গাজীপুরে পুলিশ ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি করছে: অভিযোগ রিজভীর | daily-sun.com

গাজীপুরে পুলিশ ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি করছে: অভিযোগ রিজভীর

ডেইলি সান অনলাইন     ২৫ জুন, ২০১৮ ১৩:১৯ টাprinter

গাজীপুরে পুলিশ ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি করছে: অভিযোগ রিজভীর

 

গাজীপুরে সিটি কর্পোরেশন এলাকায় পুলিশ ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরির কাজ করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, পাইকারি হারে গ্রেফতার, বাসায় বাসায় তল্লাশি, বিভিন্ন কেন্দ্রে ধানের শীষের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির নেতৃবৃন্দকে আটক করছে পুলিশ। সোমবার (২৬ জুন) রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন বিএনপির এ নেতা।


তিনি বলেন, গতরাতেও গাজীপুরে বিএনপির নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্বে নিয়োজিতসহ ১৩ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তিনি আরও বলেন, গাজীপুরে সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রধান অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে পুলিশ ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এখানে বাছাই করে-করে দলবাজ পুলিশ কর্মকর্তাদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।


বিএনপির এ নেতার অভিযোগ, দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে নিয়ে আসা ডিবি পুলিশের হানাদারি আগ্রাসন, সরকারি দলের মেয়র, মন্ত্রী ও নেতাদের নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গসহ সর্বোপরি নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর পুলিশের গাড়িতে করে প্রচারাভিযান ইত্যাদি ঘটনায় সরকারের মেসেজটা কী তা গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ভোটারদের বুঝতে বাকি নেই।


ভোটারদের উদ্দেশে রিজভী বলেন, সব বাধাবিপত্তি অতিক্রম করে ভোটাররা কেন্দ্রে ভোট দিতে আসবেন। ভোট যদি সুষ্ঠু ও অবাধ হয়, তা হলে ধানের শীষের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না।


আওয়ামী লীগ গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে ক্ষমতায় থাকতে পছন্দ করে না এবং গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে ক্ষমতা থেকে সরে যেতেও পছন্দ করে না বলে মন্তব্য করেন রিজভী। তিনি বলেন, কয়েক দিন আগে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেছিলেন- গাজীপুরে খুলনার ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটবে না।

তার মানে খুলনায় নির্বাচন নিয়ে ব্যাপক কারচুপি ও ভোট-সন্ত্রাসের যে অভিযোগ করা হয়েছে, তার বক্তব্যে সেটিই প্রমাণিত হল।


রিজভীর অভিযোগ, শুধু খুলনা-মার্কা নয়, গাজীপুরে ভোট ডাকাতির সর্বোচ্চ রেকর্ড গড়তে প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে ইসি ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা। আগামীকাল গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনে যে ভোট অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে সেখানে জনগণ অবাধে পছন্দানুযায়ী প্রার্থীকে ভোট দিতে পারবে এমন কোনো পরিবেশ এখনও দৃশ্যমান নয়।

 


Top