বিশ্বকাপ আয়োজন করে ১৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় রাশিয়ার | daily-sun.com

বিশ্বকাপ আয়োজন করে ১৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় রাশিয়ার

ডেইলি সান অনলাইন     ১৬ অক্টোবর, ২০১৮ ১৯:৪০ টাprinter

বিশ্বকাপ আয়োজন করে ১৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় রাশিয়ার

২০১৮ ফুটবল বিশ্বকাপ আয়োজনের মাধ্যমে রাশিয়ার অর্থনীতিতে ১৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশী অর্থ যোগ হয়েছে মঙ্গলবার দোহায় টুর্নামেন্টের আয়োজক সংস্থা তথ্য জানিয়েছে

যে অর্থের পরিমাণ দেশটির নিজস্ব পণ্য থেকে গড় আয়ের এক শতাংশেরও বেশি

 

রাশিয়া বিশ্বকাপ আয়োজক কমিটির প্রধান নির্বাহী এ্যালেক্সি সরকিন বলেন, এই চিত্র অর্থনৈতিক প্রতিবেদনে ফুটে উঠেছে, যা সেখানকার আর্থিক, সামাজিক, পরিবেশে প্রভাব ফেলেছে। ২০২২ সালের বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ কাতারে একটি ফুটবল কনফারেন্সে সরকিন বলেন, এই পরিসংখ্যান রিপোর্ট যেভাবে এসেছে তা এক কথায় বিষ্ময়কর।

 

বিশ্বকাপের কারণে ২০১৩-২০১৮ সালের মধ্যে জিডিপিতে ৯৫২ বিলিয়ন রুবেল অর্থাৎ ১৪. বিলিয়ন মার্কিন ডলার যুক্ত হয়েছে। যা বার্ষিক জিডিপির . শতাংশের সমান

 

রাশিয়ার বিশ্বকাপ আয়োজক সংস্থার তৈরিকৃত ওই রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, ওই টুর্নামেন্ট সেখানে প্রতিবছর কর্মসংস্থান বাড়িয়েছে লাখ ১৫ হাজার করে। যার প্রভাব এখনো সেখানকার অর্থনীতিতে পড়ছে। অন্তত আগামী বছর পর্যন্ত এটি অব্যাহত থাকবে বলে আশা করা হচ্ছে

 

টুর্নামেন্টের আগে ফুটবল দাঙ্গা এবং রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বিশেষ সতর্কতা জারি করা হলেও এর কিছুই ঘটেনি রাশিয়ায়।

সফলভাবে শেষ হয়েছে ২০১৮ বিশ্বকাপ। স্বাধীন কোনো সংস্থার মাধ্যমে এই আর্থিক রিপোর্টটি তৈরি করা হয়েছে কিনা সে বিষয়ে অবশ্য পরিষ্কার কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি ২০১৮ ফুটবল বিশ্বকাপ আয়োজনের মাধ্যমে রাশিয়ার অর্থনীতিতে ১৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশী অর্থ যোগ হয়েছেমঙ্গলবার দোহায় টুর্নামেন্টের আয়োজক সংস্থা তথ্য জানিয়েছেযে অর্থের পরিমাণ দেশটির নিজস্ব পণ্য থেকে গড় আয়ের এক শতাংশেরও বেশি

 

রাশিয়া বিশ্বকাপ আয়োজক কমিটির প্রধান নির্বাহী এ্যালেক্সি সরকিন বলেন, এই চিত্র অর্থনৈতিক প্রতিবেদনে ফুটে উঠেছে, যা সেখানকার আর্থিক, সামাজিক, পরিবেশে প্রভাব ফেলেছে২০২২ সালের বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ কাতারে একটি ফুটবল কনফারেন্সে সরকিন বলেন, ‘এই পরিসংখ্যান রিপোর্ট যেভাবে এসেছে তা এক কথায় বিষ্ময়কর। ’

 

বিশ্বকাপের কারণে ২০১৩-২০১৮ সালের মধ্যে জিডিপিতে ৯৫২ বিলিয়ন রুবেল অর্থাৎ ১৪. বিলিয়ন মার্কিন ডলার যুক্ত হয়েছেযা বার্ষিক জিডিপির . শতাংশের সমান

 

রাশিয়ার বিশ্বকাপ আয়োজক সংস্থার তৈরিকৃত ওই রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, ওই টুর্নামেন্ট সেখানে প্রতিবছর কর্মসংস্থান বাড়িয়েছে লাখ ১৫ হাজার করেযার প্রভাব এখনো সেখানকার অর্থনীতিতে পড়ছেঅন্তত আগামী বছর পর্যন্ত এটি অব্যাহত থাকবে বলে আশা করা হচ্ছে

 

টুর্নামেন্টের আগে ফুটবল দাঙ্গা এবং রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বিশেষ সতর্কতা জারি করা হলেও এর কিছুই ঘটেনি রাশিয়ায়সফলভাবে শেষ হয়েছে ২০১৮ বিশ্বকাপস্বাধীন কোনো সংস্থার মাধ্যমে এই আর্থিক রিপোর্টটি তৈরি করা হয়েছে কিনা সে বিষয়ে অবশ্য পরিষ্কার কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি


Top