ছাত্রীকে শিক্ষকের যৌন হেনস্থা, হামলার শিকার শিক্ষিকা! | daily-sun.com

ছাত্রীকে শিক্ষকের যৌন হেনস্থা, হামলার শিকার শিক্ষিকা!

ডেইলি সান অনলাইন     ১১ অক্টোবর, ২০১৮ ১৭:৫৯ টাprinter

ছাত্রীকে শিক্ষকের যৌন হেনস্থা, হামলার শিকার শিক্ষিকা!

স্কুলের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ ওঠার পর থেকেই উত্তপ্ত হয়ে আছে অভিভাবকরা। এতই উত্তপ্ত ও ক্ষিপ্ত যে তারা ঐ স্কুলের শিক্ষিকাদের ওপর উপর্যুপরি হামলা চালাতেও দ্বিধাবোধ করেনি।

এমনকি শিক্ষিকাদের পোশাক পর্যন্ত রাস্তায় টেনে ছিঁড়েছেন।

 

ঘটনাটি ঘটেছে গত মঙ্গলবার ভারতের ঢাকুরিয়ার বিনোদিনী গার্লস হাইস্কুলের সামনে। এসব দেখে হতবাক এলাকার বাসিন্দারাও।

 

স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, রাস্তা দিয়ে দ্রুত পায়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন ঐ স্কুলের কিছু শিক্ষিকা। আর তাদের পেছনে তেড়ে আসছে একদল নারী-পুরুষ। আর পেছন থেকেই তারা শিক্ষিকাদের অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজও করছে।

 

কেউ আবার চিৎকার করে বলছে, কাউকে ছাড়ব না। ধর ওদের, শাড়ি ধরে টান দে। তারপরেই এক নারী পেছন থেকে ঝাঁপিয়ে পড়েন এক শিক্ষিকার ওপর।

তার ব্লাউজের একাংশ গেল ছিঁড়ে। এসময় পাশের এক নারী বলতে থাকেন, শাড়ি ছিঁড়ে দে...ওদের।

 

দিনে দুপুরে রাস্তার মধ্যে কেউ ওই শিক্ষিকার কাপড় ধরে টান মারে। কেউ আবার হাত ধরে টেনে মাটিতে ফেলার চেষ্টা করতে থাকে। সেই সঙ্গে চলতে থাকে এলোপাথাড়ি চড়থাপ্পড়।

 

এলোপাথাড়ি চড়থাপ্পড় খাওয়া ওই শিক্ষিকার নাম শ্যামলী চৌধুরী। পিটুনি খাওয়ার এক পর্যায়ে দুজন ছাত্রী এসে কোনো রকমে তাকে স্কুলের ভেতরে নিয়ে যায়। আতঙ্কে কাঁদতে থাকেন তিনি।

 

স্কুল থেকে কয়েক হাত দূরে শ্যামলী এবং ঢাকুরিয়া স্টেশনে রূপা ভট্টাচার্য নামে আরেক শিক্ষিকাকে শারীরিকভাবে হেনস্থার অভিযোগ উঠেছে অভিভাবকদের বিরুদ্ধে।

 

স্কুলের শিক্ষিকাদের অভিযোগ, গালিগালাজ করা থেকে পোশাক ছিঁড়ে দেওয়া, এমনকি স্কুল বন্ধ করে দেওয়ার হুমকিও দেন অভিভাবকরা।

 

যদিও স্কুলশিক্ষা দপ্তর জানিয়েছে, বহু বহিরাগত ওই দলে ঢুকে পড়েছিল। পঞ্চানতলা বস্তির বাসিন্দাদের একাংশও ওই দলে ছিলেন বলে তাদের অনুমান।


Top