স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যেই খালেদার অসুস্থতা নিয়ে অবহেলা স্পষ্ট: রিজভী | daily-sun.com

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যেই খালেদার অসুস্থতা নিয়ে অবহেলা স্পষ্ট: রিজভী

ডেইলি সান অনলাইন     ১০ জুন, ২০১৮ ১৩:৫১ টাprinter

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যেই খালেদার অসুস্থতা নিয়ে অবহেলা স্পষ্ট: রিজভী

 

খালেদা জিয়ার চিকিৎসা ও অসুস্থতা নিয়ে কতটা অবহেলা করা হচ্ছে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যে সেটা পরিষ্কার হয়ে গেল বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, কারা কর্তৃপক্ষ সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করছে বলেই বন্দি খালেদা জিয়ার গুরুতর শারীরিক অসুস্থার বিষয়ে ভ্রুক্ষেপহীন থেকেছে।

রবিবার (১০ জুন) সকালে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা অভিযোগ করেন রুহুল কবির রিজভী।


তিনি বলেন, গতকাল শনিবার বিকেলে খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চার চিকিৎসক কারাগারে তার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের জানান, দাঁড়ানো অবস্থা থেকে গত ৫ জুন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মেঝেতে পড়ে গিয়েছিলেন। তখন কী হয়েছিল, তা তিনি বুঝতে পারেননি। সে সময়ে প্রায় ৫-৭ মিনিট অজ্ঞান ছিলেন বিএনপি নেত্রী। চিকিৎসকদের ধারণা, তার মাইল্ড স্ট্রোক হয়েছিল। চিকিৎসকরা তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তির কথাও বলেন।


পরে সন্ধ্যায় কারা অধিদফতর আয়োজিত ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার পড়ে যাওয়ার বিষয়ে কারা কর্তৃপক্ষ অবগত নয়। তার ‘মাইল্ড স্ট্রোকের’ বিষয়টিও তারা জানেন না। ’


স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এ বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে রিজভী বলেন, ‘কারাগারে ‘মাইল্ড স্ট্রোকের’ পর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ৫-৭ মিনিট অজ্ঞান ছিলেন।

গতকাল শনিবার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা তার সঙ্গে সাক্ষাতের পর বিষয়টি জেনেছেন। অথচ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন- কারাগারে বেগম খালেদা জিয়া যে পড়ে গিয়েছিলেন, সে সম্পর্কে কারা কর্তৃপক্ষ অবগত নয়। ’


তিনি বলেন, তার মানে এটাই প্রমাণিত হয়, বেগম জিয়া কারা কর্তৃপক্ষের কতখানি অবহেলার শিকার! সরকার বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রতি কতটা অমানবিক তা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যেও ফুটে উঠেছে।


খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবস্থা জেনে দেশবাসী গভীরভাবে উদ্বিগ্ন বলে উল্লেখ করেন বিএনপির এই নেতা। তিনি বলেন, ব্যবস্থা না নিয়ে সরকার খালেদা জিয়ার অসুস্থতাকে আরও গুরুতর করে তাকে রাজনৈতিক ময়দান থেকে সরিয়ে দেয়ার চক্রান্ত করছে কিনা তা নিয়ে মানুষের মনে নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য দেশনেত্রীর চিকিৎসা নিয়ে টালবাহানারই নামান্তর।


তিনি বলেন, ‘বিএনপির পক্ষ থেকে দাবি জানাচ্ছি- দ্রুত ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করে খালেদা জিয়া চিকিৎসার সুযোগ দিন। একইসঙ্গে ঈদের আগেই তাকে মুক্তি দিন। ’


উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বিশেষ আদালত। এরপর পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরোনো কারাগারকে বিশেষ কারাগার ঘোষণা দিয়ে তাকে সেখানেই রাখা হয়েছে। নির্জন এই কারাগারে একমাত্র বন্দি হিসেবে গত ১২৩দিন ধরে কারাভোগ করছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।


ইতোমধ্যে আপিলের পর সর্বোচ্চ আদালত খালেদা জিয়াকে এই মামলায় জামিন দিয়েছেন। তবে আরও বেশ কয়েকটি মামলা চলমান থাকায় এখনই তিনি জামিন পাচ্ছেন না।


দীর্ঘ ৩৬ বছরের রাজনৈতিক জীবনে এর আগে একবার কারাগারে যেতে হয়েছিল বেগম খালেদা জিয়াকে। ২০০৭ সালের ৩ সেপ্টেম্বর সেনা-সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়। তখন জাতীয় সংসদ ভবন এলাকার স্পিকারের বাসভবনকে সাবজেল ঘোষণা করে সেখানে রাখা হয়েছিল তাকে। ২০০৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্টের এক আদেশে খালেদা জিয়া মুক্তি পান। এরপর তিনি দুর্নীতি মামলায় দ্বিতীয় বার জেলে যান।

 


Top