সামরিক কুচকাওয়াজে হামলা: আইএসের দায় স্বীকার, ইরানের সন্দেহ সৌদি সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীদের | daily-sun.com

সামরিক কুচকাওয়াজে হামলা: আইএসের দায় স্বীকার, ইরানের সন্দেহ সৌদি সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীদের

ডেইলি সান অনলাইন     ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৭:০৫ টাprinter

সামরিক কুচকাওয়াজে হামলা: আইএসের দায় স্বীকার, ইরানের সন্দেহ সৌদি সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীদের

 

ইরানের সামরিক কুচকাওয়াজে বন্দুক হামলার ঘটনায় দায় স্বীকার করেছে জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস। আমাক নিউজ এজেন্সির মাধ্যমে দায় স্বীকার করলেও হামলায় নিজেদের জড়িত থাকার স্বপক্ষে কোনও প্রমাণ দেখাতে পারেনি জঙ্গিরা।

এছাড়া সৌদি সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী আহওয়াজ ন্যাশনাল রেজিস্ট্যান্সও হামলার দায় স্বীকার করেছে। ইরানি কর্মকর্তারাও হামলার জন্য সৌদি মদদপুষ্ট বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সন্দেহ করছেন।

 
২২ সেপ্টেম্বরের ওই হামলায় নারী ও শিশুসহ নিহত হয়েছেন অন্তত ২৯ জন। আহত হয়েছেন আরও ৭০ জন। হতাহতদের মধ্যে দেশটির সামরিক বাহিনীর সদস্যদের পাশাপাশি কুচকাওয়াজ দেখতে যাওয়া নারী ও শিশুরাও রয়েছে।


শনিবার (২২ সেপ্টেম্বর) ইরানের খুজেস্তান প্রদেশের আহওয়াজ শহরে কুচকাওয়াজ চলা অবস্থায় এই হামলার ঘটনা ঘটে। কুচকাওয়াজ চলাকালে বন্দুকধারীরা দূর থেকে গুলি চালাতে শুরু করে। এক পর্যায়ে তারা মঞ্চে থাকা সেনা কর্মকর্তাদের লক্ষ্য করে হামলা চালায়। এ সময় পাল্টা জবাব দেয় ইরানি বাহিনীর সদস্যরা।

গোলাগুলির এই ঘটনা চলে প্রায় ১০ মিনিট ধরে।


খুজেস্তান প্রদেশের ডেপুটি গভর্নর জানিয়েছেন, হামলাকারীদের দুইজন পাল্টা গুলিতে নিহত হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে দুইজনকে। আর বাকিরা পালিয়ে গেছে।


সৌদি সমর্থিত আহওয়াজ বিচ্ছিন্নতাবাদীরা নিজেদের আরব জাতীয়তাবাদী হিসেবে পরিচয় দেয়। আল জাজিরা দুইজন হামলাকারীর নিহত হওয়ার সংবাদ দিয়ে জানিয়েছে, পালিয়া যাওয়া হামলাকারীদের ধরতে অভিযান শুরু করেছে ইরান।


ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ এ হামলার জন্য নাম উল্লেখ না করে ‘বিদেশি শক্তির’ দিকে আঙুল তুলেছেন। টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘সন্ত্রাসীদের নিয়োগ, প্রশিক্ষণ, অস্ত্র ও অর্থ দেওয়া বিদেশি শক্তি আহওয়াজে হামলা চালিয়েছে। শিশু ও সাংবাদিকরা প্রাণ হারিয়েছেন। সন্ত্রাসবাদে মদদ দেওয়া আঞ্চলিক শক্তি এবং তাদের প্রভু যুক্তরাষ্ট্র এই হামলার জন্য দায়ী। নাগরিকদের জীবন রক্ষার জন্য ইরান খুব দ্রুত এবং চরমভাবে পাল্টা জবাব দেবে। ’ 

- সূত্র: রয়টার্স, মিডল ইস্ট আই।

 


Top