খালেদার উন্নত চিকিৎসার জন্য ছোট ভাই শামীম ইস্কানদারের আবেদন | daily-sun.com

খালেদার উন্নত চিকিৎসার জন্য ছোট ভাই শামীম ইস্কানদারের আবেদন

ডেইলি সান অনলাইন     ১২ জুন, ২০১৮ ১৪:১৭ টাprinter

খালেদার উন্নত চিকিৎসার জন্য ছোট ভাই শামীম ইস্কানদারের আবেদন

 

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত ও কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর আবেদন করেছেন তার ছোট ভাই শামীম ইস্কানদার। মঙ্গলবার (১২ জুন) তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল শামীম ইস্কান্দার স্বাক্ষরিত আবেদনটি সচিবালয়ে এসে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জমা দেন বলে দলীয় সূত্র নিশ্চিত করেছেন।

 
আবেদনে শামীম ইস্কানদার বলেন, বর্তমানে আমার বড় বোন বেগম খালেদা জিয়াকে ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়েছে। তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ বিভিন্ন অসুখে আক্রান্ত। কারাগারের ভেতরে তিনি প্রয়োজনীয় চিকিৎসা গ্রহণের সুযোগ পাচ্ছেন না। ফলে দীর্ঘ কারাবাসে তার শারিরীক অবস্থার মারাত্মক অবনতি হয়েছে।


আবেদনে আরও বলা হয়, গত ৯ জুন তারিখে কারা কর্তৃপক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে ৪ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক কারাগারের ভেতরে তার শারিরীক পরীক্ষা নিরীক্ষা করেন। উক্ত চিকিৎসকগণ জানিয়েছেন খালেদা জিয়া মাইন্ড স্ট্রোক করেছেন। ফলে ভবিষ্যতের জন্য এ ধরনের বিষয় বড় রকমের ঝুঁকির পূর্বাভাস বহন করছে। তাকে দেরি না করে ঢাকাস্থ বিশেষায়িত ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করতে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও চিকিৎসা প্রদান করা জরুরী।


এদিকে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা এবং চিকিৎসার জন্য সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করে রেখেছিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার (১২ জুন) বেলা ১১টার দিকে তাকে চিকিৎসার জন্য ওখানে নেয়া হবে বলেই সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করে রেখেছিল বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ।


তার জন্য ৫১২ নম্বর কেবিন বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। তার চিকিৎসায় যেসব বিভাগের প্রয়োজন হবে, সেসব বিভাগের প্রধানরা উপস্থিত থাকবেন। আজ সকালে এমনটিই জানিয়েছিলেন বিএসএমএমইউর পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হারুন।


তবে বেগম খালেদা জিয়া অনীহ প্রকাশ করায় আজ তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) নেয়া হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন আইজি প্রিজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন।

 

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বিশেষ আদালত। এরপর পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরোনো কারাগারকে বিশেষ কারাগার ঘোষণা দিয়ে তাকে সেখানেই রাখা হয়েছে। নির্জন এই কারাগারে একমাত্র বন্দি হিসেবে গত ১২৫দিন ধরে কারাভোগ করছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।


ইতোমধ্যে আপিলের পর সর্বোচ্চ আদালত খালেদা জিয়াকে এই মামলায় জামিন দিয়েছেন। তবে আরও বেশ কয়েকটি মামলা চলমান থাকায় এখনই তিনি জামিন পাচ্ছেন না।


দীর্ঘ ৩৬ বছরের রাজনৈতিক জীবনে এর আগে একবার কারাগারে যেতে হয়েছিল বেগম খালেদা জিয়াকে। ২০০৭ সালের ৩ সেপ্টেম্বর সেনা-সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়। তখন জাতীয় সংসদ ভবন এলাকার স্পিকারের বাসভবনকে সাবজেল ঘোষণা করে সেখানে রাখা হয়েছিল তাকে। ২০০৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্টের এক আদেশে খালেদা জিয়া মুক্তি পান। এরপর তিনি দুর্নীতি মামলায় দ্বিতীয় বার জেলে যান।

 

আরও পড়ুন:


আজ বিএসএমএমইউতে নেয়া হচ্ছে না খালেদা জিয়াকে: আইজি প্রিজন

 

বিএসএমএমইউতে খালেদার জন্য ৫১২ নম্বর কেবিন প্রস্তুত

 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যেই খালেদার অসুস্থতা নিয়ে অবহেলা স্পষ্ট: রিজভী


খালেদা জিয়ার পড়ে যাওয়ার কথা কারা কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়নি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


৫ জুন ‘মাইল্ড স্ট্রোক’ হয়েছিল খালেদা জিয়ার: চিকিৎসক

 


Top