আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকরণ কৌশলপত্র এর উপর জাতীয় পর্যায়ে কর্মশালা | daily-sun.com

বাংলাদেশ ব্যাংক ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের যৌথ উদ্যোগে

আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকরণ কৌশলপত্র এর উপর জাতীয় পর্যায়ে কর্মশালা

ডেইলি সান অনলাইন     ১০ আগস্ট, ২০১৮ ১৯:৩৮ টাprinter

আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকরণ কৌশলপত্র এর উপর জাতীয় পর্যায়ে কর্মশালা

বাংলাদেশ ব্যাংক ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের যৌথ উদ্যোগে ‘বিজনেস ফাইন্যান্স ফর দি পুওর ইন বাংলাদেশ‘ শীর্ষক প্রকল্পের মাধ্যমে ইউকে-এইড এর সহায়তায় ০৯ আগস্ট দ্যা ওয়েস্টিন ঢাকায় বাংলাদেশের ‘জাতীয় আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকরণ কৌশলপত্র‘ এর উপর জাতীয় পর্যায়ে একটি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।  

 

 

উক্ত কর্মশালায় জনাব এ.এম.এ মুহিত, মাননীয় মন্ত্রী, অর্থ মন্ত্রণালয় প্রধান অতিথি এবং জনাব মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান, মাননীয় প্রতিমন্ত্রী, অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় গেস্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব আবুল কালাম আজাদ, এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, জনাব ফজলে কবির, গভর্নর, বাংলাদেশ ব্যাংক, জনাব আব্দুর রউফ তালুকদার, ভারপ্রাপ্ত সচিব, অর্থ বিভাগ, অর্থ মন্ত্রণালয়, মিস জেইন এডমন্ডসন, কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ, ডিএফআইডি বাংলাদেশ। অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের অতিরিক্ত সচিব জনাব অরিজিৎ চৌধুরী কর্মশালায় স্বাগত বক্তত্য প্রদান করেন।

 

জাতীয় আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকরণ কৌশলপত্র এর প্রতিবেদনের লিড কনসালটেন্ট ড. মুস্তফা কে. মুজেরি প্রতিবেদনটি প্রস্তুতিতে তার অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন। পরবর্তীতে বাংলাদেশ ব্যাংকের উপপরিচালক জনাব আসিফ ইকবাল বাংলাদেশের ‘জাতীয় আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকরণ কৌশলপত্র’ এর উপর বিস্তারিত উপস্থাপনা প্রদান করেন। অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব জনাব মো. ইউনুসুর রাহমানের সঞ্চালনায় জাতীয় আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকরণ কৌশলপত্র এর উপর মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনায় ব্ক্তাগণ জাতীয় আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকরণ কৌশলপত্র এর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন এবং এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সরকারি ও বেসরকারি অংশীজনদের আন্তঃ সমন্বয়ের উপর জোর প্রদান করেন।

 

এ্যালায়ন্সে ফর ফাইন্যান্সয়িাল ইনক্লুশান (AFI) এর প্রথম সারির সদস্য হিসেবে বাংলাদেশ ২০১৪ সালে আন্তর্জাতিকভাবে আয়োজিত মায়া ডিক্লারেশন এ স্বাক্ষর করাসহ জাতীয় আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকরণ কৌশলপত্র প্রণয়নের অঙ্গীকার করে। ২০১৫ সালে জাতিসংঘের মহাসচিবের স্পেশাল এ্যাডভোকেট ফর ইনক্লুসিভ ফাইন্যান্স ফর ডেভেলপমেন্ট এর প্রাধিকারে নেদারল্যান্ডের রানী কুইন ম্যাক্সিমা এর বাংলাদেশ সফরেও এই প্রতিশ্রুতির কথা পুনর্ব্যক্ত করা হয়।

 

অধিকন্তু, টেকসই আর্থিক অন্তর্ভুক্তির জন্য বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ভিশনের ভিত্তিতে, আর্থিক অন্তর্ভুক্তির জন্য বাংলাদেশ সরকারের ফ্ল্যাগশিপ প্রকল্প ‘একটি বাড়ি একটি খামার‘ ২০০৯ সাল থেকে শুরু করে আর্থিক সেবা লাভের ক্ষেত্রে ব্যাপক ভূমিকা রেখেছে।

তদনুসারে, ২০১৬ সালে বাংলাদেশ ব্যাংক এবং অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ যুক্তরাজ্য সরকারের সহায়তায় বাংলাদেশের ‘জাতীয় আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকরণ কৌশলপত্র‘ এর একটি সম্পূর্ণ খসড়া তৈরির উদ্যোগ গ্রহণ করে। উক্ত কৌশলপত্র‘ এর ডায়াগনিষ্টিক স্টাডি রিপোর্ট সহ চূড়ান্ত খসড়াটি ২০১৮ সালের অক্টোবরে ছূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য মন্ত্রিসভাতে জমা প্রদান করা হবে। এলডিসি হতে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নিত হওয়ার সরকারের যে লক্ষ্য, তার সাথে সঙ্গতি রেখে বাংলাদেশের ‘জাতীয় আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকরণ কৌশলপত্র‘ এর সময়কাল ২০১৯-২০২৪ সাল নির্ধারণ করা হয়েছে।

 

উক্ত কর্মশালায় বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, সরকারী সংস্থা ও বাংলাদেশ ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ, সংশ্লিষ্ট উন্নয়ন সহযোগীদের দেশের প্রতিনিধিগণ, ব্যাংক ও নন-ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠান, বাণিজ্যিক সংগঠন, একাডেমিক ও গবেষণা সংস্থা, আর্থিক সেবা প্রদানকারী সংস্থাগুলোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহীগণ অংশগ্রহণ করেন। বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর জনাব আহমেদ জামাল কর্মশালায় সমাপনী বক্তব্য প্রদান করেন।


Top