নিউ ইয়র্কে লেখক কাজী জহিরুল ইসলামের দুটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন | daily-sun.com

নিউ ইয়র্কে লেখক কাজী জহিরুল ইসলামের দুটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

ডেইলি সান অনলাইন     ২৯ জুন, ২০১৮ ২০:৩৭ টাprinter

নিউ ইয়র্কে লেখক কাজী জহিরুল ইসলামের দুটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

 

 

২৭ জুন বুধবার সন্ধ্যায় সব্যসাচী লেখক কাজী জহিরুল ইসলামের দুটি গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠিত হয় নিউ ইয়র্কে। ফেব্রুয়ারি ২০১৮-র অমর একুশে বইমেলায় প্রকাশিত কবিতা সমগ্র-২ এর মোড়ক উন্মোচন করেন প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক জ্যোতিপ্রকাশ দত্ত।

 কবিতাসমগ্র-২ প্রকাশ করে প্রকাশনা সংস্থা নালন্দা এবং বইটির নান্দনিক প্রচ্ছদ এঁকেছেন শিল্পী রাগীব আহসান। একই মেলায় প্রকাশিত লেখকের ভ্রমণরচনাগ্রন্থ উড়ালগল্প-এর মোড়ক উন্মোচন করেন কথাসাহিত্যিক এবং প্রাবন্ধিক পূরবী বসু।  উড়ালগল্প প্রকাশ করে অগ্রদূত অ্যান্ড কোম্পানি এবং এর প্রচ্ছদ আঁকেন দেওয়ান আতিকুর রহমান।

 

 

শামীম আল আমিনের সাবলীল উপস্থাপনায় এই নান্দনিক সন্ধ্যায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মননশীল লেখক ও অনুবাদক ড. আবেদীন কাদের, ঊনসত্তরের গণআন্দোলন কর্মী ও ছড়াকার শাহ আলম দুলাল, বর্ষীয়ান সঙ্গীতজ্ঞ মুত্তালিব বিশ্বাস, শিল্পী জীবন বিশ্বাস, ভাষা আন্দোলন গবেষক ওবায়েদুল্লাহ মামুন, লেখক নাজমুন নেসা পিয়ারি, নজরুল একাডেমীর ট্রেজারার রুমা দিলরুবা আলম, নজরুল একাডেমির সাংগঠনিক সম্পাদক শিরিন আখতার, ঊনবাঙালের সমন্বয়কারী এবং জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক পেশাজীবী মুক্তি জহির, প্রকাশনা সংস্থা নালন্দার স্বত্বাধিকারী রেদোয়ানুর রহমান জুয়েল এবং গ্রন্থযুগলের প্রণেতা কাজী জহিরুল ইসলাম।

 

 

জ্যোতি প্রকাশ দত্ত এবং পূরবী বসু লেখক কাজী জহিরুল ইসলামের লেখক সত্ত্বার গতিশীলতার প্রশংসা করেন, সাহিত্যের সকল শাখায় তাঁর বিচরণ অবাধ এবং সাবলীল, লিখছেন দুই হাতে, ক্রমাগত বই বের হচ্ছে, এমন সচল লেখক আমাদের দরকার, এসব কথা বলেন। দুজনেই লেখকের সাফল্য এবং সমৃদ্ধি কামনা করেন।

 

ড. আবেদীন কাদের বলেন, আমি এমনিতেই পড়াশুনার ব্যাপারে খুব সিলেক্টিভ, আমার কোনো কোনো বন্ধু কাজী জহিরুল ইসলামের লেখালেখির গুণগত মান সম্পর্কে আমাকে মিসগাইড করেছিলেন। একদিন আমার কলেজের বন্ধু ড. মাহবুব হাসান বললেন, কাজী খুব ভালো কবিতা লেখেন, পড়ে দেখতে পারেন। সেই থেকে পড়তে শুরু করি এবং আবিস্কার করি একজন বড় মাপের কবিকে।

ছড়াকার শাহ আলম দুলাল বলেন, তাঁর সবই আমার ভালো লাগে, কবিতা, ভ্রমণ, গল্প, সব, তাঁর সব কাজের প্রতি রয়েছে আমার শর্তহীন সমর্থন এবং তা অব্যাহত থাকবে। ওবায়েদুল্লাহ মামুন বলেন, এই মুহূর্তে তাঁর চেয়ে জনপ্রিয় কবি নিউ ইয়র্কে নেই। যে কারণে তাঁকে নিয়ে আলোচনা এবং সমালোচনা দুইই বেশি। নিউ ইয়র্কের রেস্টুরেন্টগুলোতে চায়ের টেবিলে, জ্যামাইকা বা জ্যকসন হাইটসে, এখানে-সেখানে কবিতার কথা উঠলেই অবধারিতভাবে যে নামটি চলে আসে তা কাজী জহিরুল ইসলাম। তাঁর কবিতার সাথে আমার পরিচয় দীর্ঘদিনের হলেও নিবিড় পাঠ নিউ ইয়র্কেই। আমি তাঁর কবিতার ভক্ত যদিও কিন্তু তাঁর ভ্রমণরচনাও অসাধারণ। লেখক নাজমুন নেসা পিয়ারি কাজী জহিরুল ইসলামের ভ্রমণ সাহিত্যের প্রশংসা করে বলেন, যে ভ্রমণ গ্রন্থটির আজ আনুষ্ঠানিক মোড়ক উন্মোচন হলো, দুদিন আগে ঠিক এই বইটিই আমি নিউ ইয়র্ক বইমেলা থেকে কিনেছি। তাঁর সাহিত্য কর্মের সাথে আমার পরিচয় ঘটেছে ফেইসবুকের মাধ্যমে, এখন আমি অত্যন্ত আগ্রহ নিয়ে তার লেখা নিয়মিত পাঠ করি।

 

 

মুত্তালিব বিশ্বাস বলেন, তিনি শুধু একজন বড় মাপের লেখকই নন, একজন আঁকিয়েও। মাঝে মাঝে ফেইসবুকে আমি তাঁর আঁকা ছবি দেখি, দেখেই মনে হয় কি যেন আছে তাঁর মধ্যে। তিনি একজন ন্যাচারাল পোয়েট। নালন্দার প্রধান রেদোয়ানুর রহমান জুয়েল বলেন, জহির ভাই একজন জাতকবি, তাঁকে দেখলেই মনে হয় কবিতাই তাঁর জীবন, কবিতাই তাঁর সব। তাঁর কবিতাসমগ্র প্রকাশ করতে পেরে নালন্দা আনন্দিত। উদীচীর সাধারণ সম্পাদক শিল্পী জীবন বিশ্বাস বলেন, আমি গানের মানুষ, তাই ছন্দ আমাকে বেশি টানে। জহির ভাইয়ের কবিতায় ছন্দের কাজ এতো চমৎকার, আমি মুগ্ধ হয়ে তা পাঠ করি। তিনি সত্যিই অনেক বড় মাপের একজন কবি। উল্লেখ্য যে ২২-২৪ জুন নিউ ইয়র্কে ২৭ তম বইমেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে, এই মেলায় একক লেখক হিশেবে কাজী জহিরুল ইসলামের বই সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয়েছে। তিনি এ বছর নিউ ইয়র্ক বইমেলার বেস্ট সেলার লেখক।   


Top