গাজীপুর ও খুলনায় প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ, প্রচারণা শুরু | daily-sun.com

গাজীপুর ও খুলনায় প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ, প্রচারণা শুরু

ডেইলি সান অনলাইন     ২৪ এপ্রিল, ২০১৮ ১৬:০৩ টাprinter

গাজীপুর ও খুলনায় প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ, প্রচারণা শুরু

- ১৪ দলীয় জোটের আওয়ামী লীগ মনোনীত অ্যাডভোকেট মো. জাহাঙ্গীর আলমের হাতে প্রতীক তুলে দিচ্ছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা রকিব উদ্দিন মন্ডল

 

গাজীপুর সিটি করপোরেশন ও খুলনা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে (কেসিসি) প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (২৪ এপ্রিল) সকাল থেকে প্রতীক বরাদ্দ শুরু হয়।

এর মধ্যে গাজীপুরের জয়দেবপুর শহরে বঙ্গতাজ অডিটরিয়ামে নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা রকিব উদ্দিন মন্ডল প্রার্থীদের হাতে প্রতীক তুলে দেন। আর খুলনায় আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ইউনুচ আলী প্রার্থীদের হাতে প্রতীক তুলে দেন। প্রতীক পাওয়ার পর থেকেই প্রার্থীরা আনুষ্ঠানিক প্রচারনা শুরু করেছেন।


গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৭ মেয়র প্রার্থীর মধ্যে ১৪ দলীয় জোটের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট মো. জাহাঙ্গীর আলম (নৌকা), ২০ দলীয় জোটের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার (ধানের শীষ), ইসলামী ঐক্য জোটের ফজলুর রহমান (মিনার), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. নাসির উদ্দিন (হাতপাখা), বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের মো. জালাল উদ্দিন (মোমবাতি), বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কাজী মো. রুহুল আমিন (কাস্তে) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ফরিদ আহমদ (টেবিল ঘড়ি) প্রতীক পেয়েছেন। এর মধ্যে ৬ প্রার্থী তাদের দলীয় নির্ধারিত প্রতীক পেয়েছেন। একমাত্র স্বতন্ত্র প্রার্থীকে তার পছন্দের প্রতীক টেবিল ঘড়ি দেয়া হয়েছে। 


এছাড়া সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের প্রতিক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এছাড়া একই প্রতীকে একাধিক প্রার্থীর পছন্দ থাকলে সেখানে লটারির মাধ্যমে প্রার্থীকে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

 

২০ দলীয় জোটের বিএনপি মনোনীত হাসান উদ্দিন সরকারের হাতে প্রতীক তুলে দিচ্ছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা রকিব উদ্দিন মন্ডল


জানা গেছে, সকাল সোয়া ১০টার দিকে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে যান। এর আধঘণ্টার পর দলীয় নেতাকর্মীসহ আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর আলম যান। পরে রিটার্নিং কর্মকর্তা প্রথমে মেয়র প্রার্থী পরে সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী ও সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ করেন।


এদিকে প্রতীক পাওয়ার পর থেকেই গাজীপুরে ১৪ দলীয় জোটের আওয়ামী লীগ মনোনীত অ্যাডভোকেট মো. জাহাঙ্গীর আলম ও ২০ দলীয় জোটের বিএনপি মনোনীত হাসান উদ্দিন সরকার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রধান দুই মেয়র প্রার্থীসহ অপর প্রার্থীরা জনসংযোগে নেমেছেন।


প্রসঙ্গত, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনে নির্বাচনে ৭ মেয়র, ২৫৬ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও ৮৪ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী লড়ছেন । এ সিটি কর্পোরেশনের মোট আয়তন ৩২৯ দশমিক ৫৩ বর্গ কিলোমিটার। এতে ৫৭টি সাধারণ ওয়ার্ড ও ১৯টি সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৫ লাখ ৬৯ হাজার ৯৩৫ জন ও মহিলা ৫ লাখ ৬৭ হাজার ৮০১ জন। মোট ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ৪২৫টি। ভোট কক্ষ ২ হাজার ৭৬১টি।

 

বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু দলীয় প্রতীক ধানের শীষ হাতে


অপরদিকে খুলনায় সকাল সাড়ে ৯টা থেকে প্রতীক বরাদ্দ শুরু হয়। প্রথমে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেককে নৌকা প্রতীক দেয়া হয়েছে। পরে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জুকে ধানের শীষ প্রতীক দেয়া হয়। 


এরপর জাতীয় পার্টি মনোনীত শফিকুর রহমানকে লাঙ্গল, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত অধ্যক্ষ মাওলানা মুজ্জাম্মিল হককে হাত পাখা ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবি মনোনীত দলের মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বাবুকে কাস্তে প্রতীক দেয়া হয়েছে।


আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ইউনুচ আলী মেয়র প্রার্থীদের হাতে প্রতীক তুলে দেন।


মেয়র প্রার্থীদের প্রতীক দেয়ার পর সংরক্ষিত কাউন্সিলর ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে তাদের পছন্দের প্রতীক দেয়া হয়।

 

জনসংযোগে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক


এদিকে প্রতীক পাওয়ার পর থেকেই প্রার্থীরা আনুষ্ঠানিক প্রচারনা শুরু করেছেন। বিএনপি মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু দলীয় কার্যালয়ে দোয়া অনুষ্ঠান করে নির্বাচনী প্রচারনা শুরু করেন। আর আওয়ামী লীগ প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক দলীয় কার্যালয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পন করে এবং ওয়েব সাইট উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে প্রচারনা শুরু করেন।


এছাড়া দুপুর ২টা থেকেই ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে নির্বাচনী প্রচারণায় শুরু হবে মাইকিং, চলবে প্রতিদিন রাত ৮টা পর্যন্ত।


প্রধান দু’টি দলসহ পাঁচটি রাজনৈতিক দলের পাঁচ মেয়রপ্রার্থী, সাধারণ ৩১টি ওয়ার্ডের ১৪৮ জন এবং ১০টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডের ৩৮ জন কাউন্সিলর প্রার্থী নির্বাচনী লড়ছেন।

 

উল্লেখ্য, আগামী ১৫ মে ভোটগ্রহণের দিন ধার্য করে ৩১ মার্চ গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

 

তালুকদার আব্দুল খালেক ও নজরুল ইসলাম মঞ্জুর হাতে প্রতীক তুলে দিচ্ছেন আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ইউনুচ আলী

 

 


Top