নরসিংদীতে বাস-বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭ | daily-sun.com

নরসিংদীতে বাস-বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭

ডেইলি সান অনলাইন     ১৪ আগস্ট, ২০১৮ ১৩:৩৬ টাprinter

নরসিংদীতে বাস-বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭

 

নরসিংদীর শিবপুর উপজেলায় যাত্রীবাহী বাস ও বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে সাতজনে দাঁড়িয়েছে। মঙ্গলবার (১৪ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৭টায় উপজেলার সোনাইমুড়িরটেক এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় বর-কনেসহ আহত হন অন্তত ১৭ যাত্রী। মাইক্রোবাসটি বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে বরযাত্রী নিয়ে পলাশ উপজেলার দিকে যাচ্ছিল।


নিহতরা হলেন- শুভ বর্মন (৩০), সজল বর্মন (২০), সিগ্ধা (৮), প্রান্তিকা (৬), বৃষ্টি (৭), সৌরভ বর্মন (১২) ও অজ্ঞাত ক্যামেরাপারসন (২৮)। নিহতদের সবার বাড়ি চাঁদপুর জেলার মতলবে।


পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে ঢাকা থেকে সিলেটগামী মিতালী পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস সোনাইমুড়িরটেক এলাকায় পৌঁছালে বাসটির চাকা ফেটে যায়। এসময় বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারালে নরসিংদী থেকে পলাশ উপজেলাগামী একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তিন জন নিহত হয় এবং নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে আরও একজন নিহত হয়।  


বর রাজীব বর্মণের দুলাভাই লক্ষণ বর্মণ জানান, আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পর নরসিংদী জেলা হাসপাতাল একজন ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

 


শিবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ জানান, সকাল সাড়ে সাতটার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সোনাইমুড়ি টেক এলাকায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা সিলেটগামী মিতালী পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

এতে ঘটনাস্থলেই মাইক্রোবাসের চার যাত্রী নিহত হন। বর-কনেসহ আহত হন অন্তত ১৭ যাত্রী।


তিনি আরও জানান, মাইক্রোবাসটি বিয়ের পর বরযাত্রী নিয়ে পলাশ উপজেলার দিকে যাচ্ছিল। নিহতদের মরদেহ উদ্ধারের জন্য ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।  


ইটাখোলা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির সার্জেন্ট হাফিজুর রহমান বলেন, মিতালী পরিবহনের যাত্রীবাহী বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। বাসটিকে আটক করা গেলেও চালক পালিয়ে গেছে।

 


Top