কাশ্মীর ইস্যুতে ২০টি ডাকটিকিট প্রকাশ পাকিস্তানের, রয়েছে বুরহান ওয়ানি’র নামেও | daily-sun.com

কাশ্মীর ইস্যুতে ২০টি ডাকটিকিট প্রকাশ পাকিস্তানের, রয়েছে বুরহান ওয়ানি’র নামেও

ডেইলি সান অনলাইন     ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৫:৩৭ টাprinter

কাশ্মীর ইস্যুতে ২০টি ডাকটিকিট প্রকাশ পাকিস্তানের, রয়েছে বুরহান ওয়ানি’র নামেও

 

ভারতনিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে বিদ্রোহী নেতা বুরহান ওয়ানির স্মৃতিতে ডাকটিকিট প্রকাশ করেছে পাকিস্তান। এতে লেখা রয়েছে, বুরহান ওয়ানি (১৯৯৪-২০১৬), স্বাধীনতার আদর্শ।

 
ডাকটিকিটটিতে বুরহানের মরদেহ নিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শনের ছবি রয়েছে। পাকিস্তানি মূদ্রায় ৮ রুপিতে বিক্রয় হচ্ছে এটি। এছাড়াও তাকেসহ কাশ্মীরের বিভিন্ন ঘটনা নিয়ে মোট ২০টি ডাকটিকিট প্রকাশ করেছে পাকিস্তানের ডাক বিভাগ।


এতে উঠে এসেছে কাশ্মীরে চলমান ঘটনাচিত্র। টিকিটের নিচে লেখা রয়েছে, কাশ্মীরে ভারতীয় নিপীড়ন।


ডাকটিকিটের ছবিতে কোথাও রয়েছে পুলিশের লাঠিচার্জ, কোথাও মরদেহের ছবি। এছাড়াও ডাকটিকিটের কোথাও কোথাও গণকবরের ছবি দেখানো হয়েছে, কোথাও রাসায়নিক হামলার দাবি করে মৃতদেহের ছবি দেয়া হয়েছে।

 


এসব ডাকটিকিট প্রকাশে পাকিস্তান সন্ত্রাসীদের শহীদ বলে উগ্রবাদীদের উসকে দিচ্ছে বলে অভিযোগ করছে বিভিন্ন ভারতীয় গণমাধ্যম।


গত ২৪ জুলাই কাশ্মীর দিবস উপলক্ষে করাচির পাক ডাক বিভাগের সদর দফতর থেকে ওই ডাকটিকিট প্রকাশ করা হয়।

বিভিন্ন অনলাইন সংস্থায় পাওয়া যাচ্ছে সেগুলো। পাকিস্তানি মুদ্রায় ২০টি ডাকটিকিটের দাম পড়ছে মোট ৫০০ টাকা।


এদিকে এ ডাকটিকিট প্রকাশের জের ধরে শুক্রবার পাকিস্তান ও ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রীদ্বয়ের মধ্যকার বৈঠক বাতিল করেছে নয়াদিল্লী। জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ফাঁকে এই বৈঠকের কথা ছিল। বৈঠকের ব্যাপারে একমত হওয়ার মাত্র একদিন পরেই এটা বাতিল করলো ভারত।


ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রাভিশ কুমার এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, পাকিস্তানের ‘অস্বচ্ছ উদ্দেশ্যের’ কারণে এটা বাতিল করা হয়েছে। তিনি জানান, ‘পাকিস্তানী শক্তি’র হাতে ভারতের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য হত্যার’ অভিযোগে এবং কথিত ‘সন্ত্রাসীদের প্রশংসা’ করে ইসলামাবাদ স্ট্যাম্প প্রকাশ করায় ভারত এ আলোচনা বাতিল করেছে।


দ্য নেশানের মতে, পাকিস্তান পোস্ট ২০টি বিশেষ পোস্ট স্ট্যাম্প প্রকাশ করেছে ২৪ জুলাই। এদের মধ্যে বুরহান ওয়ানি এবং তার দুই সহযোগির ছবিও রয়েছে। হিজবুল মুজাহিদীন কমান্ডার বুরহান ওয়ানি কাশ্মীরের একজন মুক্তিযোদ্ধা। ২০১৭ সালে ভারতীয় সেনার হাতে নিহত হন তিনি।

 


রাভিশ কুমার বলেন, “নতুন শুরুর জন্য আলোচনার শুরুর ব্যাপারে পাকিস্তানের প্রস্তাবের পেছনে পাকিস্তানের অশুভ এজেন্ডা প্রকাশিত হয়ে গেছে এবং নতুন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সত্যিকারের চেহারা প্রথম কয়েক মাসেই বিশ্বের কাছে প্রকাশিত হয়ে গেছে”। তিনি আরও বলেন, “এ ধরণের পরিবেশে পাকিস্তানের সাথে যে কোন ধরণের আলোচনা অর্থহীন। ”


উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৮ জুলাই ভারত নিয়ন্ত্রিত দক্ষিণ কাশ্মীরের অনন্তনাগে ভারতীয় সেনা কর্তৃক গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায় হিজবুল মুজাহিদিন নেতা বুরহান ওয়ানি। সে সময় দলটির আরও দুই শীর্ষ নেতা নিহত হয়।


বুরহান ওয়ানির মৃত্যুতে পরপর কাশ্মীরে বিদ্রোহ ছড়িয়ে পড়ে। সাধারণ মানুষ রাস্তায় নেমে আসে।  


বুরহান হত্যায় তৎকালীন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ, সেনাপ্রধান বাজওয়া খোলাখুলি বুরহানের প্রশংসা করে বিবৃতি দেন। বুরহানকে কাশ্মীরের একজন ক্যারিসম্যাটিক লিডার বলে আখ্যা দিয়েছিল পাক সরকার।

 


Top