খালেদার জামিন প্রশ্নে অ্যাটর্নি জেনারেলের শুনানি শুরু | daily-sun.com

খালেদার জামিন প্রশ্নে অ্যাটর্নি জেনারেলের শুনানি শুরু

ডেইলি সান অনলাইন     ১৫ মে, ২০১৮ ১২:৫৬ টাprinter

খালেদার জামিন প্রশ্নে অ্যাটর্নি জেনারেলের শুনানি শুরু

 

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত ও কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিনাদেশ স্থগিত চেয়ে করা আবেদনের ওপর  রাষ্ট্রপক্ষের অ্যাটর্নি জেনারেল শুনানি শুরু করেছেন। আজ মঙ্গলবার (১৫ মে) দুপুর ১২টায় নির্ধারিত সময়েই প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চে শুনানি শুরু হয়।

 


এর আগে খালেদা জিয়ার জামিন প্রশ্নে রায় ঘোষণার নির্ধারিত দিনে মঙ্গলবার (১৫ মে) রাষ্ট্রপক্ষের সময় আবেদনের প্রেক্ষিতে রায় ঘোষণা না করে পুনরায় শুনানির জন্য দুপুর ১২টায় সময় নির্ধারণ করে আদেশ দেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ। 


সকাল ৯টা ৫০ মিনেটের দিকে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির বেঞ্চ রায়ের জন্য এজলাসে বসেন। এরপর রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম জামিন প্রশ্নে আরও কিছু ডকুমেন্ট দিবেন জানিয়ে শুনানির জন্য একদিন সময় চেয়ে আবেদন করেন।


এ সময় প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘কালকে (বুধবার) একজন ব্রাদার জাজ (বেঞ্চের চার বিচারকের একজন) থাকতে পারবেন না। আপনি বই-পুস্তক নিয়ে আজই দুপুর ১২টায় কোর্টে আসেন।’


এরপর বিচারপতিরা এজলাস ত্যাগ করেন। তখন আদালত থেকে আইনজীবীরা বের হয়ে যান।


এদিকে, রায় পেছানোকে একটি ষড়যন্ত্র বলে দাবি করেছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দিন খোকন।


খালেদা জিয়ার জামিন প্রশ্নে আপিল বিভাগের রায় ঘিরে সকাল থেকে সুপ্রিম কোর্ট ও এর আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। সব ফটকেই পরিচয়পত্র দেখিয়ে প্রবেশ করতে হয়েছে।


এর আগে গত ৯ মে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের করা আবেদনের ওপর শুনানি শেষে আজকে রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেছিলেন আপিল বিভাগ।


সেদিন আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী, আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ও অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন। এ ছাড়া ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদসহ সিনিয়র আইনজীবীরা খালেদার পক্ষে উপস্থিত ছিলেন। রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, দুদকের পক্ষে অ্যাডভোকেট খুরশিদ আলম খান শুনানি করেন।

 

এর আগে গত ১৯ মার্চ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দণ্ড পাওয়া খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদককে আপিলের অনুমতি দেন আপিল বিভাগ। দুই সপ্তাহের মধ্যে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদককে এবং পরবর্তী দুই সপ্তাহের মধ্যে খালেদা জিয়াকে আপিলের সারসংক্ষেপ জমা দেয়ার জন্য নির্দেশ দেন আদালত। একই সঙ্গে ওইদিন এ আপিল শুনানির জন্য ৮ মে দিন ধার্য করেন আপিল বিভাগ।


আদেশে আপিল বিভাগ বলেছেন, ‘হাইকোর্টের জামিনাদেশের বিরুদ্ধে আপিলের অনুমতি চাওয়া হয়েছে। সেটা মঞ্জুর করার মত কারণ (মেরিট) আমরা পেয়েছি। তাই দুটি আপিলের অনুমতি দেয়া হলো এবং আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত হাইকোর্টের আদেশটি স্থগিত করা হলো।’


হাইকোর্ট গত ১২ মার্চ খালেদা জিয়াকে চার মাসের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেন। পাশাপাশি এ মামলায় খালেদা জিয়ার সাজা কেন বৃদ্ধি করা হবে না, তা জানতে চেয়েও রুল জারি করেন আদালত। হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ ওই আদেশ দেন। 


পরে আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালতে হাইকোর্টের জামিনাদেশ স্থগিত চেয়ে আবেদন করেন রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদক। ওইদিন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত জামিন স্থগিত না করে আবেদন দুটি শুনানির জন্য আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন। এরপর ১৪ মার্চ চার মাসের জামিন দিয়ে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ ১৮ মার্চ পর্যন্ত স্থগিত করেন আপিল বিভাগ। ওই সময়ের মধ্যে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষকে নিয়মিত আপিলের আবেদন (লিভ টু আপিল) করার নির্দেশ দেন সর্বোচ্চ আদালত। পরে আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী, লিভ টু আপিল করে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষ।


উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় একটি মামলা করে দুদক। ২০১০ সালের ৫ আগস্ট তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন দুদকের উপ-পরিচালক হারুন-অর-রশীদ। ২০১৪ সালের ১৯ মার্চ তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ আদালতের বিচারক বাসুদেব রায়।  গত বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে পুরান ঢাকার বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় রায় ঘোষণা করেন। রায়ে বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) কাজী সলিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমানকে ১০ বছর করে কারাদণ্ডাদেশ এবং দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।


রায়ের পর পরই খালেদা জিয়াকে আদালতের পাশে নাজিমউদ্দিন রোডের ২২৮ বছরের পুরান ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। নির্জন এই কারাগারে একমাত্র বন্দি হিসেবে গত ৯৭দিন ধরে কারাভোগ করছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।


দীর্ঘ ৩৬ বছরের রাজনৈতিক জীবনে এর আগে একবার কারাগারে যেতে হয়েছিল বেগম খালেদা জিয়াকে। ২০০৭ সালের ৩ সেপ্টেম্বর সেনা-সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়। তখন জাতীয় সংসদ ভবন এলাকার স্পিকারের বাসভবনকে সাবজেল ঘোষণা করে সেখানে রাখা হয়েছিল তাকে। ২০০৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্টের এক আদেশে খালেদা জিয়া মুক্তি পান। এরপর তিনি দুর্নীতি মামলায় দ্বিতীয় বার জেলে যান।

 

আরও পড়ুন:

 

খালেদা জিয়ার জামিন বিষয়ে রায় মঙ্গলবার

 

খালেদার মুক্তির দাবিতে ৮ দিনের কর্মসূচি বিএনপির

 

খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে কারাগারে পরিবারের ৫ সদস্য

 

খালেদা ‘আনফিট’: ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার পরবর্তী শুনানি ১০ মে


খালেদা জিয়া সবার সঙ্গে দেখা করতে চান না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

 

খালেদার দেখা পাননি ফখরুলসহ তিন নেতা

 

খালেদার শরীরে এমন কোনও রোগ নেই, যার চিকিৎসা এদেশে সম্ভব নয়: ডা. শামসুজ্জামান

 

কারা কর্তৃপক্ষকে খালেদার এক্সরে রিপোর্ট হস্তান্তর

 

স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে ফের কারাগারে খালেদা জিয়া

 

আপাতত দৃষ্টিতে খালেদা জিয়া ভালো আছেন: বিএসএমএমইউ পরিচালক

 

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে লিফলেট বিতরণ

 

উচ্চ আদালতের ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা: মওদুদ

 

খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিতের আদেশ নজিরবিহীন: জয়নুল আবেদীন

 

খালেদার জামিন ৮ মে পর্যন্ত স্থগিত

 

খালেদার জামিনের বিরুদ্ধে দুদকের লিভ টু আপিল

 

খালেদা জিয়ার জামিন রবিবার পর্যন্ত স্থগিত

 

চেম্বারেও খালেদার জামিন বহাল, পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানি কাল

 

খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিত চেয়ে দুদকের আবেদন

 

খালেদা জিয়ার জামিনের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার আপিল

 

যে চার গ্রাউন্ডে জামিন পেলেন খালেদা জিয়া

 

জামিন পেলেন খালেদা জিয়া

 

 


Top