রাস্তার আবর্জনা বাড়িতে নিয়ে জমান এক ব্যক্তি! | daily-sun.com

রাস্তার আবর্জনা বাড়িতে নিয়ে জমান এক ব্যক্তি!

ডেইলি সান অনলাইন     ২৬ মে, ২০১৮ ১৫:৪৫ টাprinter

রাস্তার আবর্জনা বাড়িতে নিয়ে জমান এক ব্যক্তি!

দেখতে আর পাঁচটা সাধারণ বাড়ির মতোই। কিন্তু এই বাড়ির ভিতরে প্রবেশ করলেই দুর্গন্ধে প্রাণ ওষ্ঠাগত অবস্থা হয়ে যাবে।

দোতলা বাড়ির পুরোটাই নোংরা-আবর্জনায় ভর্তি। তবে এই সব আবর্জনা শুধু ওই বাড়ির নয়। বরং গোটা এলাকার বর্জ্য-ময়লা পদার্থ বাড়িতে নিয়ে এসে জড়ো করেন এক ব্যক্তি। শুনতে অবাক লাগলে আদতে তাই ঘটেছে ভারতের বেহালায়।

 

কলকাতার  বেহালার পর্ণশ্রীর ১২৯ নম্বর ওয়ার্ডের মহেন্দ্র ব্যানার্জী রোডের বাসিন্দা রানা প্রতাপ মুখোপাধ্যায়ের কার্যকলাপে অতিষ্ঠ এলাকার বাসিন্দারা। ৬০ বছর বয়স্ক এই প্রৌঢ় এলাকার বিভিন্ন জায়গা থেকে ময়লা সংগ্রহ করে নিজের বাড়িতে জড়ো করেন। দোতলা বাড়িতে ময়লা পরিমাণ এতটাই বেড়ে গিয়েছে মাঝে মধ্যে রানাবাবুকে বাইরে গিয়েও থাকতে হয়। কখনও রাস্তায়, কখনওবা প্রতিবেশীর বাড়িতে রাত কাটান তিনি। কিন্তু তা সত্ত্বেও নিজের বাড়িতে ময়লা জড়ো করে যান তিনি।

 

 

শনিবার এই বাড়িটিতেই অভিযানে নামে কলকাতা পৌরসভা। স্থানীয় কাউন্সিলরের সহযোগিতায় পৌরকর্মীরা ওই বাড়িতে সাফাইয়ের কাজে হাত লাগান।  পৌরকর্মীদের দাবি, বাড়িতে ময়লা পরিমাণ এতটাই বেশি যে পরিষ্কার করতে করতে রাত পার হয়ে যেতে পারে।

 

এলাকার বাসিন্দাদের দাবি, বছর দুয়েক আগেও পুরকর্মীরা এসে রানার বাড়িতে পরিস্কার করে গিয়েছিলেন। কিন্তু তার পরে ফের নোংরা-আবর্জনা জড়ো করতে শুরু করেন তিনি। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, রানা একসময় অ্যাথিলিট ছিলেন। হাঁটা প্রতিযোগিতায় ৮০-র দশকে প্রচুর পুরষ্কার জিতেছিলেন। কিন্তু আচমকাই অস্বাভাবিক আচরণ করতে শুরু করেন তিনি। কয়েকবছর আগে তাঁর মা মারা যান। বর্তমানে মানসিক ভারসাম্যহীন এই ব্যক্তি একাই বাড়িতে থাকেন।

 

সামনেই বর্ষাকাল। গত বছরও বর্ষার সময়ে এই এলাকায় ডেঙ্গু ছড়িয়েছিল। এলাকার বাসিন্দাদের ধারণা, রানার জমানো ময়লা থেকেই ডেঙ্গু ছড়াতে পারে। সেই থেকেই আগাম সতর্কতা হিসাবে আবর্জনা পরিস্কারের কাজ শুরু করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পৌরসভা।   জানা গিয়েছে, এই অবস্থায় প্রতিবেশীদের কাছেই থাকবেন রানা। তাঁরাই তাঁর চিকিৎসা করাবেন বলে জানিয়েছেন।

 


Top