কারিগরিতেও পাসের হার কমছে | daily-sun.com

কারিগরিতেও পাসের হার কমছে

ডেইলি সান অনলাইন     ৬ মে, ২০১৮ ১৭:১৫ টাprinter

কারিগরিতেও পাসের হার কমছে

 

চলতি বছরের কারিগরি বোর্ডেও পাসের হার কমেছে। এবছর কারিগরিতে পাসের হার ৭১ দশমিক ৯৬ শতাংশ।

গত বছর ছিল ৭৮ দশমিক ৬৯ শতাংশ। সে হিসেবে কারিগরিতে পাসের হার কমেছে ৬ দশমিক ৭৩ শতাংশ। আজ রবিবার (৬ মে) সকালে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ গণভবনে শেখ হাসিনার হাতে ফলাফলের অনুলিপি হস্তান্তর করেন। এসময় বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা তার সঙ্গে ছিলেন।


এবার ১০ বোর্ডে গড় পাসের হার ৭৭ দশমিক ৭৭ শতাংশ, যা গত বছরের তুলনায় ২ দশমিক ৫৮ শতাংশ কম। এছাড়া মাদ্রাসা বোর্ডে পাসের হার ৭০ দশমিক ৮৯ শতাংশ, যা গত বছর ছিল ৭৬ দশমিক ২০ শতাংশ। সে হিসেবে মাদ্রাসা বোর্ডে পাসের হারও গত বছরের তুলনায় কমেছে ৫ দশমিক ৩১ শতাংশ।


২০১৬ সালে কারিগরিতে পাসের হার ছিল ৮৩ দশমিক ১১ শতাংশ। চলতি বছর কারিগরিতে ১ লাখ ১৫ হাজার ২৩৪ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে পাস করেছে ৮২ হাজার ৯১৭ জন।

তবে এবার কারিগরিতে জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২২৬ জন বেড়েছে। এ বছর মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ হাজার ৪১৩ জন। গত বছর জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ৪ হাজার ১৮৭ জন।


শিক্ষামন্ত্রী বিভিন্ন সময়ে জানিয়েছেন, ২০০৮ সালে যেখানে কারিগরিতে শিক্ষার্থী ভর্তির হার ছিল ১ দশমিক ২ শতাংশ, বর্তমানে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ দশমিক ১১ শতাংশ। ২০২০ সালের মধ্যে এ হার ২০ শতাংশে উন্নীত করা হবে।


প্রসঙ্গত, এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সারাদেশে ও দেশের বাইরে কয়েকটি কেন্দ্রে একযোগে এসএসসি ও সমমানের লিখিত বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। আর ব্যবহারিক পরীক্ষা ২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ৪ মার্চ পর্যন্ত চলে। এ বছর ৩ হাজার ৪১২টি কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। গত কয়েক বছর থেকে তত্ত্বীয় বিষয়ের পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে ফল প্রকাশ করে আসছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এরই ধারাবাহিকতায় আজ এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করেছে শিক্ষামন্ত্রণালয়।


এবার এসএসসি ও সমমানে গড় পাসের হার ৭৭ দশমিক ৭৭ শতাংশ। মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ১০ হাজার ৬২৯ জন শিক্ষার্থী। ১০ বোর্ডে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২০ লাখ ২৬ হাজার ৫৭৪ জন। এর মধ্যে এসএসসিতে মোট পরীক্ষার্থী ১৬ লাখ ২৭ হাজার ৩৭৮ জন, মাদ্রাসা বোর্ডের অধীন দাখিল পরীক্ষায় ২ লাখ ৮৯ হাজার ৭৫২ জন এবং কারিগরিতে ১ লাখ ১৪ হাজার ৭৬৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে পাস করেছে ১৫ লাখ ৭৬ হাজার ১০৪ জন।


এবার অংশগ্রহণকারী পরীক্ষার্থীর মধ্যে ছাত্র ছিল ১০ লাখ ২২ হাজার ৩২০ জন। এর মধ্যে পাস করেছে ৭ লাখ ৮৪ হাজার ২৪৫ জন। আর অংশগ্রহণকারী ছাত্রী ছিল ১০ লাখ ৪ হাজার ২৫৪ জন। এর মধ্যে পাস করেছে ৭ লাখ ৯১ হাজার ৮৫৯ জন। এতে দেখা যায়, ছাত্রদের পাসের হার ৭৬ দশমিক ৭১ শতাংশ। আর ছাত্রীদের পাসের হার ৭৮ দশমিক ৮৫ শতাংশ। অর্থাৎ ছাত্রদের তুলনায় ছাত্রীদের পাসের হার ২ দশমিক ১৪ শতাংশ বেশি।


অন্যদিকে, মোট জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছাত্র ৫৫ হাজার ৭০১ জন। আর ছাত্রী ৫৪ হাজার ৯২৮ জন। এখানে ছাত্ররা ছাত্রীদের চেয়ে এগিয়ে আছে।

 


Top