স্মার্ট বেড়া: বাংলাদেশ, পাকিস্তান সীমান্তে মোদি সরকারের নতুন প্রকল্প | daily-sun.com

স্মার্ট বেড়া: বাংলাদেশ, পাকিস্তান সীমান্তে মোদি সরকারের নতুন প্রকল্প

ডেইলি সান অনলাইন     ২০ এপ্রিল, ২০১৮ ১৫:১৯ টাprinter

স্মার্ট বেড়া: বাংলাদেশ, পাকিস্তান সীমান্তে মোদি সরকারের নতুন প্রকল্প

 

নরেন্দ্র মোদি সরকার আসামে বাংলাদেশ সীমান্তের নদী এলাকায় দেশটির প্রথম ব্যাপকভিত্তিক সমন্বিত সীমান্ত ব্যবস্থাপনা ব্যবস্থা কার্যকর করেছে। পাকিস্তান ও বাংলাদেশের সাথে থাকা ভারতের সীমান্তজুড়ে নাজুক ফাঁকাগুলো বন্ধ করে দেওয়ার জন্য বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সেস (বিএসএফ) স্মার্ট বেড়া প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।

বেড়া দেওয়ার মাধ্যমে সীমান্ত নিরাপদ করার মোদি সরকারের উচ্চাভিলাষী পরিকল্পনার অংশ হিসেবেই আসামে স্মার্ট বেড়া দেওয়ার কাজ বাস্তবায়ন করা হয়েছে।


তাঁরকাটার বেড়ার চেয়ে স্মার্ট বেড়া ও ব্যাপকভিত্তিক সমন্বিত সীমান্ত ব্যবস্থাপনা (সিআইবিএমএস) অনেক ভিন্ন। প্রথমটি ভৌত বেড়ার মাধ্যমে অনুপ্রবেশ বন্ধ করে দিয়ে সীমান্ত নিরাপদ করার চেষ্টা করা হয়। স্মার্ট বেড়ায় ইলেকট্রনিক সিস্টেম থাকে। এতে সীমান্তজুড়ে চলাচল শনাক্ত করা যায়। তাছাড়া ভৌগোলিক কারণে ভৌত সীমান্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা যেখানে কাজ করে না, সেখানে সিআইবিএমএস ব্যবহার করা যায়। এ দিয়ে পানির নিচেও যেকোনো ধরনের নড়াচড়া টের পাওয়া সম্ভব।


বিএসএফ আইজি (কমিউনিকেশন অ্যান্ড আইটি) এ কে শর্মা বলেন, আসামের ধুবড়ি এলাকায় সীমান্তটি নদী এলাকা। সেখানে কোনো ধরনের বেড়া দেওয়া সম্ভব নয়। তাই সেখানে সিআইবিএমএস বাস্তবায়ন করা হয়েছে। আমরা সীমান্তের কাছে ইলেকট্রনিক প্রতিবন্ধকতা স্থাপন করেছি। এটি ওই অঞ্চলে সব ধরনের তৎপরতা রুখে দেবে। সেন্সরের মাধ্যমে সব তথ্য সদরদফতরে চলে যাবে।


সীমান্ত রক্ষার জন্য বিএসএফ সদস্যরা বর্তমানে টহল নৌকা ব্যবহার করে। এসব এলাকাও স্মার্ট বেড়া ও সিআইবিএমএসের আওতায় আনা হবে। জম্মুতে ইতোমধ্যে এ ধরনের কাজ শুরু হয়েছে। তিনি বলেন, গুজরাটের কচ্ছের রানে কয়েকটি এলাকা চিহ্নিত করেছে বিএসএফ, পাঞ্জাবেও কিছু কাজ করা হচ্ছে। শিগগিরই ওইসব এলাকাতেও সিআইবিএমএস বাস্তবায়ন করা হবে।


আইজি শর্মার মতে, বিএসএফ তিন ধাপে বিশেষ প্রযুক্তি বাস্তবায়ন করছে। প্রথম ধাপে বিএসএফ পরীক্ষা করে, সংশ্লিষ্ট এলাকায় সত্যিকারের সমস্যা কী। সমস্যার আলোকে সেখানে সংশ্লিষ্ট প্রযুক্তি প্রয়োগ করা হয়। পরবর্তী ধাপে বিদ্যমান এবং সবশেষ ধাপে বাজারে প্রাপ্ত প্রযুক্তিগুলো পরীক্ষা করে দেখা হয়।


আইজি শর্মা বলেন, নিরাপত্তাকে গুরুত্ব দিয়েই প্রযুক্তির উন্নয়ন ঘটানো হচ্ছে। তিনি বলেন, সিআইবিএমএস এখনো পরীক্ষামূলক পর্যায়ে রয়েছে। এটি কতটুকু নিরাপত্তা দিতে পারছে, তা বলতে আরো কয়েক মাস সময় লাগবে।


- সূত্র: সাউথ এশিয়ান মনিটর ডট কম

 


Top