যারা উত্তীর্ণ হয়েছো তাদের শুভেচ্ছা, যারা ভালো করতে পারনি তারা আরও ভালোভাবে পড়াশোনা করবে: প্রধানমন্ত্রী | daily-sun.com

যারা উত্তীর্ণ হয়েছো তাদের শুভেচ্ছা, যারা ভালো করতে পারনি তারা আরও ভালোভাবে পড়াশোনা করবে: প্রধানমন্ত্রী

ডেইলি সান অনলাইন     ১৯ জুলাই, ২০১৮ ১২:২১ টাprinter

যারা উত্তীর্ণ হয়েছো তাদের শুভেচ্ছা, যারা ভালো করতে পারনি তারা আরও ভালোভাবে পড়াশোনা করবে: প্রধানমন্ত্রী

 

উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষায় যারা উত্তীর্ণ হয়েছে তাদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে যারা ভালো করতে পারেনি তাদেরকে ভেঙে না পড়ে আগামীতে ভালো ফলাফল করতে আরও ভালোভাবে পড়াশোনা করতে আহ্বান জানিয়েছে তিনি ।


একই সঙ্গে, অভিভাবকদের অনুরোধ জানিয়ে বলেছেন, সন্তান পরীক্ষার ফল খারাপ করলে বকাঝকা করবেন না। এটা কোনো সমাধান নয়। বরং কী কারণে তার ফল খারাপ হলো তা খুঁজে বের করে সেটার সমাধান করুন।


বৃহস্পতিবার (১৯ জুলাই) সকালে তার সরকারি বাসভবন গণভবনে ২০১৮ সালের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ এবং ফলের পরিসংখ্যান হস্তান্তর অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।


এর আগে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ প্রধানমন্ত্রীর হাতে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল তুলে দেন। পরে প্রধানমন্ত্রী কম্পিউটারের বার্টন টিপে ডিজিটাল পদ্ধতিতে ফলাফল উন্মোক্ত করেন।


অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, শিক্ষা সচিব মো. সোহরাব হোসেন, শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী। এরপর প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নেত্রকোনাবাসীর সঙ্গে মতবিনিময় করেন। সেখান থেকে শিক্ষার্থীরাও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীও তাদের সঙ্গে কথা বলেন এবং জানতে চান তারা লেখাপড়া শিখে কী করবে। শিক্ষার্থীরা তাদের অনুভুতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন।


প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশে আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সোনার মানুষ গড়ে তুলতে চাই। যারা সোনার দেশ গড়বেন। শিক্ষা এমনই একটি সম্পদ যে, কেউ তা কেড়ে নিতে পারে না। সম্পদ কেড়ে নিতে পারে। কিন্তু কোনো ছিনতাইকারী শিক্ষাকে কেড়ে নিতে পারে না। শিক্ষা থাকলে যে কেউ নিজের রোজগারের পথ বের করে নিতে পারে।


শেখ হাসিনা  বলেন, প্রশ্ন ফাঁস করে নয়, পড়াশোনা করেই কাঙ্ক্ষিত ফল অর্জন করতে হবে। তিনি বলেন, দেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করতে হলে শিক্ষিত জাতি গড়ে তোলার কোনো বিকল্প নেই 


শেখ হাসিনা বলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁস শুধু আদের দেশে নয়। ডিজিটালের যেমন ভালো দিক আছে তেমনি খারাপ কিছু দিকও আছে। তারপরও আমরা নকলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিচ্ছি। যে কারণে এবার এইচএসসি পরীক্ষা নকলমুক্তভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে।


তিনি আরও বলেন, আমাদের ছেলে-মেয়ারা খুব মেধাবী। তাদের এ মেধাকে কাজে লাগিয়ে আমরা বঙ্গবন্ধুর সোনার মানুষ এবং সোনার দেশ গড়ে তুলব।


এবার সারা দেশে ১০টি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় মোট ১৩ লাখ ১১ হাজার ৪৫৭ জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে সাধারণ আট বোর্ডে শিক্ষার্থী ছিল ১০ লাখ ৯২ হাজার ৬০৭ জন। মাদ্রাসা বোর্ডে পরীক্ষার্থী ছিল ১ লাখ ১২৭ জন। কারিগরি বোর্ডের অধীনে ১ লাখ ১৭ হাজার ৭৫৪ পরীক্ষার্থী ছিল। তাদের মধ্যে পাস করেছে ৮ লাখ ৫৮ হাজার ৮০১ জন। শাতাংশিক হিসেবে যা ৬৬.৬৪ শতাংশ।


এবার জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২৯ হাজার ২৬২ জন। গত বছর জিপিএ-৫ পেয়েছিলেন ৩৭ হাজার ৭২৬ জন। সেই হিসাবে এবার উচ্চ মাধ্যমিকে পূর্ণাঙ্গ জিপিএ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমেছে ৮ হাজার ৪৬৪ জন।

 


Top