ট্রাফিক সপ্তাহের ৬ দিনে মামলা দেড় লাখ, জরিমানা পৌনে ৪ কোটি | daily-sun.com

ট্রাফিক সপ্তাহের ৬ দিনে মামলা দেড় লাখ, জরিমানা পৌনে ৪ কোটি

ডেইলি সান অনলাইন     ১১ আগস্ট, ২০১৮ ১১:৩৫ টাprinter

ট্রাফিক সপ্তাহের ৬ দিনে মামলা দেড় লাখ, জরিমানা পৌনে ৪ কোটি

 

নিরাপদ সড়ক ও শিক্ষার্থীবান্ধব পরিবহন ব্যবস্থার দাবিতে শিক্ষার্থীদের টানা ৯ দিনের আন্দোলনের মধ্যেই শুরু হওয়া ট্রাফিক সপ্তাহের ছয় দিনে এক লাখ ৫৪ হাজার ৫৩টি মামলা দিয়েছে পুলিশ। পাশাপাশি জরিমানা করেছে তিন কোটি ৭৭ লাখ ৫৯ হাজার ২২৩ টাকা।

এ সময় ৪০ হাজার ৬৩০ চালকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা ও তিন হাজার ৫৪৪ যানবাহন আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ সদর দফতর।  


 গত ৫ আগস্ট থেকে শুরু হওয়া ট্রাফিক সপ্তাহের গত ছয় দিনের অভিযানে যানবাহনের ফিটনেস, রেজিস্ট্রেশন এবং ট্রাফিক আইন অমান্যের ঘটনায় সারাদেশে এক লাখ ১৩ হাজার ৪২৩টি যানবাহনের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে পুলিশ। জরিমানা করা হয়েছে তিন কোটি ৭৭ লাখ ৫৯ হাজার ২২৩ টাকা।


এছাড়া ৪০ হাজার ৬৩০ চালকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা ও তিন হাজার ৫৪৪টি যানবাহন আটক করেছে।  


এদিকে ট্রাফিক সপ্তাহের ষষ্ঠ দিনে ট্রাফিক আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে ৩ হাজার ২৮১টি মামলা করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ। আটক করা হয়েছে ৪৫টি মোটর সাইকেল। শুক্রবার (১০ আগস্ট) সকাল ৭টা থেকে বিকাল পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে এসব মামলা করা হয়।


ট্রাফিক বিভাগ জানায়, উল্টোপথে গাড়ি চালানোর কারণে ৩২০টি, হাইড্রোলিক হর্ন ব্যবহার করার অপরাধে ১৩৯টি, হুটার ও বিকন লাইট ব্যবহার করার জন্য ১০টি, মাইক্রোবাসে কালো গ্লাস ব্যবহার করায় ২৪টি ও বিভিন্ন স্টিকার ব্যবহার করার দায়ে একটি গাড়ির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।


এছাড়াও ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকায় ৯৫৬টি, গাড়ির ফিটনেস না থাকার কারণে ১৮৭টি, ট্রাফিক আইন অমান্য করার কারণে ১ হাজার ৫৭৮টি মোটরসাইকেলের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ফোন ব্যবহার করায় ২ ভিডিও এবং ১৯টি সরাসরি মামলা দেয়া হয়েছে।


নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে ৫ আগস্ট থেকে শুরু হয় ট্রাফিক সপ্তাহ, চলবে ১১ আগস্ট পর্যন্ত। রাজধানীর গুলিস্তানে সাত দিনব্যাপী এই বিশেষ ট্রাফিক সপ্তাহের উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।


প্রসঙ্গত, গত রবিবার (২৯ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হোটেল রেডিসনের বিপরীতে জাবালে নূর পরিবহনের একটি বেপরোয়া বাস চাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত ও অন্তত ১২ শিক্ষার্থী আহত হন। নিহতদের একজন ওই কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম রাজিব (১৬), অন্যজন একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মিম (১৫)। ঘটনার দিনই নিহত দিয়া খানম মিমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা করেন। মামলা নং ৩৩ (৭) ১৮।


এই দুর্ঘটনার দিন থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করে কলেজটির শিক্ষার্থীরা। এরপর ৯ দফা দাবিতে টানা নয়দিন রাজপথে আন্দোলনে ছিল দেশের বিভিন্ন স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রী।

 


Top