ম্যাসাজে মিলবে দৈহিক ও মানসিক সমস্যায় মুক্তি | daily-sun.com

ম্যাসাজে মিলবে দৈহিক ও মানসিক সমস্যায় মুক্তি

ডেইলি সান অনলাইন     ৩০ আগস্ট, ২০১৬ ১৯:৩১ টাprinter

ম্যাসাজে মিলবে দৈহিক ও মানসিক সমস্যায় মুক্তি

 

 

দেহের ক্লান্তি জড়তা দূর করতে একটা ম্যাসাজ দারুন উপকারী। পরিশ্রমী কাজের আগে বা পরে ম্যাসাজ করে আরাম পেতে পারেন। এতে আরাম মেলে এবং পুনরুজ্জীবিত হওয়া যায়। এখানে বিশেষজ্ঞরা ৩ ধরনের বিশেষ ম্যাসাজের কথা তুলে ধরেছেন। এর মাধ্যমে মিলবে দারুণ উপকারিতা।

 

১. 'তুই না' থেরাপিউটিক ম্যাসাজ : সম্প্রতি এই ম্যাসাজের উপকারিতা সম্পর্কে সচেতন মানুষ। চীনে পুরনো আমল থেকে চলে আসছে এই ম্যাসাজ। কেবল আরাম পাওয়ার চেয়ে বেশি কিছু মেলে এটা থেকে। চীনের বিভিন্ন হাসপাতালে রীতিমতো বেশ কয়েকটি রোগের চিকিৎসার অংশ হয়ে ওঠেছে 'তুই না' ম্যাসাজ। আকুপাংচার প্রয়োগ করা হয়। প্রাণশক্তির স্ফূরণ ঘটার যত বাধা দূর করা হয়। একে বরা হয় 'কুই' বা 'চি'। এর মাধ্যমে দেহে রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পায়। অনেক ধরনের কাজ করা হলেও যেকোনো বয়সী মানুষ এটি নিতে পারেন অনায়াসে। মানসিক চাপ দূর করতে ওস্তাদ এবং ঘুমের সমস্যা চলে যায়।

 

২. ক্র্যানিওস্যাকরেল থেরাপি : অয়েস্টোপ্যাথির একটি শাখা ক্র্যানিওস্যাকরেল থেরাপি (সিএসটি)। এ পদ্ধতিতে থেরাপিস্টরা মাথা, মেরুদণ্ডের ভিত্তিমূলে এবং দেহের অন্যান্য অংশে হালকা চাপ প্রয়োগ করেন। এর মাধ্যমে মাথাব্যথা ও পিঠে ব্যথা থেকে মুক্তি মেলে। আমেরিকা ও ব্রিটেনে জনপ্রিয় ম্যাসাজ এটি। প্রতিকূল অবস্থায় শিশু জন্মের পর তার স্বাস্থ্যগত জটিলতা দূর করতেও দেওয়া হয় ক্র্যানিওস্যাকরেল থেরাপি। অয়েস্টোপ্যাথের কিছু অংশ, সাধারণ থেরাপিস্ট, চিরোপ্র্যাকটোর্স এবং নেচারোপ্যাথিক বিশেষজ্ঞদের সিএসটি বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

 

৩. চি নি সাং ম্যাসাজ : চীনের চিকিৎসায় স্নায়ুতন্ত্র হলো আবেগের মূল কেন্দ্র। তবে মানসিক চাপ, অস্বাস্থ্যকর খাবার এবং শ্বাস-প্রশ্বাসে সমস্যার কারণে পাকস্থলীতে সমস্যা দেখা দিতে পারে। 'চি নি সাং' ম্যাসাজ দেহের ৫টি অংশে কাজ করে। রক্তনালী, লসিকাগ্রন্থি, স্নায়ুতন্ত্র, পেশি এবং কুই (শক্তি) নিয়েই জাদু দেখায় এই ম্যাসাজ পদ্ধতি। স্নায়ুতন্ত্রকে স্বস্তি দেয় এটি। গোটা দেহে শক্তির যথাযথ বিচরণ নিশ্চিত করে। এই ম্যাসাজের মাধ্যমে দেহের হজমশক্তি বাড়ে। সেই সঙ্গে দেহের বিষাক্ত উপাদানের প্রভাব কাটিয়ে ওঠা যায়। অনেক ম্যাসাজ বিশেষজ্ঞের এই ম্যাসাজ বিষয়ে প্রশিক্ষণ নেওয়া রয়েছে।

 

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

 


Top