তিন জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩ | daily-sun.com

তিন জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

ডেইলি সান অনলাইন     ১৩ জুলাই, ২০১৮ ১২:০৯ টাprinter

তিন জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

 

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চলমান মাদকবিরোধী অভিযান ও নিজেদের মধ্যে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ টাঙ্গাইল, যশোর ও বগুড়ায় তিনজন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে টাঙ্গাইল সদরে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে মাদক মামলার এক আসামির মৃত্যু হয়েছে।

আর যশো‌রের চৌগাছায় এক যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধারের কথা জানিয়ে পুলিশ বলেছে, তার লাশের পাশে ইয়াবার প্যাকেট ছিল। এছাড়া বগুড়ায় দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর বন্দুকযুদ্ধে একজন নিহত হয়েছেন।


টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইলে র‌্যাবের মাদকবিরোধী অভিযানে কথিত বন্দুকযুদ্ধে আফজাল হোসেন (২৮) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (১৩ জুলাই) ভোর ৫টার দিকে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার হুগড়া ইউনিয়নের বেগুনটাল এলাকায় গোলাগুলির ওই ঘটনা ঘটে বলে টাঙ্গাইল র‌্যাব-১২ এর উপ-পরিচালক মেজর মোহাম্মদ রবিউল ইসলাম গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।


তিনি জানান, নিহত আফজাল হোসেন পুলিশের তালিকাভুক্ত একজন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে থানায় মাদক আইনের একাধিক মামলা রয়েছে। তিনি বেগুনটাল গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে।  


রবিউল ইসলাম বলেন, মাদক বিক্রেতারা একটি চালান ভাগাভাগি করছে- এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার ভোরে র‌্যাব সদস্যরা সদর উপজেলার বেগুনটাল এলাকায় অভিযান চালায়। এ সময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা গুলি বর্ষণ করে।

পরে র‌্যাব পাল্টা গুলি চালায়। এতে এক মাদক ব্যবসায়ী  আফজাল গুলিবিদ্ধ হয়। পরে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।


তিনি বলছেন, এই অভিযানে র‌্যাবের দুই সদস্যও আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন, পাঁচ রাউন্ড গুলি, ২০০ বোতল ফেনসিডিল এবং ১০৪২টি ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।


য‌শোর: যশো‌রের চৌগাছায় রতন (২৭) না‌মে এক যুবকের লাশ উদ্ধারের পর পুলিশ বলেছে, দুই দল সন্ত্রাসীর গোলাগুলিতে তার মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) দিনগত রাত আড়াইটার দি‌কে চৌগাছা-যশোর সড়‌কের কয়ারপাড়া এলাকা থেকে রতনের লাশ উদ্ধারের সময় সেখানে অস্ত্র ও মাদক পাওয়া গেছে বলে চৌগাছা থানার ওসি খোন্দকার শা‌মিম উদ্দিন জানিয়েছেন।


নিহত রতন উপ‌জেলার দীঘল‌সিংগা গ্রা‌মের আবু বাক্কা‌রের ছে‌লে। পরিবার বলছে, বৃহস্প‌তিবার দুপুরের পর থেকে রতনের কোনো খোঁজ পাচ্ছিলেন না তারা।


রতনের বিরুদ্ধে কোনো মামলা আছে কিনা- তা তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেননি চৌগাছা থানার ওসি।


তিনি বলেন, গভীর রাতে কয়ারপাড়া এলাকায় ‘সন্ত্রাসীদের মধ্যে গোলাগু‌লির’ খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে যায়। পু‌লিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছা‌লে সন্ত্রাসীরা পা‌লি‌য়ে যায়। পরে সেখানে একজ‌নের গুলিবিদ্ধ লাশ, এক‌টি ওয়ান শুটারগান, এক রাউন্ড গু‌লি ও এক প্যা‌কেট ইয়াবা প‌ড়ে থাক‌তে দেখা যায়।


পরে পু‌লিশ লাশটি য‌শোর জেনা‌রেল হাসপাতাল ম‌র্গে পা‌ঠায় বলে জানান ওসি।


এদিকে রতনের বাবা আবু বাক্কার বলেন, তা‌র ছে‌লে বৃহস্প‌তিবার বেলা আড়াইটার দি‌কে ‘পাওনা টাকা’ আনতে যাওয়ার কথা বলে মোটরসাইকেল নিয়ে বা‌ড়ি থে‌কে বেরিয়ে যায়। সন্ধ্যার পরও না ফেরায় তারা ফোন করেন। কিন্তু রতন ফোন না ধরায় আশপাশে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন।


শুক্রবার ভোরে আমা‌দের একজন প‌রি‌চিত লোক য‌শোর সদর হাসপাতাল থে‌কে ফোন ক‌রে জানায়, হাসপাতা‌লে রত‌নের মত দেখ‌তে একজ‌নের লাশ র‌য়ে‌ছে। ওই খবর পেয়ে মর্গে গিয়ে রতনের লাশ শনাক্ত করেন বাক্কার ও তার স্ত্রী ফরিদা বেগম।


বগুড়া: বগুড়ায় ধর্ষণের পর কিশোরী ও তার মায়ের মাথা ন্যাড়া করে দেয়া সেই আলোচিত শ্রমিক লীগ নেতা (বহিষ্কৃত) তুফান সরকারের বড় ভাই পুতু সরকার (৪৫) দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) দিনগত  রাত ৩টার দিকে শহরের ভাটকান্দী ব্রিজের কাছে বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে বলে বগুড়ার পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুইঞা গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।   


তিনি জানান, পতু সরকার শীর্ষস্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে থানায় ৫টি মামলা রয়েছে। তিনি শহরের চকসুত্রাপুর এলাকার মজিবর রহমানের ছেলে।


তিনি বলেন, শহরের ভাটকান্দী ব্রিজের কাছে দু’দল মাদক ব্যবসায়ী ও দুষ্কৃতিকারীরা সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছে- এমন খবরে বনানী ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর তারিকুলের নেতৃত্বে সদর থানার একদল পুলিশ অভিযানে যায়। উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ী ও দুষ্কৃতিকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে তারা পিছু হটে। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুরুতর আহত পতু মিয়াকে উদ্ধার করে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।


পতু মিয়ার বিরুদ্ধে সদর ও শিবগঞ্জ থানায় ৫টি মাদকের মামলা রয়েছে। তিনি পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী।


ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটার গান, একটি পাইপগান, ৮ রাউন্ড গুলি এবং ৫০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে বলেও জানান পুলিশ সুপার।


উল্লেখ্য, পতু মিয়া সরকারের ভাই তুফান সরকার গতবছরের জুলাইতে এক কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ করে মাসহ তার মাথা ন্যাড়া করে দেন। এ ঘটনা সে সময়ে সারাদেশে আলোচিত হয়। পরে পুলিশ তুফান সরকার, তার স্ত্রীসহ ৯ জনকে গ্রেফতার করে। বর্তমানে তারা কারাগারে রয়েছেন।


প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মে মাসে মাদকবিরোধী অভিযান শুরুর পর প্রায় প্রতি রাতেই কথিত বন্দুকযুদ্ধে ‘মাদক বিক্রেতাদের’ নিহত হওয়ার খবর দিয়ে আসছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ ধরনের ঘটনায় গত দুই মাসে প্রায় দুইশ মানুষের মৃত্য হয়েছে।  

 


Top