কাল্পনিক মামলার বন্যায় ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছে দেশকে: রিজভী | daily-sun.com

কাল্পনিক মামলার বন্যায় ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছে দেশকে: রিজভী

ডেইলি সান অনলাইন     ৪ অক্টোবর, ২০১৮ ১৫:৪৫ টাprinter

কাল্পনিক মামলার বন্যায় ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছে দেশকে: রিজভী

 

কোনো কারণ ছাড়াই কাল্পনিক মামলার বন্যায় দেশকে ভাসিয়ে দেওয়া হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, বিএনপি নেতাকর্মীদের ঘুম হারাম করে দিয়েছে এই ভোটারবিহীন সরকার।

কোনো ওয়ার্ডেই তিন জন নেতাকর্মী একসাথে চলাফেরা করতে পারছে না। বৃহস্পতিবার (৪ অক্টোবর) সকালে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন রুহুল কবির রিজভী।


তিনি বলেন, ‘বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়ির সামনে রাতের অন্ধকারে কালো টিনশেড গ্লাস দিয়ে ঢাকা মাইক্রোবাস থেকে নামা ব্যক্তিদের কর্কশ কড়া নাড়ার শব্দে ভেঙেচুরে খান খান হয়ে যাচ্ছে রাতের নিস্তব্ধতা। বাসাবাড়ি তছনছ করে চলছে চিরুনি তল্লাশি। তুলে নিয়ে যায় কিশোর, তরুণ, ছাত্রদল, যুবদল ও অন্যান্য অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের।


‘খাল, বিল, নদীধারে মাইক্রোবাস থেকে নামিয়ে চলে যেতে বলে। তারপর গুলি করা হয় পেছন থেকে। তা না হলে কিছুদিনের জন্য, নয়তো চিরদিনের জন্য গুম করে অদৃশ্য করা হচ্ছে। অথবা লকআপে চলানো হয় অকথ্য অত্যাচার নির্যাতন,’- বলেন রুহুল কবির রিজভী।


তিনি বলেন, সরকার বিরোধী দলের ধড় থেকে মুণ্ডু খসানোর নীতি গ্রহণ করেছে।


গতকাল (বুধবার, ৩ অক্টোবর) জাতীয়তাবাদী দলের উদ্যোগে নিরপেক্ষ সরকারের দাবি, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও আটক নেতাকর্মীদের মুক্তি সম্বলিত ৭ দফা এবং সুশাসনের অঙ্গীকার সম্বলিত ১২ দফা লক্ষ্যসহ একটি স্মারকলিপি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে হস্তান্তর কর্মসূচি পালন করা হয়। এই স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচিতে পুলিশের ন্যাক্কারজনক হামলা, নেতাকর্মীদেরকে লাঠিচার্জের মাধ্যমে আহত করা এবং গ্রেফতারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে আটক নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তি চান বিএনপির এই সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব।


তিনি বলেন, ‘চল যাই যুদ্ধে, দেশমাতার মুক্তির লক্ষ্যে’- এই স্লোগানে ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা কর্মসূচি পালনকালে বিনা উসকানিতে পুলিশ হামলা চালিয়ে ব্যানার ছিনিয়ে নেয়। পুলিশের বেধড়ক লাঠিপেটায় প্রায় ৩০ জন নেতাকর্মী আহত হন। অনেকেই গুরুতর আহত হয়ে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।


সংবাদ সম্মেলনে যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সহদফতর সম্পাদক মুনির হোসেন, বেলাল আহমেদসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

 


Top