্ধে অংশ নিয়ে পাস করেছেন ৪ হাজার ৭৪৭  জন, বা ১৪ শতাংশ।     


এর আগে গত ১৭ সেপ্টেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদভুক্ত ‘গ’ ইউনিটের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের সম্মান শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়। ওই ইউনিটে শতকরা পাসের হার ১০ দশমিক ৯৮ শতাংশ। ‘গ’ ইউনিটের ওই পরীক্ষায় এবার অংশ নেয় ২৫ হাজার ৯৫৮ ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী। এরমধ্যে পাস করে ২ হাজার ৮শ ৫০ জন। অনুত্তীর্ণ শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২৩ হাজার ২ জন।


‘গ’ ইউনিটের অধীনে আসন রয়েছে ১ হাজার ২৫০টি।

 

আরও পড়ুন:

 

ফাঁস প্রশ্নে ‘ঘ’ ইউনিটে পাসের রেকর্ড, ফল বাতিল ও ডিনের পদত্যাগ দাবি

 

ঢাবির 'ঘ' ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাসের হার ২৬.২১ শতাংশ

 

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ফল প্রকাশ স্থগিত


ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ


মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় প্রতারণায় ডিজিটাল আইনে প্রথম মামলা

 

 


Top