আরিফুলের বিজয় মিছিল শেষে সংঘর্ষ, ছাত্রদল নেতা নিহত | daily-sun.com

আরিফুলের বিজয় মিছিল শেষে সংঘর্ষ, ছাত্রদল নেতা নিহত

ডেইলি সান অনলাইন     ১২ আগস্ট, ২০১৮ ০৯:২০ টাprinter

আরিফুলের বিজয় মিছিল শেষে সংঘর্ষ, ছাত্রদল নেতা নিহত

 

সিলেট সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর বিজয় মিছিল শেষে তারই বাসার সামনে ছাত্রদলের এক নেতাকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ছাত্রদলের আরও দুই কর্মী আহত হয়েছে।

নিহত ছাত্রদল নেতার নাম ফজলুল হক রাজু। তিনি জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহপ্রচার সম্পাদক ও নগরীর উপশহরের বি ব্লকের ফজর আলীর ছেলে।


শনিবার (১২ আগস্ট) রাত সাড়ে ৯টার দিকে আরিফের কুমারপাড়াস্থ বাসার সামনে হামলার এই ঘটনা ঘটে। রাত ১১ টার দিকে হাসপাতালে রাজু মারা যান।


হামলার সময় আরিফুল হক চৌধুরী বাসায় ছিলেন বলে জানা গেছে। জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে সৃষ্ট বিরোধের জের ধরে পদধারী ও পদবঞ্চিতদের মধ্যে সংঘর্ষের এই ঘটনা ঘটেছে বলে ছাত্রদলের একাধিক নেতা জানিয়েছেন।


মেয়র হিসেবে আরিফুল হক পুনরায় নির্বাচিত হওয়ায় বিজয় মিছিল নিয়ে আরিফের বাসার সামনে আসেন ছাত্রদলের বিভিন্ন গ্রুপের নেতাকর্মীরা। মিছিল শেষে মেয়রের বাসার সামনে ছাত্রদল কমিটির পদবঞ্চিত রাজুকে পেয়ে হামলা করে অপর গ্রুপের কর্মীরা। ওই সময় রাজু তার আরও দুই সহকর্মীকে নিয়ে মোটরসাইকেলে যাচ্ছিলেন।

হামলার পর গুলি ছোড়া হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন।


হামলায় আহত রাজু ও উজ্জ্বলকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত অপর জনের নাম জানা যায়নি। রাত ১১টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজু মারা যান। রাজুর শরীরে একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। রাজু এমসি কলেজে মাস্টার্স ও ল কলেজের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিন ভাই ও এক বোনের মধ্যে রাজু সবার বড়। তাদের গ্রামের বাড়ি সিলেটের বিশ্বনাথে।


কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশাররফ হোসেন জানিয়েছেন, হামলার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। হামলাকারীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।


ওসমানী হাসপাতালের উপ পরিচালক ডা. দেবপদ রায় জানিয়েছেন, রাজুর অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল। তার শরীরে অনেক আঘাত করা হয়েছে। রক্তক্ষরণ হয়েছে প্রচুর। রাত ১১টার দিকে তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।


রাজুর মৃত্যুর পর রাত সাড়ে ১১টার দিকে মেয়র আরিফুল হাসপাতালে গিয়ে শোক প্রকাশ করেন।


সংঘর্ষ সম্পর্কে তিনি বলেন, “সন্ত্রাসীরা হামলা করে রাজুকে হত্যা করেছে। আমি এর বিচার চাই। ”

 


Top