সন্তান নিতে রাজি না হওয়ায় উচ্চশিক্ষিতা স্ত্রীকে খুন! | daily-sun.com

সন্তান নিতে রাজি না হওয়ায় উচ্চশিক্ষিতা স্ত্রীকে খুন!

ডেইলি সান অনলাইন     ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৭:০৭ টাprinter

সন্তান নিতে রাজি না হওয়ায় উচ্চশিক্ষিতা স্ত্রীকে খুন!

স্বামী স্কুল শিক্ষক। স্ত্রীও উচ্চশিক্ষিতা।

তবে স্ত্রীর আজন্ম লালিত স্বপ্ন ছিল শিক্ষক হওয়ার। সেই স্বপ্নই কাল হয়ে দেখা দিল মেয়েটির জীবনে। স্বপ্নের সাথে সাথে সমাধি ঘটলো একটি সম্ভাবণাময় জীবনের।

 

মৃতার নাম দেবশ্রী হালদার (‌২৯)‌। ছোট থেকেই শিক্ষিকা হওয়ার স্বপ্ন ছিল তাঁর। ভূগোলে এমএ পাশ করার পর বিএডও করেছিলেন তিনি। স্কুল সার্ভিস কমিশন থেকে নেট, স্লেট পরীক্ষাতেও বসেছেন তিনি। কয়েকটি স্কুলে আংশিক সময়ের শিক্ষিকা হিসেবে কাজও করেছেন।

 

এরমধ্যে ২ বছর আগে এক শিক্ষকের সঙ্গে বিয়ে হয় দেবশ্রীর।

ভেবেছিলেন শিক্ষক স্বামী তাঁর সেই স্বপ্নপূরণের সঙ্গী হবেন। কিন্তু বাস্তবে ঘটল উল্টো ঘটনা। সন্তান নেওয়ার জন্য দেবশ্রীর ওপর বেশ কিছুদিন ধরে চাপ দিচ্ছিল শিক্ষক স্বামী। এবং শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। সঙ্গে ছিল পণের চাপ। দেবশ্রী তা মেনে না নেওয়ায় শুরু হয় শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার। এমনটাই অভিযোগ।

 

বৃহস্পতিবার ভারতের মন্দিরবাজারের চৈতন্যপুরে শ্বশুরবাড়ি থেকে উদ্ধার হয় দেবশ্রীর দেহ। ঘরের মধ্যে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় উদ্ধার হয় দেবশ্রীর দেহ। এই ঘটনায় দেবশ্রীর স্বামী শান্তনু হালদারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

 

ধৃতকে শুক্রবার ডায়মন্ড হারবার মহকুমা আদালতে তোলা হলে ৪ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। এই ঘটনায় অভিযুক্ত দেবশ্রীর শ্বশুর ও শাশুড়ি পলাতক। বধূ নির্যাতন ও অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিস। শুক্রবার দেবশ্রীর দেহের ময়নাতদন্ত হয় ডায়মন্ড হারবার হাসপাতালের মর্গে।


Top