আপনার ‘ইমোশনাল ইন্টেলিজেন্স’ কেমন? | daily-sun.com

আপনার ‘ইমোশনাল ইন্টেলিজেন্স’ কেমন?

ডেইলি সান অনলাইন     ৩১ আগস্ট, ২০১৬ ১৮:৩৯ টাprinter

আপনার ‘ইমোশনাল ইন্টেলিজেন্স’ কেমন?

 

 

‘ইমোশনাল ইন্টেলিজেন্স’ বা ‘আবেগগত বুদ্ধিমত্তা’ সাধারণ বুদ্ধিমত্তা নয়। এটি মূলত আপনার নিজের আবেগকে বোঝার ক্ষমতা। এ লেখায় তুলে ধরা হলো কয়েকটি লক্ষণ, যা থেকে আপনি বুঝতে পারবেন আপনার আবেগগত বুদ্ধিমত্তা কেমন। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে বিজনেস ইনসাইডার।

 

 ১. নিজের আবেগ-অনুভূতি বিষয়ে চিন্তাভাবনা সবারই আবেগ রয়েছে। কিন্তু তা ঠিকভাবে নির্ণয় করার ক্ষমতা সবার থাকে না। এ ক্ষমতা যার বেশি থাকে তাকে এক্ষেত্রে দক্ষ হিসেবে বলা যায়। আপনার যদি এক্ষেত্রে যথেষ্ট চিন্তাভাবনা থাকে তাহলে আপনি নিজেকে ইমোশনালি ইন্টেলিজেন্ট বলতে পারেন।

 

২. অন্যদের থেকে মতামত গ্রহণ যে কোনো বিষয়ে স্পষ্টভাবে ধারণা কিংবা বোঝার আগে অন্যের মতামত গ্রহণ করতে চান এ ধরনের ব্যক্তিরা। এটি সঠিক কিংবা ভুল নয়, মূলত বিষয়টি বোঝার জন্যই প্রয়োজনীয়।

 

৩. ধন্যবাদ দেওয়া এখন মানুষের মাঝে সাধারণ ভদ্রতার দেখাও পাওয়া যায় না। তবে আপনি যদি এ বিষয়টি না ভোলেন তাহলে আপনার আবেগগত বুদ্ধিমতা ঠিক পথেই রয়েছে বলে মনে করা যায়। অন্যরা আপনার জন্য যে কাজটি করে দিচ্ছে, তার জন্য ধন্যবাদ দিতে ভুলেন না।

 

৪. কখন থামা উচিত কোনো ক্ষেত্রে কতদূর এগোনো উচিত এবং কোন পর্যন্ত যাওয়ার পর থামতে হবে তা সবার জানা থাকে না। এর কারণে বহু অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে যায়। কিন্তু আপনি জানেন কখন থামা উচিত।

 

 ৫. কারণ জেনে নেওয়া যে কোনো বিষয়েরই নির্দিষ্ট কারণ রয়েছে। আপনি যদি কারণটি সঠিকভাবে জেনে নিতে পারেন তাহলে বহু কাজ সহজ হয়ে যায়। আপনি কি কারণ জেনে নিতে পিছপা হন না? তাহলে আপনার ইমোশনাল ইন্টেলিজেন্স সঠিক পথেই রয়েছে।

 

৬. সমালোচনায় ভয় নয় সমালোচনাকে সবাই সঠিকভাবে গ্রহণ করতে পারে না। আপনি যদি সমালোচনাকে সঠিকভাবে গ্রহণ করতে পারেন তাহলে বুঝতে হবে আপনি সঠিক পথেই রয়েছেন।

 

৭. অন্যদের প্রতিক্রিয়া বিষয়ে সচেতন অন্যরা আপনার বিষয়ে কিভাবে প্রতিক্রিয়া জানাবে তা নিয়ে আপনি সচেতন। এ বিষয়ে আপনার আগ্রহের মাত্রা আপনার ‘ইমোশনাল ইন্টেলিজেন্স’ প্রকাশ করবে।

 

 

৮. দুঃখ প্রকাশ আপনি কি নিজের ভুলের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন? এ বিষয়টি আপনার আবেগগত বুদ্ধিমত্তাকে সঠিকভাবে প্রকাশ করে।

 

৯. মেনে নেওয়া যে কোনো কাজেই সামান্য ভুল-ত্রুটি থাকবে, এটা আপনি কি মেনে নেন? 'ইমোশনাল ইন্টেলিজেন্স' যাদের বেশি তারা এ বিষয়গুলো সহজেই মেনে নেয়।

 

১০. আবেগী কণ্ঠ সবার কণ্ঠ থেকে আবেগ নির্ণয় করা যায় না। আপনি যদি আবেগগতভাবে বুদ্ধিমান হন তাহলে আপনি যখন দুঃখ পাবেন তখন আপনার কণ্ঠে তা বোঝা যাবে। আবার আপনি আনন্দিত হলে তাও অন্যরা বুঝতে পারবেন।

 

১১. আন্তরিক আন্তরিকভাবে আপনি যখন অন্যকে অনুপ্রাণিত করবেন তখন আপনার স্বল্পমেয়াদি ও দীর্ঘমেয়াদি লক্ষ্যের মতো বহু বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করা সম্ভব হবে। সঠিকভাবে আবেগগত বুদ্ধিমত্তা থাকলে নিজের যেমন অনুপ্রেরণা লাভ সম্ভব হবে, তেমনি অন্যদেরও অনুপ্রেরণা দেওয়া সম্ভব হবে।

 

১২. নিচের চিন্তার ওপর নিয়ন্ত্রণ আপনি কি নিজের চিন্তাভাবনাকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন? এটি যারা সহজেই সহ্য করতে পারে তাদের 'ইমোশনাল ইন্টেলিজেন্স' বেশি।

 

১৩. মানুষ বিষয়ে সঠিক পর্যবেক্ষণ মানুষ সময়ে সময়ে পরিবর্তিত হয়। আপন যদি কারো অতীতের একটি সময়ের কথা চিন্তা করে তার সম্পর্কে একটি ধারণা করে বসে থাকেন তাহলে তা ভুল হবে। আপনি যদি অন্যদের চারিত্র কেমন তা দক্ষতার সঙ্গে বিশ্লেষণ করতে পারেন তাহলে তা আপনার এ বিষয়ে 'ইমোশনাল ইন্টেলিজেন্স' বেশি থাকার প্রমাণ।

 

১৪. নিজের শক্তি ও দুর্বলতা জানা 'ইমোশনালি ইন্টেলিজেন্ট' ব্যক্তিরা নিজের শক্তি ও দুর্বলতা বিষয়ে যথেষ্ট জ্ঞান রাখে। তারা নিজেদের কোথায় শক্তি রয়েছে এবং কোথায় দুর্বলতা রয়েছে, এসব বিষয়ে নিজেদের যথেষ্ট জ্ঞান রাখে।

 

১৫. আপনার আবেগ আপনার বিরুদ্ধেও ব্যবহৃত হতে পারে আপনার নিজের আবেগ, আচরণ ও অন্যদের কোনো আচরণে আপনার ক্রিয়া ও প্রতিক্রিয়া কেমন হয়, তা ভালোভাবে লক্ষ করেন কী? এ আবেগ অন্যরা আপনার বিরুদ্ধেও ব্যবহার করতে পারে, এ বিষয়টি আপনার জানা রয়েছে? জানা থাকলে বুঝতে হবে আপনার আবেগগত বুদ্ধিমত্তা ভালো।   


Top