শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ ও ‘ব্লাড মুন’ দেখলো বিশ্ববাসী | daily-sun.com

শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ ও ‘ব্লাড মুন’ দেখলো বিশ্ববাসী

ডেইলি সান অনলাইন     ২৮ জুলাই, ২০১৮ ১১:০২ টাprinter

শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ ও ‘ব্লাড মুন’ দেখলো বিশ্ববাসী

 

শতাব্দীর দীর্ঘতম পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ দেখলো বিশ্ব। ৬ ঘণ্টার গ্রহণে কখনো চাঁদের অনুজ্জ্বল ধূসর, কখনো বা রক্ত-লাল ‘ব্লাড মুন’ রূপ দেখা গেছে।

একুশ শতকের দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণের বিরল দৃশ্যের সাক্ষী হলো বিশ্বের অনেক দেশ। ইউরোপ, এশিয়া, আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া এমনকি নিউজিল্যান্ড থেকেও দেখা যায় চন্দ্রগ্রহণ।


১ ঘণ্টা ৪৩ মিনিটের পূর্ণগ্রহণসহ বিরল এই মহাজাগতিক দৃশ্যের পুরোটারই স্বাদ গ্রহণ করেছে বাংলাদেশও।


সবচেয়ে ভালো গ্রহণ দেখা যায় আফ্রিকার পূর্বাঞ্চল, মধ্যপ্রাচ্য এবং মধ্য এশিয়া থেকে। কেউ নদীর তীরে, কেউবা ভবনের ছাদে, কেউ আবার রাস্তায় দাঁড়িয়েই উপভোগ করেছেন চাঁদের এই অনন্য রূপ।


এবারের গ্রহণের সবচেয়ে বড় আকর্ষণ ছিলো ‘ব্লাড মুন’ বা লাল চাঁদ। পূর্ণগ্রহণের পর্যায়টিতে পরিচিত ধূসর রূপ ছেড়ে তামাটে রঙে ধরা দেয় চাঁদ।


ঢাকার বিজ্ঞান জাদুঘরে দর্শনার্থীদের জন্য চন্দ্রগ্রহণ দেখার আয়োজন করা হয়। বাংলাদেশের আকাশে মেঘ থাকায় চন্দ্রগ্রহণ দেখতে সমস্যা হলেও রাত জেগে শতাব্দীর দীর্ঘ চন্দ্রগ্রহণ দেখেছেন অনেকেই।


ঢাকার স্থানীয় সময় অনুযায়ী এই চন্দ্রগ্রহণের উপচ্ছায়া পর্যায় শুরু হয়েছে রাত ১১টা ১৩ মিনিটে, আংশিক চন্দ্রগ্রহণ শুরু রাত ১২টা ২৪ মিনিটে, পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ শুরু রাত দেড়টায়।


পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ সমাপ্ত রাত ৩টা ১৩ মিনিটে এবং আংশিক চন্দ্রগ্রহণ সমাপ্ত হয় রাত ৪টা ১৯ মিনিটে। একটা সময় লাল গ্রহ মঙ্গলও এসে পড়ে পৃথিবীর কাছে।


পরবর্তীতে এতো দীর্ঘ আরেকটি পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণের জন্য বিশ্বকে অপেক্ষা করতে হবে আরও ১০৫ বছর, ২১২৩ সাল পর্যন্ত। সেইবারের পূর্ণ গ্রহণ সময়কালে এই গ্রহণটিকেও ছাড়িয়ে যাবে।

 


Top