খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছেন: অ্যাটর্নি জেনারেল | daily-sun.com

খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছেন: অ্যাটর্নি জেনারেল

ডেইলি সান অনলাইন     ১০ জুন, ২০১৮ ১৭:১৮ টাprinter

খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছেন: অ্যাটর্নি জেনারেল

 

খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের দেয়া বক্তব্য প্রসঙ্গ অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, অ্যাটর্নি জেনারেলের সম্মতি ছাড়া খালেদা জিয়ার জামিন মিলবে না এটা শুধু মিথ্যা কথা নয়, দুঃখজনক ও আদালত অবমাননাও। তিনি বলেন, আদালত কারও কথায় চলে না।

কাজেই তারা যে এ কথাগুলো বলেছেন তাতে মনে হচ্ছে তারা হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছেন। কারণ তারা অনেক মামলায় জামিন পাচ্ছেন না। রবিবার (১০ জুন) কুমিল্লায় করা বিশেষ ক্ষমতা আইনে করা এক মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি শেষে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন অ্যাটর্নি জেনারেল।


তিনি বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া অজ্ঞান হয়ে গিয়েছিলেন এটি ঠিক নয়। সুগার লেভেল কমে যাওয়ায় উনি দাঁড়ানো থেকে ঘুরে পড়ে গিয়েছিলেন। চকলেট খাইয়ে সঙ্গে সঙ্গে তাকে ঠিক করা হয়েছে।


মাহবুবে আলম আরও বলেন, আমি জানি এ বিষয়টি নিয়ে তারা অনেক কিছু বলবেন। তাই আমি আদালতে যাওয়ার আগে আইজি প্রিজনের সঙ্গে আলাপ করেছি। তিনি আমাকে যে তথ্য দিয়েছেন তা হলো ৫ জুন ইফতারের ঠিক আগে আগে ওঁনার সুগার লেভেল কমে গিয়েছিল।

তিনি অজ্ঞান হয়ে গিয়েছিলেন তা ঠিক নয়, বা অজ্ঞান ছিলেন এটিও ঠিক না। এ বয়সে যার ডায়বেটিস আছে তার সুগার লেভেল সারা দিন পরে একটু এদিক সেদিক হতেই পারে।


এর আগে গতকাল শনিবার (৯ জুন) বিকেলে খালেদা জিয়াকে দেখতে তার ব্যক্তিগত চার চিকিৎসক পুরোনো ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে যান। সেখানে থেকে ফিরে ঢাকা মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক এফ এম সিদ্দিকী তাঁদের পর্যবেক্ষণ সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরেন। তিনি বলেন, দাঁড়ানো অবস্থা থেকে গত মঙ্গলবার (৫ জুন) বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মেঝেতে পড়ে গিয়েছিলেন। তখন কী হয়েছিল, তা তিনি বুঝতে পারেননি। সে সময়ে প্রায় ৫-৭ মিনিট অজ্ঞান ছিলেন বিএনপি নেত্রী। আমাদের ধারণা, তার ‘মাইল্ড স্ট্রোক’ হয়েছিল।


বিষয়টি নিশ্চিত হতে আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য খালেদা জিয়াকে কারাগারের বাইরে বিশেষায়িত একটি হাসপাতালে ভর্তি করতে সুপারিশ করেন তাঁরা।


উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বিশেষ আদালত। এরপর পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরোনো কারাগারকে বিশেষ কারাগার ঘোষণা দিয়ে তাকে সেখানেই রাখা হয়েছে। নির্জন এই কারাগারে একমাত্র বন্দি হিসেবে গত ১২৩দিন ধরে কারাভোগ করছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।


ইতোমধ্যে আপিলের পর সর্বোচ্চ আদালত খালেদা জিয়াকে এই মামলায় জামিন দিয়েছেন। তবে আরও বেশ কয়েকটি মামলা চলমান থাকায় এখনই তিনি জামিন পাচ্ছেন না।


দীর্ঘ ৩৬ বছরের রাজনৈতিক জীবনে এর আগে একবার কারাগারে যেতে হয়েছিল বেগম খালেদা জিয়াকে। ২০০৭ সালের ৩ সেপ্টেম্বর সেনা-সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়। তখন জাতীয় সংসদ ভবন এলাকার স্পিকারের বাসভবনকে সাবজেল ঘোষণা করে সেখানে রাখা হয়েছিল তাকে। ২০০৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্টের এক আদেশে খালেদা জিয়া মুক্তি পান। এরপর তিনি দুর্নীতি মামলায় দ্বিতীয় বার জেলে যান।

 


Top