কলেজে ব্যাকবেঞ্চার ছিলেন ঐশ্বর্য | daily-sun.com

কলেজে ব্যাকবেঞ্চার ছিলেন ঐশ্বর্য

ডেইলি সান অনলাইন     ১৮ জুন, ২০১৮ ১৭:৩০ টাprinter

কলেজে ব্যাকবেঞ্চার ছিলেন ঐশ্বর্য

 তিনি এখন আর সেভাবে ছবি করেন না। এক সন্তানের মা। বয়স প্রায় ৪৫ বছর। তা সত্ত্বেও আজও বহু ভারতীয় পুরুষের হৃদয়ে ঝড় তুলতে তাঁর জুড়ি মেলা ভার। তিনি ঐশ্বর্য রাই বচ্চন।  

 


প্রাক্তন মিস ওয়ার্ল্ড, ‘‌ধুম টু’‌, ‘‌জোধা আকবর’‌, ‘‌গুরু’‌, ‘‌রোবট’‌–এর মতো হিট ছবির নায়িকার উপর এবছরের কান চলচ্চিত্র উৎসবেও ছিল ফ্ল্যাশবাল্বের ঝলকানি। ওপ্রা উইনফ্রে শো–তে আমন্ত্রণ পাওয়া প্রথম বলিউডের সেলিব্রিটি ছিলেন ঐশ্বর্যই।

 

 

তিনিই দ্বিতীয় বলিউড সেলিব্রিটি যাঁর মোম মূর্তি মাদাম তুসোর মিউজিয়ামে বসানো হয়।   তামাম সিনেপ্রেমীদের নয়নের মনি এই নায়িকার কলেজজীবনের কিছু অজানা কথা উঠে এসেছে তাঁরই এককালের সহপাঠী শিবানির লেখায়। শিবানি লিখেছেন, তিনি বিজ্ঞান নিয়ে মুম্বাইয়ের জয়হিন্দ কলেজে ভর্তি হয়েছিলেন। ওই কলেজেই বেশ কয়েক মাস পর কে সি কলেজ থেকে বিজ্ঞান শাখায় ভর্তি হন ঐশ্বর্য।

কিন্তু বলিউডের প্রথম সারির নায়িকা ঐশ্বর্য কলেজজীবনে ছিলেন ব্যাকবেঞ্চার। প্রায় রোজই দেরি করে ক্লাসে আসতেন তিনি। প্রথমে ট্রেনে তারপর হেঁটে কলেজে যাতায়াত করতেন ঐশ্বর্য।

 

কখনও তাঁর সফরসঙ্গী হতেন শিবানিও। বরাবরই সুন্দরী এবং স্টাইলিশ ঐশ্বর্যকে সবসময় ঘিরে থাকত গুণমুগ্ধের দল। তাঁর বন্ধুবান্ধবদের সংখ্যাও ছিল প্রচুর। কে সি কলেজ থেকেও প্রাক্তন পুরুষ সহপাঠীরা তাঁর সঙ্গে দেখা করতে আসতেন জয়হিন্দ কলেজে। কলেজের সব থেকে সুন্দরী ছাত্রী বলা হত তাঁকে। এবং তা তিনি প্রমাণ করেছিলেন ১৯৯৪ সালে মিস ওয়র্ল্ড প্রতিযোগিতা জিতে।
শিবানি আরও লিখেছেন, স্থাপত্য শিল্প নিয়ে পড়াশোনা করতে আগ্রহী ঐশ্বর্যকে প্রথম মডেলিং–এ নামার পরামর্শ দেন তাঁদের কলেজের ফিজিক্সের লেকচারার।

 

 

যিনি নিজেও ঐশ্বর্যর গুণমুগ্ধ ছিলেন। সেব্যাপারে অবগত ঐশ্বর্য অন্য সব ক্লাসে শেষ বেঞ্চে বসলেও ফিজিক্স ক্লাসে প্রথম বেঞ্চে বসতেন। ওই লেকচারারের পরামর্শেই কলেজ ম্যাগাজিনে প্রথম মডেলিং–এর ফোটোশুট করে ঐশ্বর্য। তারপর থেকেই মডেলিং–এ আগ্রহ জন্মায় তাঁর। তবে ব্যাকবেঞ্চার, মডেলিং–এ আগ্রহী হলেও ঐশ্বর্যর পা সব সময় মাটিতেই থাকত। পড়াশোনাতেও যেমন ভালো ছিলেন তেমনই বন্ধুবৎসল ছিলেন তাঁর সহপাঠী। বলছেন ঐশ্বর্য রাই বচ্চনের কলেজের প্রাক্তন বান্ধবী শিবানি।     


Top