বিশ্বখ্যাত ‘টাইম’ ম্যাগাজিনের মালিকানা বদলে গেল | daily-sun.com

বিশ্বখ্যাত ‘টাইম’ ম্যাগাজিনের মালিকানা বদলে গেল

ডেইলি সান অনলাইন     ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৬:২৩ টাprinter

 বিশ্বখ্যাত ‘টাইম’ ম্যাগাজিনের মালিকানা বদলে গেল

যুক্তরাষ্ট্রের সাপ্তাহিক নিউজ ম্যাগাজিন ‘টাইম’-এর খ্যাতি বিশ্বজোড়া। রয়েছে এর দীর্ঘ ইতিহাসও।

সেই ১৯২৩ সালে প্রতিষ্ঠিত এই ম্যাগাজিনটি আজো দাপট দেখাচ্ছে সংবাদমাধ্যম জগতে।

 

দেশটির বিখ্যাত ইয়েল ইউনির্ভাসিটির দুই শিক্ষার্থী হেনরি লুসি এবং ব্রিটন হ্যাডেন আজ থেকে ৯৫ বছর আগে শুরু করেছিলেন ম্যাগাজিনটির কাজ। সেসময় তারা ছিলেন ইয়েল ডেইলি নিউজে কর্মরত। ‘টাইম’ ম্যাগাজিন প্রতিষ্ঠার সময় একজন ছিলেন চেয়ারম্যান, অপরজন ম্যানেজিং এডিটর।

 

লুসি ও হ্যাডেন যখন ১৯২৩ সালের ৩ মার্চ ম্যাগাজিনটির প্রথম সংখ্যা বের করেন তখন এটি ছিলো যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম সাপ্তাহিক নিউজ ম্যাগাজিন। প্রথম দিকে তারা ভেবেছিলেন ম্যাগাজিনটির নাম রাখা হবে ‘ফ্যাক্ট’। যাতে অর্থনৈতিকভাবে দ্রুতবর্ধমান দেশটির ব্যস্ত মানুষেরা এক ঘণ্টাতেই পড়ে নিতে পারেন এর প্রতিবেদনগুলো।

 

পরে, ম্যাগাজিনটির নাম পরিবর্তন করে ‘টাইম’ রাখা হয়। দেওয়া হয় স্লোগান- ‘টেক টাইম- ইট’স ব্রিফ।

’ ১৯২৯ সালে হ্যাডেনের মৃত্যুর পর লুসি হয়ে উঠেন ম্যাগাজিনটির সর্বেসর্বা। তিনি বেঁচে ছিলেন ১৯৬৭ সাল পর্যন্ত।

 

১৯২৩ সাল থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত ম্যাগাজিনটির দায়িত্বে ছিলো এর প্রতিষ্ঠাতা প্রতিষ্ঠান টাইম ইঙ্ক। এরপর এর মালিকানা চলে যায় টাইম ওয়ার্নার প্রতিষ্ঠানটির হাতে। ১৯৯০ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত ‘টাইম’-এর দায়িত্বে থাকে ওয়ার্নার। তবে ২০১৪ সাল থেকে চলতি বছরের শুরুর দিকে ম্যাগাজিনটির মালিকানায় আবার আসে টাইম ইঙ্ক-এর হাতে। তবে এ বছরের শুরুতে সেই মালিকানা পায় মেরেডিথ করপোরেশন।

 

বিশ্বের সবচেয়ে পঠিত এই ম্যাগাজিনটি এবার বিক্রি করে দিলো মেরেডিথ। আর তা ১৯০ মিলিয়ন ডলারে কিনে নিলেন টেক বিলিয়নার মার্ক বেনিওফ ও তার স্ত্রী লিনি বেনিওফ।

 

যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম জনপ্রিয় গণমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল (ওএসজে) আজ (১৭ সেপ্টেম্বর) জানায়, মেরেডিথ করপোরেশন টাইম ম্যাগাজিনটি কিনে নেওয়ার আট মাসের মাথায় তা বিক্রি করে দিলো।

 

তবে বিক্রি করে দেওয়া কোনো কারণ উল্লেখ না করে ওএসজে বলে, অন্যান্য ম্যাগাজিনগুলোর মতোই প্রকাশনা শিল্পে মন্দার ধাক্কা খেয়েছে বিশ্বখ্যাত ম্যাগাজিনটি। টাইম-এর প্রিন্ট সংস্করণে বিজ্ঞাপন ও পাঠকদের কাছে হার্ড কপির বিক্রি কমে যাওয়ায় ম্যাগাজিনটির মালিকানা ছেড়ে দিলো মেরেডিথ।

 


Top