১১ বছর আগেকার মতো আবারো একটি সংবাদমাধ্যম অপপ্রচার চালাচ্ছে: কাদের | daily-sun.com

১১ বছর আগেকার মতো আবারো একটি সংবাদমাধ্যম অপপ্রচার চালাচ্ছে: কাদের

ডেইলি সান অনলাইন     ১৬ আগস্ট, ২০১৮ ১৯:১৮ টাprinter

১১ বছর আগেকার মতো আবারো একটি সংবাদমাধ্যম অপপ্রচার চালাচ্ছে: কাদের

 

দেশে আবারো ২০০৭ সালের মতো জরুরি অবস্থা তৈরির ষড়যন্ত্র টের পেয়েছেন ওবায়দুল কাদের। ১১ বছর আগেকার মতো আবারো একটি সংবাদমাধ্যম ও একটি দলের উসকানিতে শেখ হাসিনা সরকারকে উৎখাতের চেষ্টা চলছে বলে সবাইকে সতর্ক থাকার উপদেশ দেন তিনি।

জাতীয় শোকে দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১৬ আগস্ট) ইডেন মহিলা কলেজে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।


তিনি বলেন, ‘১/১১’র ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছি। যারা রাজনৈতিক বিরাজনীতিকরণ করতে চেয়েছিল, তাদের সহযোগী ছিল মিডিয়ার একটি অংশ। সেই মিডিয়া একটি দলের উস্কানিতে শেখ হাসিনা সরকার হটানোর ষড়যন্ত্রে নেমেছে। তারাই অপপ্রচার চালাচ্ছে।


এসময় তিনি আরো বলেন, বিএনপির সঙ্গে আলোচনা হওয়া অবস্থা নেই, বিএনপির রাজনীতি মিথ্যাচার ও গুজব ছড়ানো।


খালেদা জিয়ার জন্মদিন পালনের কথা তুলে ধরে কাদের বলেন, ‘আমাদের দেশের রাজনীতির কারও কারও আচরণ বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের চেয়েও নৃশংস। এখানেই আমাদের প্রশ্ন রাখা উচিত, স্কুলে, বিবাহে, পাসপোর্টসহ বিভিন্নভাবে মোট পাঁচটি জন্ম দিবস। এখন তারা জন্মদিন পালন করছে ফরমেট চেঞ্জ করে।

তাদের আমরা ঘৃণা করি, ধিক্কার জানাই। ভুয়া জন্মদিন পালন করা একটা পাপ, একটা অপরাধ। বাংলাদেশে এই ধরনের নোংরা দৃষ্টান্ত যারা স্থাপন করেছে তারাই আজ অগণতান্ত্রিকভাবে সরকার হটানোর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত আছে। ’


ছাত্রলীগের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক বলেন, ‘মেয়েদেরকে দলে নেয়ার নামে রুমে আটকে ব্যক্তিগত কাজ করানো হয়। এসব কিছুই আমি জানি। আমাকে ডেকে এনে বিপদে পড়েছ। আমি এগুলো বলবোই। আমার এখানে কোনো গ্রুপ নেই। ছাত্রলীগ আমার দৃষ্টিতে সবার মতো একই। আমার সৎ সাহস আছে কথা বলার। ’


তিনি বলেন, ‘আজকে আমরা কিছু নেতা সৃষ্টি করলাম, সাধারণ ছাত্রছাত্রীরা তাদের পছন্দ করে না, এই ছাত্রলীগের দরকার নেই। যাদের নেতা বানালাম, তারা নেতৃত্ব দিয়ে ছাত্রলীগের ইমেজ বাড়াবে, সমর্থক বাড়াবে, কর্মী বাড়াবে। ’


সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, এখানে বসে হাততালি না দিলে বঙ্গবন্ধু খুশি হবেন, তার আত্মা শান্তি পাবে, শান্তি পাবেন তখন, যখন আমরা অপকর্ম করা থেকে বিরত থাকব, তখনই তার আত্মা শান্তি পাবে। সবাই বিবেককে জিজ্ঞাসা করুন, বঙ্গবন্ধুকে সবাই কতটা সম্মান করি। তার আদর্শ আমাদের জীবনে কতটুকু প্রভাব ফেলেছে? সেটাই আজ আমাদের আত্ম জিজ্ঞাসা করার সময় এসেছে।


ইডেন কলেজ শাখা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক তাসলিমা আক্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ সম্পাদক সামসুন্নাহার চাঁপা, কেন্দ্রীয় সদস্য মারুফা আক্তার পপি, ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন।

 


Top