বাজেটে বিড়ির ওপর আরোপিত কর প্রত্যাহারের দাবি | daily-sun.com

বাজেটে বিড়ির ওপর আরোপিত কর প্রত্যাহারের দাবি

ডেইলি সান অনলাইন     ২৫ জুন, ২০১৮ ১৬:৩৯ টাprinter

বাজেটে বিড়ির ওপর আরোপিত কর প্রত্যাহারের দাবি

 

প্রস্তাবিত বাজেটে ফিল্টার বিড়ির ওপর আরোপ করা ২৫ শতাংশ কর প্রত্যাহার, বিড়ি শিল্পকে কুটির শিল্প ঘোষনা ও বিড়ি শ্রমিকদের মজুরী প্রতি হাজারে ১০০ টাকা নির্ধারণ করার দাবি জানিয়েছেন বিড়ি শ্রমিকরা।

সোমবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে  চলতি বাজেট, বিড়ি শিল্প ও শ্রমিক শীর্ষক এক আলোচনায় তারা  এ দাবি জানান।

বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশন ও  গবেষনা উন্নয়ন কালেক্টিভিটি (আরডিসি) যৌথ ভাবে এই আলোচনার আয়োজন করে।

 

বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আমিন উদ্দিন বিএসসির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অথিতি ছিলেন ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। বিশেষ অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশ জাসদের সাধারণ সম্পাদক  ও সংসদ সদস্য নাজমূল হক প্রধান, সাবেক শিল্পমন্ত্রী দীলিপ বড়ুয়া,  কমিউনিস্ট পার্টির সাবেক সভাপতি মনজুরুল আহসান খান। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এমকে বাঙ্গালী, যুগ্ম সম্পাদক আব্দুর রহমান, আরডিসির সভাপতি  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. মেজবাহ কামাল, আরডিসির সাধারণ সম্পাদক জান্নাত এ ফেরদৌসী।

 

আলোচনায় সভায় ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, অর্থমন্ত্রী সব সময় ধনীদের স্বার্থ রক্ষা করে  চলেন। তিনি ১২টি বাজেট দিয়েছেন। এর মধ্যে এই সরকারের আমলে ১০টি আর সামরিক সরকারের আমলে ২টি। এ কারণে জনগনের সরকার  এবং সামরিক সরকারের পার্থক্য তিনি বোঝেন না। তার মধ্যে একটি গণবিরোধী চরিত্র রয়েছে।

যা এই  বাজেটে প্রকাশ পেয়েছে। তিনি বিড়ি শিল্প মুক্ত করতে চান।   আসলে  এদেশের মানুষ তার মতো অর্থমন্ত্রী মুক্ত একটি বাংলাদেশ চায়।

 

নাজমুল হক প্রধান বলেন, অর্থমন্ত্রী বিড়ি শিল্প তুলে দিতে উঠে পড়ে লেগেছেন।   কারণ  বিড়ি বহুজাতিক কোম্পানীর বিষয় নয়।   অর্থমন্ত্রীকে বলতে চাই আপনার এই  স্বপ্ন  বিড়ি শ্রমিকরা সফল হতে দেবে না। তারা  আন্দোলনের মাধ্যমে তা প্রতিহত করবে।

মনজুরুল আহসান খান বলেন, বিড়ি শ্রমিকরা দেশের  বড় বড় আন্দোলনের সঙ্গে ছিলেন। সফল হয়েছেন। এবারও সফল হবে। বৈষম্যমূলক সমাজ প্রতিষ্ঠায় তারা ঐক্যবদ্ধ হবেন  আশা করছি। সরকার বিড়ি শ্রমিকদের দিকে  খেয়াল রাখবেন এই আহবান জানাচ্ছি।

 

দীলিপ বড়ুয়া বলেন, ব্যাংক থেকে কোটি কোটি টাকা লুট হয়ে যাচ্ছে অর্থমন্ত্রী কিছু করতে পারছেন না। তিনি বিড়ি শ্রমিকদের তুলে দেয়ার পরিকল্পনা  হাতে নিয়েছেন। কিন্তু বিড়ি  শ্রমিকরা তা মানবে না। অতীতের মতো তারা ঝাঁপিয়ে পড়ে অধিকার আদায় করবে।   প্রস্তাবিত বাজেটে বিড়ির ওপর বসানো কর প্রত্যাহারের দাবি জানান তিনি।

 

 

 


Top