রবিবারের জনসভার অনুমতি পেল বিএনপি | daily-sun.com

রবিবারের জনসভার অনুমতি পেল বিএনপি

ডেইলি সান অনলাইন     ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১২:৪১ টাprinter

রবিবারের জনসভার অনুমতি পেল বিএনপি

 

পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী আগামীকাল রবিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের জনসভা করার অনুমতি পেয়েছে বিএনপি। শনিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) ২২টি শর্তে এই জনসভা করার অনুমতি দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।


বিএনপির সহসাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছন। তিনি বলেন, রবিবার দুপুর ২টায় জনসভা শুরু হবে।


এর আগে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে রবিবারের জনসভার অনুমতি পেতে ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে দেখা করেন বিএনপির দুই সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল।


বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির প্রচার সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য শহীদ উদ্দিন চৌধুরীর এ্যানি নেতৃত্বে প্রতিনিধিদলের অপর সদস্য ছিলেন সহসাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ।


এর আগে প্রথমে জনসভার জন্য বিএনপি ২৭ সেপ্টেম্বর অনুমতি চায়। এরপর দু’দিন পিছিয়ে ২৯ তারিখ চাওয়া হয়। আর সর্বশেষ বৃহস্পতিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ৩০ তারিখের জন্য আবেদন করে বিএনপি।


ওই দিন ডিএমপি সূত্র জানায়, বিএনপি ৩০ সেপ্টেম্বর জনসভার দিন রেখে নতুন করে একটি আবেদন জমা দিয়েছে। ওইদিন তাদের জনসভার অনুমতি দেয়া হবে কিনা তা শুক্রবার ডিএমপি থেকে জানানো হবে।


কিন্তু শুক্রবারও অনুমতির বিষয়ে কিছু জানানো না হলে দলটি প্রতিনিধি পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়।


এদিকে জনসভার অনুমতি না পেলে তাৎক্ষণিক কর্মসূচি দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিল বিএনপি। শুক্রবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের স্থায়ী কমিটির নেতাদের বৈঠকে এ বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে কি ধরনের কর্মসূচির নেয়া হবে তা জানানো হয়নি।


বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, অনুমতি পেলে জনসভায় বিএনপি বেশ কয়েকটি দাবি উপস্থাপন করবে। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে, নির্বাচনের আগে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দিদের মুক্তি দিতে হবে। নির্বাচনের আগে সংসদ ভেঙে দিতে হবে। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে। নির্বাচন কমিশন পুনঃগঠন করতে হবে। নির্বাচনে ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতাসহ সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে। ইভিএম ব্যবহার করা যাবে না।


শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা প্রায় ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক করেন। সেখানে এসব বিষয়ে আলোচনা করা হয়। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমান, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান প্রমুখ।

 


Top