সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় গরু পায় রূপ ও গুণের স্বীকৃতি | daily-sun.com

সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় গরু পায় রূপ ও গুণের স্বীকৃতি

ডেইলি সান অনলাইন     ৫ অক্টোবর, ২০১৮ ১৫:০৩ টাprinter

সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় গরু পায় রূপ ও গুণের স্বীকৃতি

 

বিশ্বে নারীদের সৌন্দর্য প্রতিযোগিতা নিয়ে নানা তর্ক বিতর্ক রয়েছে। তবুও বিশ্বজুড়ে এই প্রতিযোগিতা টিকে আছে তার গ্ল্যামারের কারণে।

কিন্তু গরুর সৌন্দর্য প্রতিযোগিতার কথা কখনও কেউ শুনেছেন কি? 


আশ্চর্য হলেও সত্য, জার্মানিতে সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় গরু তাদের রূপ ও গুণের স্বীকৃতি পেয়ে থাকে। সেখানে কেউ হয় জয়ী কেউবা রানার আপ। জার্মানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডয়েচে ভেলের একটি প্রতিবেদন থেকে এ প্রতিযোগিতার খোঁজ পাওয়া গেছে।


খবরে বলা হয়, জার্মানির লোয়ার স্যাক্সনি রাজ্যে গরুর রূপ-গুণ বিচার করতে অভিনব এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। এবার দু’শোর বেশি গরু এই সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে।


খবরে আরও বলা হয়, এই সৌন্দর্য প্রতিযোগিতার বিচারকরা শারীরিক গঠন, দীর্ঘ আয়ু ও দুধ দেবার ক্ষমতার মানদন্ডে গরুদের সৌন্দর্য বিচার করেন। বয়স্ক ও কম বয়সী গরুর মূল্যও আলাদা ওই প্রতিযোগিতায়। নারীর সৌন্দর্য প্রতিযোগিতার মতো এ ক্ষেত্রেও আনা হয় বিশেষজ্ঞদের। যেমন আয়ারল্যান্ড থেকে স্টিভ ম্যাকলাউলিন নামে এক গরুর স্টাইলিস্টকে নিয়ে আসা হয়েছে প্রতিযোগিতায়।

 


এছাড়াও শুধু সৌন্দর্য নয়, মুনাফাও জরুরি বিষয়। গুরু যাতে নিজেদের বাঁটের ভারে কাবু না হয়ে পড়ে, তা নিশ্চিত করতে প্রজননকারীদের গরুর শারীরিক গঠনের প্রতি মনোযোগ দিতে হয়। গরুর দীর্ঘ আয়ু নিশ্চিত করাটাও প্রয়োজন সেরা গুরু নির্বাচিত হওয়ার জন্য।


ওই প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া আনিটা লুকাসসেন বলেন, ‘গরুর শারীরিক গঠন ভালো হতে হবে, অনেক খাদ্য খাওয়ার জন্য পেট যথেষ্ট গভীর এবং মেরুদণ্ড শক্ত হতে হবে। বাঁট হতে হবে মজবুত এবং গোড়ালি থেকে অনেক উপরে থাকতে হবে। এছাড়া যতটা সম্ভব দীর্ঘ সময় ধরে গরুটির অনেক দুধ উৎপাদন করার সক্ষমতা থাকতে হবে। ’


প্রতিযোগিতায় দেখা যায় আফ্রিকা নামের একটি গুরুর শুটিং চলছে। গরুটির মুখে বিশেষ কৌতূহলের অভিব্যক্তি আনতে ব্যবহার করা হচ্ছে একটি বল। তার মালিক গরুর ক্ষমতা ও সৌন্দর্যের জন্য পুরস্কার পেয়েছেন।

 


মঞ্চের পাশে স্টিভ ম্যাকলাউলিন নামে এক গুরুর মালিক তার গরুর সৌন্দর্য বাড়াতে ব্যস্ত। তিনি বলেন, ‘জেল দিয়ে বাঁট উজ্জ্বল করে তোলা হয়। ফলে প্রতিযোগিতার মঞ্চে নিয়ে গেলে গরুকে অনেক স্বাভাবিক দেখায় এবং বিচারকরাও ভালোভাবে দেখতে পান। ’


দর্শকদের আসনে আছেন কৌতূহলী মানুষ, চাষি ও প্রজননকারীরা। তাদের মধ্যে একজন বলেন, ‘সুন্দর গরু দেখতে আমার দারুণ লাগে। আমার নিজের প্রায় ১০টি সুন্দর গুরু রয়েছে। ’

 

 


Top