শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উস্কানি: ৫১ মামলায় গ্রেপ্তার ৯৭ জন | daily-sun.com

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উস্কানি: ৫১ মামলায় গ্রেপ্তার ৯৭ জন

ডেইলি সান অনলাইন     ১৭ আগস্ট, ২০১৮ ১৪:২৭ টাprinter

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উস্কানি: ৫১ মামলায় গ্রেপ্তার ৯৭ জন

 

রাজধানীতে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার পর নিরাপদ সড়ক ও শিক্ষার্থীবান্ধব পরিবহন ব্যবস্থার দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ও বিক্ষোভে উস্কানি দেয়ার অভিযোগে ৫১ মামলায় এখন পর্যন্ত ৯৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের নিউজ পোর্টাল ডিএমপি নিউজের এক খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

 


খবরে বলা হয়, গত ২৯ জুলাই আন্দোলন শুরুর পর থেকে গত শনিবার (১১ আগস্ট) পর্যন্ত তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।


এদের মধ্যে দণ্ডবিধি ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে দায়ের করা ৪৩ মামলায় ৮১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর মধ্যে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ২২ শিক্ষার্থীও আছেন, যারা এখন কারাগারে রয়েছেন। এছাড়া, তথ্য-প্রযুক্তি আইনে ৮টি মামলায় ১৬জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।


এদিকে, একই অভিযোগে বুধবার রাজধানী থেকে এক বিশ্ববিদ্যালয় ও এক মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ আন্দোলনে নানাভাবে গুজব ছড়ানো ব্যক্তিদের শনাক্তে পুলিশ তৎপর রয়েছে বলেও জানানো হয়েছে ডিএমপি নিউজে।


প্রসঙ্গত, গত ২৯ জুলাই দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হোটেল রেডিসনের বিপরীতে জাবালে নূর পরিবহনের একটি বেপরোয়া বাস চাপায় শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল এন্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত ও অন্তত ১২ শিক্ষার্থী আহত হন। নিহতদের একজন ওই কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম রাজিব (১৬), অন্যজন একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মিম (১৫)।    


ঘটনার দিনই নিহত দিয়া খানম মিমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা করেন।

মামলা নং ৩৩ (৭) ১৮।


এছাড়া এই দুর্ঘটনার দিন থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করে কলেজটির শিক্ষার্থীরা। এরপর নিরাপদ সড়ক, শিক্ষার্থীবান্ধব পরিবহন ব্যবস্থা, নৌমন্ত্রী ও সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী সভাপতি শাজাহান খানের পদত্যাগসহ ৯ দফা দাবিতে টানা নয়দিন রাজপথে আন্দোলনে ছিল দেশের বিভিন্ন স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রী।


তবে এই আন্দোলনের শেষ দিকে আন্দোলনকারীদের উপর হামলা হয় কয়েকটি স্থানে। এরপর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরাও নামে সড়কে; তাদের সঙ্গে পুলিশের সংঘাতও বাঁধে। তখন বেশ কয়েকজন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকে গ্রেপ্তার করা হয়।


এই আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে নিতে ইন্টারনেটে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ও বিভ্রান্তিমূলক প্রচারের অভিযোগেও আলোকচিত্রী শহিদুল আলম ও অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদসহ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার এই আসামিদের মধ্যে শহিদুল ও নওশাবা ছাড়াও রয়েছেন বুয়েটের ছাত্র  দাইয়ান নাফিস প্রধান।


কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের নেতা ইডেন কলেজের ছাত্রী শামসুন নাহার লুনা, ইউল্যাবের ছাত্র আহমাদ হোসাইন, নাজমুস সাকিবকেও গ্রেপ্তার করা হয় তথ্য প্রযুক্তি আইনের মামলায়।


এদিকে বেপরোয়া বাসচাপায় ওই দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর প্রধানমন্ত্রী তার অঙ্গীকার অনুযায়ী আজ সকালেই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের কুর্মিটোলায় শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুলের সামনে পথচারী আন্ডারপাস নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিহত দুই শিক্ষার্থীর পরিবারকে ২০ লাখ টাকা করে সঞ্চয়পত্র প্রদান করেছেন। এছাড়া ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য পাঁচটি বাসও হস্তান্তর করেছেন প্রধানমন্ত্রী।


উল্লেখ্য, ঘাতক ওই বাসের চালকের লাইসেন্স ছিলনা। এছাড়া বাসটির ফিটনেস সার্টিফিকেটও ছিল মেয়াদোতীর্ণ। বর্তমানে ঘাতক বাসটির চালক ও মালিক দুইজনই বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড শেষে কারাগারে রয়েছেন।

 

আরও পড়ুন:

 

আন্দোলনে গুজব: কোটা আন্দোলনের নেত্রী লুনা রিমান্ডে

 

ফেসবুকে ‘উস্কানিমূলক’ পোস্ট দেয়ায় ২ জন গ্রেফতার

 

শহিদুল আলমের চিকিৎসার আদেশ আপিলে বহাল

 

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উসকানি: জুমবাংলার সিইও ও বুয়েট শিক্ষার্থী দাইয়ান রিমান্ডে

 

মিম ও করিমের পরিবারকে পাঁচ লাখ টাকা করে দিতে রাজি জাবালে নূর

 

রিমান্ড শেষে কারাগারে আলোকচিত্রী শহিদুল আলম

 

আন্দোলন নিয়ে ফেসবুক লাইভে গুজব, অভিনেত্রী নওশাবা ফের রিমান্ডে


শহিদুল ‘সরকারবিরোধী কার্যক্রমের’ তথ্য দিচ্ছেন: দাবি পুলিশের


আলোকচিত্রী শহিদুলকে শারীরিক-মানসিক নির্যাতন করা হয়েছে কিনা: হাইকোর্ট


শহীদুল আলমকে হাসপাতালে পাঠানো স্থগিতে রাষ্ট্রপক্ষের আপিল


আলোকচিত্রী শহিদুলকে বিএসএমএমইউ’তে চিকিৎসা দেয়ার নির্দেশ


আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের রিমান্ড চ্যালেঞ্জ করে রিট


৭ দিনের রিমান্ডে আলোকচিত্রী শহিদুল


আলোকচিত্রী শহিদুলের বিরুদ্ধে তথ্য-প্রযুক্তি আইনে মামলা


জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আলোকচিত্রী শহিদুলকে আনা হয়েছে: পুলিশ

 

 


Top