রাজশাহী ও মুন্সীগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২ | daily-sun.com

রাজশাহী ও মুন্সীগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

ডেইলি সান অনলাইন     ২৯ জুলাই, ২০১৮ ১৩:৩২ টাprinter

রাজশাহী ও মুন্সীগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

 

রাজশাহী ও মুন্সীগঞ্জে র‌্যাবের সঙ্গে তথাকথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দু’জন নিহত হয়েছেন। শনিবার (২৮ জুলাই) মধ্যরাত ও রবিবার (২৯ জুলাই) ভোরে এ দু’টি বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা মাদক ব্যবসায়ী বলে জানিয়েছে র‌্যাব। এ ঘটনায় দুই র‌্যাব সদস্য আহত হয়েছেন।


রাজশাহী: রাজশাহীতে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক মাদক চোরাকারবারি নিহত হয়েছে। শনিবার (২৮ জুলাই) দিবাগত রাত ১২টার দিকে মহানগরীর নবগঙ্গা এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।


র‌্যাব-৫ এর উপ-অধিনায়ক মেজর এএম আশরাফুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।


তিনি জানান, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে নবগঙ্গা এলাকায় একটি দল টহলে যায়। এ সময় কলাবাগানের ভেতর টর্চের আলো দেখে এগিয়ে গেলে সেখানে উপস্থিত কয়েকজন ব্যক্তি র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। আত্মরক্ষায় র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। এরপর অন্যরা পালিয়ে গেলেও আহত অবস্থায় এক ব্যক্তি পড়ে থাকেন।

র‌্যাব সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তার মরদেহ রামেকের মর্গে রাখা হয়েছে।


তিনি জানান, ঘটনাস্থল থেকে একটি ম্যাগজিন ও দুই রাউন্ড গুলিসহ একটি পিস্তল এবং ৫৮ বোতল ফেন্সিডিল জব্দ করা হয়েছে। নিহত ব্যক্তির পরিচয় জানার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।


মুন্সীগঞ্জ: মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার বাঘরা ইউনিয়নে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী, শীর্ষ সন্ত্রাসী ও তাজেল বাহিনীর সেকেন্ড-ইন-কমান্ড সোহরাব হোসেন (৩৫) নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় দুই র‌্যাব সদস্য আহত হয়েছেন। রবিবার (২৯ জুলাই) ভোর পৌনে ৫টার দিকে ইউনিয়নের ছত্রভোগ গ্রামে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। র‌্যাব-১১ কোম্পানি কমান্ডার এএসপি মহিতুল ইসলাম গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।


তিনি জানান, ঘটনাস্থল থেকে ১টি বিদেশি পিস্তল, ১ রাউন্ড গুলি ও ৬০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে র‌্যাব।


মহিতুল ইসলাম জানান, র‌্যাবের কাছে তথ্য আসে একটি বড় ধরনের মাদকের চালান শ্রীনগরের ছত্রভোগ এলাকা দিয়ে পাচার হবে। এর ভিত্তিতে ভোররাত সাড়ে ৪টার দিকে র‌্যার-১১ ভাগ্যকুল ক্যাম্পের একটি দল সেখানে অভিযান চালায়। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা র‌্যাবের ওপর গুলিবর্ষণ শুরু করে। র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছোড়ে। গোলাগুলির একপর্যায়ে অন্যরা পালিয়ে যায় এবং ঘটনাস্থলে একজনের লাশ পড়ে থাকতে দেখা যায়।   


তিনি আরও জানান, পরবর্তীতে ছবির সঙ্গে মিলিয়ে দেখাযায় গুলিবিদ্ধ ওই যুবক ইউনিয়নের রুদ্রপাড়া গ্রামের ইউনুস শেখের ছেলে, মাদক ব্যবসায়ী ও শীর্ষ সন্ত্রাসী সোহরাব হোসেন।


সোহরাব হত্যা, অস্ত্র, ডাকাতি ও হত্যাচেষ্টাসহ ১৩ মামলার আসামি। ইউনুস শেখ তাজের বাহিনীর প্রধান তাজেলের বড়ভাই।


এ ঘটনায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে র‌্যাবের এএসআই রেজাউল ইসলাম ও সিপাহি মো. কামরুজ্জামান আহত হন। তাদের শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।


এএসপি মহিতুল ইসলাম আরও জানান, বেশ কয়েক বছর ধরে সোহরাব তার চাচা তাজেল বাহিনীর সঙ্গে যুক্ত হয়ে আড়িয়াল বিলসহ বিভিন্ন এলাকায় হত্যা, ডাকাতি, অপরহণ ও মাদক ব্যবসা করে আসছিল।

 

 


Top