সিলেটে এক গ্রামে প্রতিবন্ধী ২০০, শিশুই দেড় শতাধিক | daily-sun.com

সিলেটে এক গ্রামে প্রতিবন্ধী ২০০, শিশুই দেড় শতাধিক

ডেইলি সান অনলাইন     ১২ অক্টোবর, ২০১৮ ১৮:১৩ টাprinter

সিলেটে এক গ্রামে প্রতিবন্ধী ২০০, শিশুই দেড় শতাধিক

- আমতৈল গ্রামের কয়েকটি প্রতিবন্ধী শিশু

 

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলায় রামপাশা ইউনিয়নের আমতৈল গ্রামে দুই শতাধিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তি রয়েছে। এর মধ্যে শিশু প্রতিবন্ধীর সংখ্যা দেড়শাতধিক।

রামপাশা ইউনিয়ন পরিষদের জরিপের ভিত্তিতে  গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছন ইউপি সদস্য আবুল খয়ের।  


তিনি বলেন, তিনটি ওয়ার্ড নিয়ে আমতৈল গ্রাম। ইউনিয়ন পরিষদের জরিপ অনুযায়ী, এ গ্রামের দেড় শতাধিক শিশু প্রতিবন্ধী ও প্রায় ৫০ জন বয়স্ক প্রতিবন্ধী রয়েছে। এদের মধ্যে মাত্র ৫০-৬০ জন শিশু-বয়স্ক প্রতিবন্ধী ভাতা পান।


জানা যায়, ঘনবসতিপূর্ণ গ্রাম আমতৈলে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা তুলনামূলক বেশি। মৎস্যজীবী ভিত্তিক ওই গ্রামটি উপজেলা সদর থেকে প্রায় ছয় কিলোমিটার দূরত্বে। এ গ্রামে ভোটার সংখ্যা প্রায় সাড়ে সাত হাজার। লোকসংখ্যা ২৫ হাজারেরও বেশি। চারপাশের অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের কারণে এ গ্রামের মানুষের রোগব্যাধি নিত্যসঙ্গী।


উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবদুর রহমান বলেন, গর্ভকালীন মায়েদের অসচেতনতা ও অপুষ্টিজনিত কারণেই মূলত শিশুরা প্রতিবন্ধী হয়ে জন্মাচ্ছে। তবে সময়মতো ডাক্তারের পরামর্শ ও স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি করলে এ সমস্যা নিরসন হবে।
 

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আবদুল আল জুবায়ের বলেন, ‘আমি এ উপজেলায় নতুন যোগদান করেছি। তবে ওই গ্রামটি শিগগিরই পরিদর্শন করে বঞ্চিত প্রতিবন্ধী লোকজনের জন্য সহায়তার ব্যবস্থা করা হবে। ’ 


স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলমগীর বলেন, এটি একটি ঘনবসতি গ্রাম। দরিদ্রতা, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও পুষ্টিহীনতার কারণে এ গ্রামের লোকজন নানা রোগে ভুগছে। এ গ্রামের বেশির ভাগ পরিবারেই প্রতিবন্ধী শিশু রয়েছে। তাদের ভাতার ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রতি জোর দাবি জানান তিনি।


- সূত্র: তথ্যসূত্র কালের কন্ঠ

 


Top