এবার রংপুরে বাসচাপায় স্কুলছাত্র নিহত | daily-sun.com

এবার রংপুরে বাসচাপায় স্কুলছাত্র নিহত

ডেইলি সান অনলাইন     ১২ আগস্ট, ২০১৮ ১৪:৫২ টাprinter

এবার রংপুরে বাসচাপায় স্কুলছাত্র নিহত

 

রংপুর মহানগরীর দর্শনায় যাত্রবাহী বাসচাপায় জিয়ন নামে এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। রবিবার (১২ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ওই এলাকার ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের শুটকি আড়তের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার প্রতিবাদে সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করছেন স্থানীয়রা। জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল-এ) সাইফুর রহমান গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।


তিনি জানান, নিহত জিয়ন বদরগঞ্জের লোহানীপাড়া ইউনিয়নের মন্ডলের হাট গ্রামের জাহিদুল ইসলামের ছেলে এবং নগরীর কালেক্টরেট স্কুল অ্যান্ড কলেজের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী। সে দর্শনার ঘাঘটপাড়া এলাকার একটি ছাত্রাবাসে থেকে পড়াশোনা করতো। সকালে প্রাইভেট পড়া শেষে মেসে ফেরার সময় গাইবান্ধা থেকে ছেড়ে আসা রংপুরগামী একটি বাস ওই এলাকায় তাকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় জিয়ন।


এদিকে এ দুর্ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়লে মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে স্থানীয়রা। জিয়নের মরদেহ নিতে আসা অ্যাম্বুলেন্সও ভাঙচুর করেন বিক্ষোভকারীরা। ফলে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

 


সাইফুর রহমান বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে পুলিশ।


প্রসঙ্গত, গত ২৯ জুলাই দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হোটেল রেডিসনের বিপরীতে জাবালে নূর পরিবহনের একটি বেপরোয়া বাস চাপায় শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল এন্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত ও অন্তত ১২ শিক্ষার্থী আহত হন। নিহতদের একজন ওই কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম রাজিব (১৬), অন্যজন একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মিম (১৫)।   


এই দুর্ঘটনার দিন থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করে কলেজটির শিক্ষার্থীরা। এরপর নিরাপদ সড়ক, শিক্ষার্থীবান্ধব পরিবহন ব্যবস্থা, নৌমন্ত্রী ও সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী সভাপতি শাজাহান খানের পদত্যাগসহ ৯ দফা দাবিতে টানা নয়দিন রাজপথে আন্দোলনে ছিল দেশের বিভিন্ন স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রী।


এদিকে বেপরোয়া বাসচাপায় ওই দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর প্রধানমন্ত্রী তার অঙ্গীকার অনুযায়ী আজ সকালেই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের কুর্মিটোলায় শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুলের সামনে পথচারী আন্ডারপাস নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিহত দুই শিক্ষার্থীর পরিবারকে ২০ লাখ টাকা করে সঞ্চয়পত্র প্রদান করেছেন। এছাড়া ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য পাঁচটি বাসও হস্তান্তর করেছেন প্রধানমন্ত্রী।


প্রসঙ্গত, ঘাতক ওই বাসের চালকের লাইসেন্স ছিলনা। এছাড়া বাসটির ফিটনেস সার্টিফিকেটও ছিল মেয়াদোতীর্ণ। বর্তমানে ঘাতক বাসটির চালক ও মালিক দুইজনই বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড শেষে কারাগারে রয়েছেন।

 


Top