খাগড়াছড়িতে হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিটি, সোমবার সড়ক অবরোধ করবে ইউপিডিএফ | daily-sun.com

খাগড়াছড়িতে হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিটি, সোমবার সড়ক অবরোধ করবে ইউপিডিএফ

ডেইলি সান অনলাইন     ১৯ আগস্ট, ২০১৮ ১৯:২০ টাprinter

খাগড়াছড়িতে হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিটি, সোমবার সড়ক অবরোধ করবে ইউপিডিএফ

 

খাগড়াছড়িতে দুই দফা গোলাগুলিতে সাত জন নিহতের ঘটনায় পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।   জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলামের নির্দেশে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং ১৫ কর্মদিবসের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।


অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু ইউসুফের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটিতে আরও রয়েছেন- সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাসমুল তাবরিজ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সালাউদ্দিন, খাগড়াছড়ি আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. নয়নময় ত্রিপুরা, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের একজন সহকারী পরিচালক। ১৫ কর্মদিবসের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।


এদিকে নেতাকর্মীসহ সাত জনকে হত্যার ঘটনায় সোমবার (২০ আগস্ট) খাগড়াছড়িতে অর্ধদিবস সড়ক অবরোধের ডাক দিয়েছে ইউপিডিএফ। ইউপিডিএফের প্রচার বিভাগের প্রধান নিরন চাকমা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।


উল্লেখ্য, খাগড়াছড়ির স্বর্নিভর বাজারে শনিবার (১৮ আগস্ট) সকালে পাহাড়ি সংগঠন ইউপডিএফের এক কর্মসূচি শুরুর আগে সন্ত্রাসীদের গোলাগুলিতে ছয় জন নিহত হন। গুলিবিদ্ধ হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন আরও তিনজন। পরে ওই দিন বিকেলে খাগড়াছড়ি জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় সমর বিকাশ চাকমার (৪৮)।


ঘটনাস্থলে নিহত ৬ জন হলেন- পলাশ চাকমা, জেলা সভাপতি গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম, তপন চাকমা, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ, খাগড়াছড়ি জেলা শাখা, লটন চাকমা, যুগ্ম সম্পাদক পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ, খাগড়াছড়ি জেলা শাখা, জিতায়ন চাকমা (স্বাস্থ্য সহাকরী) মহালছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, বিধান চাকমা (চা দোকানদার), অনুপম চাকমা (ছাত্র)।


এছাড়া গুলিবিদ্ধ সুকিরন চাকমা (৩৫) ও সোহেল চাকমাকে (২২) চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।


জানা গেছে, ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) শনিবার সকালে গ্রামবাসীদের নিয়ে একটি সমাবেশ ও বিক্ষোভ করার কথা ছিল। তার আগেই এ ঘটনা ঘটে।


স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আনুমানিক সকাল সাড়ে ৮টার দিকে শহরের অদূরে স্বনির্ভর বাজার ও আশপাশ এলাকায় আকস্মিকভাবে অস্ত্রধারী দুর্বৃত্তরা গুলি করলে ঘটনাস্থলেই ৬ জন নিহত হয়। নিহতদের মধ্যে সবাই ইউপিডিএফ সমর্থক নেতা ও কর্মী।  


ইউপিডিএফ-এর জেলা সমন্বয়কারী অংগ্য মারমা ঘটনার জন্য সংস্কারপন্থী জনসংহতি সমিতিকে দায়ী করেছে। অবশ্য জনসংহতি সমিতি অভিযোগ অস্বীকার করেছে।


এদিকে শনিবার সকালে দুর্বৃত্তদের হামলার পর দুপুরে আবারও ইউপিডিএফ সমর্থকদের উপর হামলা হয়েছে। এতে নারীসহ ৪ জন আহত হয়েছেন। খাগড়াছড়ি সদরের পেরাছড়া এলাকায় শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এই হামলার ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন- ভাইবোন ছড়ার ৫নম্বর যৌথ খামার এলাকার সন কুমার চাকমা, খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের ১ম বর্ষের ছাত্রী উর্মি চাকমা, গুলকানা গ্রামের বাসিন্দা মিনু চাকমা ও শিবন্দির এলাকার সোনা রঞ্জন চাকমা।

 


Top