‘জিনের বাদশা’র গোলাপজল খেয়ে ক্যান্সার রোগীর মৃত্যু | daily-sun.com

‘জিনের বাদশা’র গোলাপজল খেয়ে ক্যান্সার রোগীর মৃত্যু

ডেইলি সান অনলাইন     ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৪:২৭ টাprinter

‘জিনের বাদশা’র গোলাপজল খেয়ে ক্যান্সার রোগীর মৃত্যু

কুমিল্লার কথিত কবিরাজের হাতে ক্যান্সার আক্রান্ত শামীম খান (৪৫) নামে এক রোগীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। সোমবার (৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় চান্দিনা উপজলার বাড়েরা ইউনিয়নের ছাতাড্ডা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

 

অভিযোগ উঠেছে, নিজেকে ‘জিনের বাদশা’ পরিচয় দেয়া কথিত ওই কবিরাজ রোগী শামীমকে ১০৭ বোতল জল পান করার নির্দেশ দেন। সে মোতাবেক শামীম ৬০ বোতল পানীয় শেষ করার পর অসুস্থ হয়ে পড়ে। কিন্তু কবিরাজ তাকে আরো খাওয়ার জন্য মারধর করতে থাকে। এক পর্যায়ে অচেতন হয়ে পড়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি।

 

নিহত শামীম খান চাঁদপুর জেলার মতলব দক্ষিণ উপজেলার পাঁচঘড়িয়া গ্রামের মাহবুব খানের ছেলে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লার চান্দিনার ছাতাড্ডা গ্রামের ‘জিনের বাদশা’ খ্যাত কবিরাজ আবুল কালাম দূরারোগ্য রোগের চিকিৎসা করেন এমন সংবাদ পেয়ে ক্যান্সার আক্রান্ত শামীম তার কাছে চিকিৎসা নিতে আসেন।

 

সোমবার বিকেলে সেখানে আসার পর কবিরাজ তাকে ১০৭টি গোলাপ জল এবং ৮টি গামছা আনার জন্য বলেন। কবিরাজের কথা মত সেগুলো সংগ্রহ করেন রোগী শামীম। এসময় কবিরাজ তাকে সবগুলো গোলাপ জল খেতে দেন।

কবিরাজের কথামত রোগী শামীম ৬০ বোতল গোলাপ জল খাওয়ার পর আর খেতে পারছিলেন না। এ সময় কবিরাজ আবুল কালাম সবগুলো গোলাপজল খেতে রোগী শামীমকে শারীরিক নির্যাতন করা শুরু করে। একপর্যায়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় মারা যান শামীম।

 

এদিকে অপচিকিৎসায় রোগীর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়। তাৎক্ষণিকভাবে এলাকাবাসী ভণ্ড কবিরাজ আবুল কালামকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। রাত ৯টায় চান্দিনা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে এবং ভণ্ড কবিরাজ আবুল কালামকে আটক করে। আবুল কালাম ছাতাড্ডা গ্রামের আব্দুল মমিনের ছেলে।

 

বিষয়টি নিশ্চিত করে চান্দিনা থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মুহাম্মদ শামছুল ইসলাম জানান, ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ‘জীনের বাদশা’ খ্যাত ভণ্ড কবিরাজকে আটক করা হয়েছে।

এ ঘটনায় নিহতের পরিবার থানায় একটি মামলা দায়ের করছেন বলেও জানান ওসি।

 


Top