মেয়ের স্কুলের ফর্মে ধর্ম উল্লেখ না করায় সমালোচিত কমল হাসান | daily-sun.com

মেয়ের স্কুলের ফর্মে ধর্ম উল্লেখ না করায় সমালোচিত কমল হাসান

ডেইলি সান অনলাইন     ৩ জুলাই, ২০১৮ ১৯:১৯ টাprinter

মেয়ের স্কুলের ফর্মে ধর্ম উল্লেখ না করায় সমালোচিত কমল হাসান

মেয়ে শ্রুতিকে স্কুলে ভর্তি করার সময় ফর্মে ধর্ম উল্লেখ করা প্রয়োজন বলে মনে করেননি তিনি। আর সেই গুরুতর অপরাধেই নেট দুনিয়ায় সমালোচিত হলেন অভিনেতা তথা রাজনীতিবিদ কমল হাসান।

 

সম্প্রতি তিনি টুইটে লেখেন, ‘‌আমি মেয়েকে স্কুলে ভর্তির সময় ফর্মে ধর্মের জায়গাটি ফাঁকা রেখেছিলাম৷ এভাবেই পরবর্তী প্রজন্মের মধ্যে থেকে ধর্মীয় ভেদাভেদ মোছা সম্ভব হবে৷ প্রত্যেকেরই এমন উদ্যোগ নেওয়া উচিত৷ যাঁরা ধর্মীয় ভেদাভেদের বিরুদ্ধে তাঁদের স্বাগত জানাই। ’‌ 

 


কমল হাসানের এই টুইটের পর ট্রোলড হতে শুরু করে৷ অভিনেতা-রাজনীতিবিদ কমল হাসানের এরকম সিদ্ধান্তকে মোটেও ভাল চোখে দেখেননি নেটিজেনদের একাংশ৷ তাঁদের মধ্যে একজন একটি টেলিভিশন শোয়ে অভিনেতার পুরনো এক সাক্ষাৎকার রিটুইট করেন, যেখানে নিজের ধর্মের কথা বলতে দেখা গিয়েছে অভিনেতাকে৷

 

তারপরেও কেন মেয়ের স্কুলে ভরতির ফর্মে ধর্মের কথা উল্লেখ করলেন না, টুইট করে কমল হাসানকে সে প্রশ্ন করা হয়৷ টুইটে তাঁকে বলা হয়, ‘‌স্কুলে ভর্তির ফর্মে ধর্মের কথা উল্লেখ না করলে সমাজ থেকে ধর্মীয় ভেদাভেদ দূর হবে এমন চিন্তা ঠিক নয়৷’‌

 


কমল হাসানের অভিযোগ, স্কুলে ভর্তির ফর্মে ধর্মের কথা উল্লেখ না করায় অনেকের থেকে হুমকিও পান তিনি৷ ইসলাম ধর্মাবলম্বী এক যুবককে বিয়ে করার পর পাসপোর্ট নিতে গিয়ে দিনকয়েক আগে চূড়ান্ত হেনস্থার শিকার হয়েছিল লখনউয়ের হিন্দু ধর্মাবলম্বী তরুণী তনভিকে৷ ধর্ম নিয়ে পাসপোর্ট অফিসারের নানা প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয় তাঁকে৷

 

টুইটে বিদেশমন্ত্রীকে হেনস্থার কথা জানান তনভি৷ অভিযোগ পেয়ে শীঘ্রই ওই দম্পতির পাসপোর্টের বন্দোবস্ত করেন সুষমা স্বরাজ৷ টুইটে সুষমাকে নিয়ে সমালোচনার ঝড় বইতে শুরু করে৷ টুইটে ভোটাভুটির বন্দোবস্ত করে রবিবারই তার পাল্টা জবাব দেন সুষমা৷ সেই রেশ কাটতে না কাটতেই এবার নেটিজেনদের একাংশের নিশানা হতে হল কমল হাসানকে৷


Top